প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাংলাদেশে ভারতীয় আধিপত্যবাদ চাই না

 

রিফাত হাসান : ভারতের হিন্দুত্ববাদী ও মুসলমানের খুনি জয় শ্রীরাম আর বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী জয় বাংলা স্লোগানের যে গণবিরোধী মেটামরফসিস, তার সখ্যতা টের পান? একটা কাছা খোলা বর্ণ হিন্দুত্ববাদ, আরেকটা বাংলাদেশে সেই হিন্দুত্ববাদের এজেন্ট আর ভারতীয় আধিপত্যবাদের টুল হয়ে উঠলো দ্রুতই। বাংলাদেশে আমাদের কাছে এই ‘জয় বাংলা’ যে ভারতরে আবশ্যিকরূপে হাজির করতে তৎপর, তার মোদী গাঁধি সব একই চেহারা, বাংলাদেশের জমিদার হতে চায়। আমাদের তার বিরুদ্ধেই দাঁড়াতে হবে। লড়াই ও স্লোগানের এই যে মেটামরফসিস, এটাকে মোকাবেলার পথ খুঁজতে হবে। দরকার নয়া স্লোগান, নয়া পথ, নয়া রাজনীতি। মোদী গাঁধি সব নিপাত যাক। বাংলাদেশে ভারতীয় আধিপত্যবাদ চাই না।

২. প্যান্ট খুলে মানুষের ধর্ম যাচাইয়ের মতো বর্বর, অসভ্য ঘটনা একাত্তরেও ভারত করেছে, আজও ভারতই করছে দিল্লিতে। একটি জাতি ও রাষ্ট্রের চরম সাম্প্রদায়িক ও প্রতিক্রিয়াশীল চরিত্র বোঝার জন্য ইতিহাসের সম্পূর্ণ দুই সময়ের এই দুই ইমেজই যথেষ্ট। আর ভারতের আওয়ামী প্রপাগা-া মেশিন এই ইমেজকে পাকিস্তানি সৈন্যের ইমেজ বানিয়ে চল্লিশ বছর ধরে মুসলমানদের বিরুদ্ধে হিন্দুত্ববাদী প্রচারণা চালিয়েছে। এই অসভ্য, বর্বর, বাংলাদেশ সীমান্তে প্রতিদিন অসংখ্য বাংলাদেশি নাগরিকের খুনি, গুজরাট ও আজকের দিল্লি গণহত্যার নায়ক, বাংলাদেশবিরোধী নিরন্তর প্রচারণা ও তৎপরতায় লিপ্ত মোদীকে বাংলাদেশে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন মুজিবকন্যা শেখ হাসিনা, মুজিবের জন্মশতবর্ষ বক্তৃতায়। এই ঘটনায় রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের অপমান ও পরাজয়, একটি স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে বাংলাদেশের নাগরিকদের আত্মমর্যাদার অপমান ও পরাজয়, আর স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি হিসেবে শেখ মুজিবুর রহমানের যে অপমান ও পরাজয়, তাকে আপনি কীভাবে পাঠ করবেন? ফেসবুক থেকে

সর্বাধিক পঠিত