প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পাচার হওয়া অর্থ ফেরত আনতে সিঙ্গাপুর ও হংকংসহ কয়েকটি দেশে দুদকের কর্মকর্তা পাঠানো হবে, বললেন দুদক চেয়ারম্যান

মহসীন কবির: বৃহস্পতিবার দুপুরে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বৃহস্পতিবার (৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর সেগুনবাগিচার দুদক কার্যালয়ে ডে কেয়ার সেন্টারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে একথা বলেন। যমুনা টিভি ও বাংলানিউজ

তিনি বলেন, যারা অবৈধভাবে ব্যাংকের বা সরকারি অর্থ আত্মসাৎ ও পাচার করে বিদেশে বিলাসবহুল জীবনযাপন করছেন তাদের প্রত্যেককেই ইন্টারপোলের মাধ্যমে খুব দ্রুত দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের মুখোমুখি করা হবে।

তিনি আরও বলেন, অবৈধভাবে ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের টাকা কিংবা সরকারি অর্থ আত্মসাৎ করে যেসব ব্যক্তি সিঙ্গাপুরসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে অর্থপাচার করেছেন। এখন সেসব দেশে অবস্থান করছেন এবং এসব অভিযোগে যাদের বিরুদ্ধে ইতোমধ্যেই মানিলন্ডারিং আইনে দুর্নীতি দমন কমিশন মামলা দায়ের করেছে তাদের ইন্টারপোলের মাধ্যমে দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের মুখোমুখি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দুদক।

২০১৫ সালে বাংলাদেশ থেকে চার প্রক্রিয়ায় ৫৯০ কোটি ডলার (দেশি মুদ্রায় ৫০ হাজার কোটি টাকা) পাচার হয়েছে। সর্বশেষ প্রকাশিত যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংস্থা গ্লোবাল ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টিগ্রিটির (জিএফআই) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। সংস্থাটির তথ্যমতে, ১০ বছরে বাংলাদেশ থেকে ৫ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা পাচার হয়েছে, যা দেশের চলতি বছরের (২০১৮-১৯) জাতীয় বাজেটের চেয়েও বেশি। প্রতি বছর গড়ে পাচার হয়েছে প্রায় ৫৫ হাজার কোটি টাকা। টাকা পাচারে বিশ্বের শীর্ষ ৩০ দেশের তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশের নাম।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত