প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

adv 468x65

রে মূর্খ! বাঙালিত্ব কি হিন্দুত্ব?

মাসুদ রানা : বাঙালি মুসলমানদের মধ্যে যে ধর্মবাদী মূর্খরা বাঙালিত্ব বলতে হিন্দুত্ব বুঝে এবং বোঝায়, তারা নিজের ইতিহাসটাও জানে না। তারা জানে না যে, ‘বাংলা’ ও ‘বাঙালি’ত্বের ধারণা মুসলিম অবদান। এ কথার সমর্থনে আমি নিচে হিন্দু ধর্মীয় পটভূমির একজন বাঙালি ইতিহাসবিদ ও একজন বাঙালি ভাষাবিদকে উদ্ধৃত করছি।
প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ নীতিশ সেনগুপ্ত তার History of The Bengali Speaking People গ্রন্থে Origin of The Name Bengali উপ-অধ্যায়ে লিখেছেন : Name Bengali উপ-অধ্যায়ে লিখেছেন : Like the Bengali language, the name Bengal was not in common usage before the Turkish period, and is of historically recent origin. The name, which loosely applies to the entere territory where Bengali is spoken, does not appear anywhere in this form before the 13th century when Persian and Arabic writers started usinig this name in reference of the lower Gangetic Delta and the surrounding areas. (page-7)অর্থাৎ, ‘বাংলা/বাঙ্গালা ভাষার মতোই, তুর্কি আমলের আগে সাধারণ ব্যবহার ছিলো না ‘বাংলা/বাঙ্গালা’ নামের, যার ঐতিহাসিক উৎপত্তি সাম্প্রতিক। নামটি মোটাদাগে প্রযোজ্য সমগ্র সেই ভূ-খ-ের প্রতি, যেখানে বাংলাভাষা কথিত হয় এবং যার এরূপ উল্লেখ কোথাও দেখা যায় না ১৩ শতকের আগ পর্যন্ত, যখন পারস্যিক ও আরব্য লেখকরা নিম্ন গাঙ্গেয় বদ্বীপ ও তার চতুর্দিকের অঞ্চলসমূহ নির্দেশার্থে এ নামটি ব্যবহার করতে শুরু করেন।’ আজ থেকে শতাধিক বছর আগে ‘বাঙ্গালা ভাষার অভিধানে’র প্রণেতা জ্ঞানেন্দ্রমোহন দাস ‘বাঙালি’ শব্দের সংজ্ঞায় লিখেন :
‘…‘বাঙ্গালী’ বলিলে সমগ্র বঙ্গদেশের মধ্যে যেকোনো অধিবাসী, জন্ম ও সংস্কারগত সম্বন্ধে বাঙ্গালা যাহার স্বদেশ এবং বাঙ্গালা যাহার মাতৃভাষা এরূপ ব্যক্তিকে বোঝায়। বঙ্গের অধিবাসীর ‘বাঙ্গালী’ নাম মুসলমান রাজত্বকালে প্রচলিত হয়। সেন রাজাদিগের আমলে তৎপূর্ব্বে রাঢ়ীয়, বারেন্দ্র প্রভৃতি ও গৌড়ীয় নামে অভিহিত হইতো।’ ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত