প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পদত্যাগের সিদ্ধান্তে অনড় রাহুল, দেখা করলেন প্রিয়াংকা, বুঝাতে ব্যর্থ হয়ে ফিরে গেলেন নেতারা

আসিফুজ্জামান পৃথিল, সান্দ্রা নন্দিনী : লোকসভা নির্বাচনে ব্যর্থতার দায় কাঁধে তুলে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত থেকে কোনভাবেই সরে আসতে চাইছেন না কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। মঙ্গলবার সকালে রাহুলের বাসায় গিয়ে দেখা করেন তার বোন ও উত্তর প্রদেশ (পূর্ব) কংগ্রেস সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াংকা গান্ধী। কংগ্রেসের সূত্রের বরাত দিয়ে এনডিটিভি জানিয়েছে, ভাইকে পদত্যাগের পথ থেকে সরে আসার বিষয়ে ভাইকে বুঝাতে গিয়ে ব্যর্থ হয়েছেন প্রিয়াংকা। বিকালে রাহুলের সঙ্গে দেখা করেন বেশ কিছু জেষ্ঠ্য কংগ্রেস নেতা। তারাও তাকে বুঝাতে ব্যর্থ হয়েছেন। এ পরিস্থিতিতে শেষপর্যন্ত তাই রাহুলের পর সভাপতির দায়িত্বে বসতে যোগ্য কাউকে নির্ধারণ করতে শুক্রবারের মধ্যেই বৈঠকে বসার পরিকল্পনা করেছে কংগ্রেস। এনডিটিভি, আনন্দবাজার।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের ধারণা, দলের শীর্ষ নেতারা শেষ বারের মতো রাহুলকে সভাপতি পদে থাকার আর্জি জানিয়েছেন। যদিও রাহুল সেই আবেদনে সাড়া না দিয়ে পদ ছাড়ার সিদ্ধান্ত আরও নির্দিষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছেন বলে কংগ্রেসের ভেতরের সূত্র জানিয়েছে। ফলে রাহুল পরবর্তী কংগ্রেসের ভবিষ্যৎ নির্ধারণের প্রক্রিয়া এবং তার প্রস্তুতিও শুরু হয়ে গেছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। যদিও আনুষ্ঠানিক ঘোষণার দেওয়া হয়নি। কারণ এই সপ্তাহের শেষের দিকে আবারও বৈঠকে বসছে কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটি (সিডাব্লিসি)। ওই বৈঠকেই রাহুলের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করা হতে পারে এবং তার পর ঘোষণা করা হতে পারে। গত শনিবার কংগ্রেস সভাপতির পদ থেকে পদত্যাগ করতে চাইলেও কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটি তা গ্রহণ করেনি। দলীয় সূত্রে খবর, ওই দিনের পরও অনেক নেতা-নেত্রী তাঁকে বোঝানোর চেষ্টা করেছেন। সোনীয়া-প্রিয়াংকাও আরো এক দফা বুঝিয়ে রাহুলকে সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার অনুরোধ করেছেন। কিন্তু রাহুল রাজি না হওয়ায় তাঁরাও মেনে নিয়েছেন। সোমবারও দলের দুই শীর্ষ নেতা আহমেদ পটেল এবং কে সি বেনুগোপালকে রাহুল স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁর উত্তরসূরি খোঁজার জন্য।

মঙ্গলবার প্রিয়াংকার সঙ্গে রাহুলের বাড়িতে গিয়েছিলেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী শচিন পাইলট। কিন্তু রাহুল তার সঙ্গে দেখা করেননি। পরে বিকেল ৪টায় তাকে সময় দেন। তবে দেখা করতে রাজি হনননি রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটের সঙ্গে। কংগ্রেসের রাজনীতিতে অশোক অত্যন্ত প্রভাবশালী একটি নাম। রাহুলের টিম কংগ্রেসেও অশোক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। কিন্তু গত নির্বাচনে তিনি যেভাবে তাঁর ছেলের জন্য প্রচার করেছেন তাতে দলের ক্ষতি হয়েছে বলে মনে করেন রাহুল। আর সেই কারণেই অশোকের সঙ্গে দেখা না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সভাপতি। এদিকে কংগ্রেসের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে গুজব ছড়ানো হচ্ছে বলে টুইটারে দাবি করেছেন দলটির প্রধান মুখপাত্র।

টুইট করে সোমবার রণদীপ সুরজেওয়ালা বলেছেন সংবাদমাধ্যম থেকে শুরু করে সবার কাছে কংগ্রেসের তরফ থেকে অনুরোধ করা হচ্ছে আপনারা আমাদের দলের অভ্যন্তরীণ বিষয় সম্পর্কে শ্রদ্ধাশীল হন। কংগ্রেসের কার্যনির্বাহী কমিটি রুদ্ধদ্বার বৈঠকে কী আলোচনা করছে তা নিযয়ে মতামত পোষণের নামে গুজব ছড়াবেন না। সংবাদমাধ্যমের এই আচরণ অপ্রয়োজনীয় এবং অবাঞ্ছিত। সম্পাদনা : ইকবাল খান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ