প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিজয় দিবসে বাংলাদেশকে অপমান করলেন শেবাগ!

আবু সুফিয়ান শুভ: ভারত আমাদের বন্ধু রাষ্ট বা ভালো প্রতিবেশী রাষ্ট । তাই তাদের কাছে বন্ধুতপূর্ণ আচরণ কাম্য । কিন্তু তারা যদি অবন্ধুসুলভ আচরণ করে ,তখন প্রশ্ন দেখা দেয় তারা প্রকৃত পক্ষে কতটুকু বন্ধুতপূর্ণ প্রতিবেশী । শুধু নিজের প্রয়োজন বন্ধু দাবি করলে হবে? বন্ধু মানি কি ? এরই ধারাবাহিকতায় এবার বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকে অবমাননা করে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম টুইটারে টুইট করেছেন বিতর্কিত ভারতীয় ক্রিকেটার বীরেন্দর শেবাগ। পোস্টে শেবাগ বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনের দিনটিকে ভারতীয় আর্মড ফোর্সের (মিলিতভাবে ভারতের সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, বিমানবাহিনী) জন্য ঐতিহাসিক দিন হিসেবে দাবি করেন। বাংলাদেশের কাছে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর আত্মসমর্পণের ঐতিহাসিক ছবি সংযুক্ত করে ক্যাপশনে তিনি লিখেন, ‘৪৭ বছর আগে আজকের এই দিনে, ১৯৭১ সালে; আমাদের আর্মড ফোর্সের একটি ঐতিহাসিক দিন।’

শেবাগের এমন বক্তব্য নিঃসন্দেহে বাংলাদেশের জন্য অপমানজনক। ১৯৭১ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ বিজয়কে ইতিপূর্বে অনেক ভারতীয়ই নিজেদের বিজয় বা নিজেদের অর্জন কিংবা বাংলাদেশের পূর্ণভাবে স্বাধীনতা অর্জনের যুদ্ধকে ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ বলে আখ্যা দিয়ে বিতর্কের জন্ম দিয়েছিলেন।

শেবাগের টুইটের প্রতিক্রিয়ায় মোহাম্মদ নাজমুল হক নামের এক বাংলাদেশি মন্তব্য করেছেন, ‘আপনার উচিত বাংলাদেশকে ধন্যবাদ জানানো, কারণ তারাই আপনাদের এই দিনটিকে ঐতিহাসিক করে তোলার সুযোগ করে দিয়েছে।’ সাদাফ উসমান নামের আরেক বাংলাদেশি শেবাগের বিজয় দিবস উদযাপনের পোস্ট দেখে প্রশ্ন ছুঁড়েছেন- শেবাগ বাংলাদেশের লোক কি না। আরিয়ান নামের এক ভারতীয় শেবাগের সুরে সুর মিলিয়ে বলেছেন, ‘হ্যাঁ, আমাদের আর্মড ফোর্সের জন্য এটি ঐতিহাসিক এক দিন।’ নামোরাজ নামের এক ভারতীয় টুইটার ব্যবহারকারী মুক্তিযুদ্ধে হত্যাযজ্ঞ ও নির্যাতন চালানো পাকিস্তানের সেনাবাহিনীকে ত্রাস আখ্যা দিয়ে মন্তব্য করেছেন, তারা ভারতের কাছেই পরাজিত হয়েছিল। এরকম বেশিরভাগ মন্তব্যেই ভারতীয়রা ঐতিহাসিক এই দিনের জন্য ভারতকেই কৃতিত্ব দিচ্ছেন, নেই বাংলাদেশের নামগন্ধও।

১৫ ডিসেম্বর রাতে পোস্ট করা এই টুইটে ইতোমধ্যে মন্তব্য জমা পড়েছে ২০৬টি, এসেছে প্রায় ২ হাজার ফিরতি টুইটবার্তা। সেখানে অনেকে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে ভারতের অবদান স্বীকার করে নিলেও বেশিরভাগই বাংলাদেশের কথা উল্লেখ না করেই ভারতীয় আর্মড ফোর্সের গুণকীর্তন করছেন, আর এই টুইটার ব্যবহারকারীদের সিংহভাগই ভারতের অধিবাসী। বাংলাদেশের বিজয় অর্জনের দিনে বাংলাদেশকে কৃতিত্ব না দিয়ে, এমনকি বাংলাদেশের প্রসঙ্গই উপেক্ষা করে ভারতের আর্মড ফোসের্র শংসাসূচক মন্তব্য স্বভাবতই ঠেকছে বেমানান। একাধিকবার বাংলাদেশকে নিয়ে নেতিবাচক মন্তব্য করা শেবাগ বিতর্ক উসকে দিতেই এই টুইট করেছেন কি না, এমন প্রশ্ন তাই উঠতেই পারে!

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ