প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা
টিভি চ্যানেলের কাছে বকেয়া ১০০ কোটি টাকা ফেরত চান প্রযোজকরা

মহিব আল হাসান: দেশের বিভিন্ন বেসরকারী টিভি চ্যানেলের কাছে প্রযোজকদের প্রায় ১০০ কোটি টাকারও বেশি বকেয়া জমে আছে। তাই বিপুল পরিমাণ এই বকেয়া টাকা ফেরত পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে কামনা করছে টেলিভিশন প্রোগ্রাম প্রডিউসার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টেলিপ্যাব)।

বৃহস্পতিবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টায় বকেয়া আদায়ের দাবিতে ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটিতে একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে প্রযোজকদের সংগঠন টেলিপ্যাব।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- সংগঠনের সভাপতি মামুনুর রশীদ ও সাধারণ সম্পাদক ইরেশ যাকেরসহ পাওনাদার প্রযোজকরা।

সংবাদ সম্মেলনে টেলিপ্যাব এর সভাপতি মামুনুর রশীদ বলেন, সম্মানিত সাংবাদিকগণ, আপনারা আমাদের সহকর্মী। আপনারা সবকিছু জানেন ও অবগত আছেন। দেশের টেলিভিশন চ্যানেলগুলোর কাছে আমাদের প্রযোজকদের বহু টাকা আটকে আছে। অনেক চেষ্টা করলেও তাদের কাছ টাকা ফেরত পাওয়া যাচ্ছে না । এই টাকা ফেরত পেতে সাংবাদিকদের সহযোগিতা নিয়ে প্রযোজকদের যে লগ্নিকৃত টাকা তা ফেরত পেতে আপানাদের সামনে হাজির হয়েছি।’

তিনি আরও বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী সহযোগিতা করলেই বকেয়া টাকা ফেরত পাওয়া সহজ হবে। প্রধানমন্ত্রী হস্তক্ষেপ করলেই প্রযোজকরা তাদের পাওনা টাকা ফেরত পাবে। ফলে অনেকেই আবার প্রযোজনায় ফিরতে পারবে। শোবিজেও কাজের গতিশীলতা ফিরবে।

সাধারণ সম্পাদক ইরেশ যাকের বলেন, আমরা বকেয়া টাকা পাওয়ার বিষয়ে খুবই সিরিয়াস। সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে প্রতিটি চ্যানেলকে বিষয়টি জানালাম। আশাকরি তারা আমাদের পাওনা টাকা ফেরত দেবে।

হুশিয়ারী দিয়ে ইরেশ যাকের আরও বলেন, চ্যানেলগুলো যদি আমাদের কথা না মানে তাহলে আমরা কর্মসূচিতে যাবো। আমরা সবাই জানি মালিকপক্ষের কাছে এই টাকা দেওয়া কোনও ব্যাপার না।

সংবাদ সম্মেলনে অনেক প্রযোজক মুখ খোলেন। প্রযোজক জামাল উদ্দিন বললেন, ‘একুশে টেলিভিনের কাছে ৮৫ লক্ষ টাকা পাওনা আমার। সেই টাকাটা আমি আদায় করতে পারছি না । কী কারণে টাকাটা তারা দিচ্ছে না তাও বুঝতে পারছি না। আমি আশা করব আপনাদের মাধ্যমে আমরা প্রযোজকরা টাকা ফেরত পাব।’

চ্যানেলগুলো ধারাবাহিক নাটক, খন্ড নাটক ও টেলিফিল্ম চালিয়ে দর্শকদের তাদের চ্যানেলের দিকে ঝুঁকে নিচ্ছে। কিন্তু যারা নাটক তৈরি করে তারা চ্যানেলে নাটক দেওয়ার পর টাকা ফেরত পায় না । চ্যানেলে নাটক প্রচারের জন্য চিঠি আদান-প্রদান ও দালালের হিড়িক পড়ে। আবার দেখা যায় প্রচারিত নাটকগুলো পুনঃপ্রচার করা হচ্ছে। সেগুলোর টাকাও ফেরত পায়নি প্রযোজকরা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত