প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অভিযোগের পাল্লা ভারী করছে বিএনপি

শিমুল মাহমুদ: আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজেদের অবস্থান ঠিক রাখতে তিন সিটিতেই আওয়ামীলীগ পুরোনো কৌশলে এগুচ্ছে বলে অভিযোগ বিএনপির । দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাহিরে থাকা দলটি রাষ্ট্রযন্ত্রকে প্রতিহতের চেষ্টা করলেও ব্যর্থতায় অভিযোগের পাল্লা ভারি করে চলেছে। নেতাকর্মীদের গণগ্রেফতার, বহিরাগত প্রবেশ, বাড়িতে বাড়িতে হানা ও হুমকি,এজেন্টকে বের করে দেওয়া, স্বাক্ষরহীন ব্যালট পেপার প্রদান, জালভোটে ব্যালট বাক্স পূর্ণ করা, পুলিশী সহায়তায় ছাত্রলীগের সশস্ত্র অংশগ্রহণ, ধানের শীষের ২৪ জন এজেন্ট নিখোঁজ হওয়ার ঘটনাসহ ক্ষমতাসীনদের অসংখ্য অনিয়ম ও নির্বাচন আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগে নিরব নির্বাচন কমিশনের ভোট শেষে অনুশোচনাহীন সুষ্ঠ নির্বাচনের বিবৃতিসহ রয়েছে নানা অভিযোগ।

দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, বর্তমান সরকার অবৈধভাবে ক্ষমতায় থেকে বিকারগ্রস্ত হয়ে পড়েছে। এরা কখনোই সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে দেবে না। নির্বাচন কমিশন এখন একটি প্যারাসাইট। বর্তমান নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রতিপক্ষ।

এদিকে ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবু আলম হানিফ বলেন, তিন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের সুস্থ উৎসবমুখর পরিবেশে চলছে। আর এ নির্বাচনে বিএনপির পরাজয় আড়াল করতেই বিএনপি মিথ্যাচার করছে।

বিএনপির অভিযোগ সমুহ:

* ওয়ার্ড-০১ঃ ভোট কেন্দ্র: গুলজারবাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়: এই কেন্দ্রের মহিলা এজেন্টদের কাউকেই কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেয়নি।

ওয়ার্ড-০২ঃ ভোট কেন্দ্র: কোট কলেজ কেন্দ্রে: সকল এজেন্টদের ভোট শুরু হওয়ার ১ঘন্টা পরে কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়।

ওয়ার্ড-০৩ঃ ভোট কেন্দ্র: মহিলা ক্রিড়া কমপ্লেক্স: সকল এজেন্টকে বের করে দিয়েছে।

ভোট কেন্দ্র: রাজশাহী গার্লস গাইড: সকল এজেন্টকে বের করে দিয়েছে।

ওয়ার্ড-১৮ঃ ভোট কেন্দ্র: ইউসেফ স্কুল: এই কেন্দ্রের মোট এজেন্ট ৮ জন। ২ জনকে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। হাফিজ বাবু এবং নাহিদুলকে ভেতরে স্বাক্ষর নিয়ে বের করে দিয়েছে।

ওয়ার্ড-২১ঃ ভোট কেন্দ্র: শিরইল স্কুল: ৮:৪৫ মিনিট পর্যন্ত কোন পুলিং এজেন্টকে প্রবেশ করতে দিচ্ছেনা। জেলা বিএনপি’র সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন তপু সেখানে আছেন, তিনি ফোন করে জানালেন।

ওয়ার্ড-২৩ঃ ভোট কেন্দ্র: শাহ মখদুম কলেজ: সকাল ৯:১৫ মিনিটে কৃষক লীগের সভাপতি মীর ইকবাল কেন্দ্রের সকল এজেন্টকে বের করে দিয়েছে। একজন এজেন্ট এ্যাডভোকেট ইতি এর প্রতিবাদ করলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। মীর ইকবাল আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী খাইলুজ্জামান লিটন এর এপিএস ও মীর লেমনের বড় ভাই। (এজেন্ট: (১) গোলাম গাউস মনা (২) আব্দুল্লাহ সরকার তুহিন (৩) নাজমা আক্তার (৪) নাসরিন আক্তার)।

ভোট কেন্দ্র: ঘোড়ামারা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়: সকল এজেন্টকে ভোট কেন্দ্রে থেকে বের করে দিয়েছে। (এজেন্ট: (১) আমিনুল (২) আসলাম (৩) পিয়ারুল (৪) মামুন হাসান)।

ভোট কেন্দ্র: আহমদপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়: সকল এজেন্টকে ভোট কেন্দ্রে থেকে বের করে দিয়েছে। (এজেন্ট: সাবিনা ইয়াসমিন, শারমিন, জেসমিন আক্তার, শাহানা বেগম, শারমিন-২, রুমি, তুলি খাতুন)।

ওয়ার্ড-২৪ঃ এই ওয়ার্ডের ৪টি কেন্দ্র: (ক) জাতীয় তরুন সংঘ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (পুরুষ) (খ) জাতীয় তরুন সংঘ একাডেমী (মহিলা) (গ) সুজাউদ্দিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (মহিলা) (ঘ) অনন্যা শিশু শিক্ষালয় (পুরুষ) মোট ৩৩ জন এজেন্টের সবাইকে সকাল ৮:৩০ মিনিটের মধ্যেই কেন্দ্র থেকে বের করে দিয়েছে।

ভোট কেন্দ্র: সকল এজেন্টকেই ভোট কেন্দ্রে থেকে বের করে দিয়েছে। গতরাতে রাজশাহী জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক ওয়ালিউজ্জামান পরাগকে না পেয়ে তার ছোট ভাইকে বাসা থেকে গ্রেফতার করে এবং বাড়ী ভাংচুর করে।

ওয়ার্ড-২৫ঃ ভোট কেন্দ্র: খাদেমুল ইসলাম উচ্চ বিদ্যালয়: ভোটারদের কেন্দ্রে প্রবেশ করতে না দিয়ে বাহিরে লাইনে দাড় করিয়ে রেখে পুলিশ ও বিজিবি ভিতিকর পরিবেশ সৃষ্টি করে।

ওয়ার্ড-২৮ঃ ভোট কেন্দ্র: তালাইমারী দারুল উলুম দাখিল মাদ্রাসা: সকাল ৮ টা পর্যন্ত ১১ জন এজেন্টদের কাউকেই ভোট কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেয়নি। ৮:১০ মিনিটের দিকে সাংবাদিকদের সহায়তায় ৪ জন এজেন্টকে ভোট কেন্দ্রে প্রবেশ করানো সম্ভব হয়েছে। অপর ৭ জন এজেন্টকে ১০:৩০ মিনিট পর্যন্ত প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি।

ভোট কেন্দ্র: কাজলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়: ১০:৩০ মিনিট পর্যন্ত কোন এজেন্টকেই কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি।

ওয়ার্ড-২৯ঃ ভোট কেন্দ্র: ডাসমারী উচ্চ বিদ্যালয়: সকল এজেন্টকে ভোট কেন্দ্রে থেকে বের করে দিয়েছে। এখানে কাটাখালী পৌর মেয়র আওয়ামী লীগ নেতা আব্বাস এর নেতৃত্বে পরিকল্পিতভাবে হাঙ্গামা সৃষ্টিকরে সকল ভোটারকে কেন্দ্র থেকে বের করে দিয়েছে। পরে তারা নিজেরাই নৌকা প্রতিকে সিল মেরে ব্যালট বাক্স ভর্তি করে।

ওয়ার্ড-৩০ঃ ভোট কেন্দ্র: বিনোদপুর ইসলামিয়া কলেজ: আওয়ামী লীগ নেতা সাদ্দাম এর নেতৃত্বে ভোট কেন্দ্র দখল করে সকল এজেন্টকে বের করে দিয়েছে। এ্যাড: পারভেজ তৌফিক ভোট দিতে গেলে পুলিং অফিসার বলেন মেয়রের ব্যালট পেপার শেষ।

বরিশাল

* বরিশালে মজিদুন নেসা ভোট কেন্দ্র এবং বরিশাল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে ধানের শীষের ব্যাজ লাগিয়ে আওয়ামী লীগের পোলিং এজেন্ট’রা কাজ করছে। ধানের শীষের মেয়র প্রার্থী এ্যাডভোকেট মজিবুর রহমান সারোয়ারকে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা প্রায় এক ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখে।

* উদয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে ছাত্রলীগ ও পুলিশ প্রশাসনের নেতৃত্বে ধানের শীষের সব এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয়েছে। ১৫ নং ওয়ার্ডে ধানের শীষের এজেন্ট আলমাস ও সুমনকে মারধর করে আহত করা হয়েছে, তারা দু’জনেই এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

* সরকারী পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট কেন্দ্রে জেলা ছাত্রলীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাকের নেতৃত্বে ধানের শীষের সকল এজেন্টকে কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয়েছে।

* এম এস কামিল আলিয়া মাদ্রাসা, নবজাগরণী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, এলেম উদ্দিন শরীফ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্র থেকে ধানের শীষের সব এজেন্টদের বের করে দিয়েছে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা।

* ওয়ার্ড নং-৩০, কাশিপুর গার্লস হাইস্কুল এন্ড কলেজ কেন্দ্র থেকে পুলিশের সহায়তায় উজিরপুর পৌর মেয়র এর নেতৃত্বে প্রায় ২০০ আওয়ামী সন্ত্রাসী ধানের শীষের সকল এজেন্টকে কেন্দ্র থেকে বের করে দিয়েছে।

* ইমাম গাজ্জালী কলাডেমা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে ধানের শীষের সকল এজেন্টকে বের করে দেয়া হয়েছে।

* ওয়ার্ড-২৯, বাঘিয়া আল আমিন কামিল মাদ্রাসা, বাঘিয়া গাওসুল আজম আলিয়া মাদ্রাসা, পূর্ব ইছাকাজী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইজাগাতি কলোনী বিএইচপি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, কাশিপুর হাইস্কুল এন্ড কলেজ কেন্দ্র থেকে ধানের শীষের এজেন্টদের বের করে দেয়া হয়েছে। এছাড়া বাবুগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান স্বপনের নেতৃত্বে বাবুগঞ্জ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের সশস্ত্র নেতাকর্মীরা পুলিশের সহায়তায় ধানের শীষের সকল এজেন্টকে ভোট কেন্দ্র থেকে বের করে দিয়েছে।

* ওয়ার্ড-৯, এ কে স্কুল ভোট কেন্দ্র, ওয়ার্ড নং-৭ আসমত আলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর কাউনিয়া স্কুল, কাউনিয়া হাফিজিয়া মাদ্রাসা, আদর্শ মাতৃমন্দির সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং আজম আলী মাষ্টার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ধানের শীষের পুরুষ ও মহিলা এজেন্টদের ব্যাপক মারধর করে কেন্দ্র থেকে বের করে দিয়েছে ছাত্রলীগের সশস্ত্র ক্যাডার’রা, পুলিশ সহায়তা করেছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত