প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাখাইনে হিন্দুদের ওপর আরসা’র হত্যাযজ্ঞের তদন্ত চায় যুক্তরাষ্ট্র

সান্দ্রা নন্দিনী: আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের প্রতিবেদনের ভিত্তিতে মিয়ানমারের রাখাইনে হিন্দু অধ্যুষিত গ্রামগুলোতে আরাকান রোহিঙ্গা সালভাশন আর্মি-আরসা’র চালানো হত্যাযজ্ঞের একটি গ্রহণযোগ্য ও নিরপেক্ষ তদন্ত চায় যুক্তরাষ্ট্র। শুক্রবার মার্কিন পররাষ্ট্র বিভাগ থেকে এ দাবি জানানো হয়।

মার্কিন পররাষ্ট্র বিভাগের একজন মুখপাত্র জানান, রাখাইনে হিন্দু অধ্যুষিত গ্রামগুলোতে আরসা’র হত্যাযজ্ঞ বিষয়ে অ্যামনেস্টির প্রকাশিত প্রতিবেদনে যুক্তরাষ্ট্র গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছে। মিয়ানমারের উত্তর রাখাইনের মানবাধিকার লঙ্ঘনের চিত্র অত্যন্ত জটিল।
তিনি বলেন, সেখানকার ভুক্তভোগী মানুষকে ন্যায় বিচার দিতে অ্যামনেস্টির প্রতিবেদনের একটি নিরপেক্ষ, স্বাধীন ও সর্বজন স্বীকৃত তদন্ত হওয়া তাই অত্যন্ত জরুরি। আর যুক্তরাষ্ট্র এতে সবরকম সহায়তা দিতে প্রস্তুত।

এ সপ্তাহে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, আরসা রাখাইনে এক অথবা দু’টি গণহত্যা চালিয়ে শিশুসহ ৯৯জন হিন্দুকে হত্যা করেছে। ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট বার্মিজ বাহিনীর বিরুদ্ধে আরসা’র বিদ্রোহের প্রথম দিনেই হিন্দুদের হত্যার এই ঘটনা ঘটে। বার্মিজ বাহিনীর বিরুদ্ধেও রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতন এবং গণহত্যা চালানোর অভিযোগ রয়েছে। সংস্থাটি জানায়, রোহিঙ্গাদের উপর মিয়ানমার নিরাপত্তা বাহিনী যেমন মানবতাবিরোধী অপরাধ করেছে, আরসার বর্বরতাও তার থেকে কম কিছু নয়।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া শরণার্থীদের সাথে কথা বলে এবং রাখাইন থেকে আরসা’র হাতে হিন্দুদের নির্বিচারে হত্যার তথ্য প্রমাণ পাওয়া গেছে। গত ২৬ আগস্ট সকালে আরসা সদস্যরা রাখাইনের মংডু’র উত্তরাঞ্চলের আহ নুক খা মং সেইক গ্রামে হিন্দুদের উপর আক্রমণ চালায়। কালো পোশাকের সশস্ত্র লোকজনের সাথে স্থানীয় সাধারণ রোহিঙ্গারা মিলে গ্রামটিতে হিন্দু নারী, পুরুষ এবং শিশুদের ঘিরে ফেলে নির্যাতন চালায়। এই গ্রাম থেকে ৫৩ জন হিন্দুকে ধরে নিয়ে হত্যা করা হয়। পিটিআই

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত