প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘রোহিঙ্গা ইস্যুতে সরকারের উদ্যোগের ঘাটতি আছে’

আহমেদ ইসমাম : রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশকে যে ধরনের কূটনৈতিক তৎপরতা ও বিশ্ব জনমত নিয়ে কাজ করার দরকার ছিল তা করতে পারেনি। সেই সাথে সরকার মিয়ানমারকে চাপ দিতে ব্যর্থ হয়েছে। অন্যান্য দেশের সাথে যে ধরনের আলোচনা করা করার দরকার ছিল সে ব্যপারেও খুব একটা ভালো দক্ষতা দেখাতে পারেনি। চীনের প্রকল্প এখানে আছে, রাশিয়ার প্রকল্প আছে, ভারতের প্রকল্প আছে এই তিন দেশকে নিয়ে বাংলাদেশ নিগোসিয়েট করতে পারত। তাদের বলতে হবে, সমাধান না হলে তোমাদের সাথে আমাদের কোনো সম্পর্ক থাকবে না। এ ধরনের কাজ করতে যে ধরনের উদ্যোগ নেয়া দরকার, তা সরকার নিতে পারেনি, এই জায়গায় সরকারের ঘাটতি আছে। আমাদের অর্থনীতির সাথে আলাপকালে অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ এ সব কথা বলেন।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের দেশে ফেরত পাঠানো নিয়ে যেসব দেশ বাংলাদেশের বিপক্ষে অবস্থান করছে তাদের সাথে মিয়ানমারের একটা অর্থনৈতিক স্বার্থ আছে। রাশিয়া, চায়না ও ভারত রাখাইন রাজ্যে অনেক বড় বড় প্রকল্প হাতে নিয়েছে। মিয়ানমারের সামরিক শাসকদের এসব দেশের সাথে বাণিজ্যিক সম্পর্ক খুব ভালো হওয়ায় তারা চায় না রোহিঙ্গারা তাদের দেশে ফেরত যাক। এই কারণেই তারা বাংলাদেশকে ফেরত না পাঠাতে বার বার চাপ দিয়ে যাচ্ছে।

আর একটা বিষয় হচ্ছে বিশ্বের কোথাও শরণার্থী সমস্যার সমাধান হয় না মন্তব্য করে আনু মুহাম্মদ বলেন, এর কারণ একটা গোষ্ঠী চায় না এ সমস্যার সমাধান হোক। এই সমস্যাকে ঘিরে অনেক মানুষের কর্মসংস্থান তৈরি হয়। সুযোগ সুবিধার নেটওয়ার্ক তৈরি হয়। নানা তহবিলের আনাগোনা শুরু হয়। অনেক প্রতিষ্ঠান এগুলোর ওপরেই বেঁচে থাকে। সুতরাং তারা এটার স্থায়ী সমাধান করার জন্য চেষ্টা করবে না। যার ফলে এ ধরনের সমস্যা তৈরি হয় কিন্তু সহজে সমাধান হয় না। সম্পাদনা : খন্দকার আলমগীর হোসাইন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত