প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘কেউ না দেখলেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের দেখবেন’

সজিব খান: ‘স্বামী সন্তানকে ঘরে রেখে ঢাকায় এসে আন্দোলন করছি। আশা একটাই , কেউ না দেখলেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের দেখবেন। কারণ তিনি শিক্ষাবান্ধব। শিক্ষামন্ত্রী শুধু আমাদের আশা দিয়ে আসছেন। কিন্তু কিছুই করছেন না।’ কথাগুলো খুলনার তেরখাদা সোনারতরী নিম্ন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা সাগরিকা মজুমদারের। যিনি অন্যান্য নন এমপিও শিক্ষকদের সাথে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এমপিওভুক্তির দাবিতে আন্দোলন করছেন।

রোববার সকাল ৯টায় অনশন শুরু করেন তারা। দেশের সাত হাজারেরও বেশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও কর্মচারীরা এ কর্মসূচীতে অংশ নেন।

খুলনার শিক্ষিকা সাগরিকা মজুমদার আরও বলেন, ‘দীর্ঘ ১৪বছর ধরে শিক্ষকতা করছি। স্কুলের প্রতি এক প্রকার মায়া জন্মে গেছে বলেই এর সঙ্গে এতদিন থাকা। এতদিন ধরে বিনা বেতনে পাঠদান করে আসছি। আশা ছিল সরকার আমাদেরকে দেখবে। আশায় আশায় পর হয়ে গেছে অনেকগুলো বছর। এই আশায় থেকে আমরা এখন সমাজের বোঝা। অন্য কোথাও যে চাকরি করবো তারও কোন বয়স নেই। সংসার চালাতে প্রতিবছর একটা করে গরু বিক্রি করতে হয়। মাঝে মধ্যে মনে হয় আত্মহত্যা করি।’

উল্লেখ্য যে, এমপিওভুক্তির দাবিতে গত দেড় বছরেরও বেশি সময় ধরে আন্দোলন করে আসছেন নন-এমপিও শিক্ষকরা। কিন্তু এখন পর্যন্ত এর কোন সুরাহা হয়নি। এ দাবি নিয়ে আমরণ অনশন, অবস্থান ধর্মঘট, শিক্ষামন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রী বরাবর বিভিন্ন সময়ে স্মারকলিপি দিলেও (২০১৬-১৭) এবং (২০১৭-১৮) অর্থবছরের বাজেটে নন-এমপিও শিক্ষকদের এমপিওভুক্তি অথবা বাড়তি ভাতার কোনও বরাদ্দই রাখেননি অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তাই গত ২৬ ডিসেম্বর থেকে এমপিওভুক্তির দাবিতে আবারও রাজপথে নেমেছেন নন এমপিও শিক্ষকরা। সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত