শিরোনাম
◈ বিএনপিতে শুদ্ধি অভিযান শুরু, সরকারের সঙ্গে আঁতাতের অভিযোগে ফেঁসে যাচ্ছেন শতাধিক নেতা  ◈ তুরস্কে কন্ট্রাক্ট ফার্মিংয়ে বাংলাদেশি কৃষিবিদ ও কৃষক নিয়োগের প্রস্তাব  ◈ ফুটপাত থে‌কে জ্বলন্ত চুলা ও সিলিন্ডার সরা‌লো পু‌লিশ, আটক ৮  ◈ প্রধানমন্ত্রীকে বড়পীর আব্দুল কাদের জিলানীর (র.) মাজার জিয়ারতের আমন্ত্রণ ◈ রাজধানীজুড়ে রেস্তোরাঁয় পুলিশি অভিযান, আটক ৩৫ ◈ প্রবাসী আয়ে চমক, ৮ মাসে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স ফেব্রুয়ারিতে ◈ রমজানে সৌদি আরবে মাইক ব্যবহার ও সম্প্রচার সীমিত করে ৯ দফা নির্দেশনা ◈ পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ ◈ বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ড হাইকোর্টে রিট দায়ের ◈ গাজায় মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ বন্ধে ঐক্যবদ্ধ উদ্যোগের আহবান বাংলাদেশের

প্রকাশিত : ২৮ নভেম্বর, ২০২৩, ০৭:১৮ বিকাল
আপডেট : ২৮ নভেম্বর, ২০২৩, ০৭:২২ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

অধিনায়ক কামিন্সকে প্রশংসায় ভাসালেন মিচেল স্টার্ক

সাঈদুর রহমান: ওয়ানডে বিশ্বকাপের ১৩তম আসরের ফাইনালে স্বাগতিক ভারতকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছে মাইটি অস্ট্রেলিয়া। যেখানে আসরের প্রথম দুই ম্যাচে হেরে চাপে পড়েছিলো তারা। তবে অধিনায়ক প্যাট কামিন্সের দুর্দান্ত নেতৃত্ব ও ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সের মাধ্যমে দলকে ফাইনালে তুলতে অবদান রেখেছেন। অজি অধিনায়ককে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন তার সতীর্থ মিচেল স্টার্ক। মঙ্গলবার সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে বিশ্বকাপ ট্রাফি প্রর্দশনের সময় এক সাক্ষাৎকারে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

স্টার্ক বলেন, একজন অস্টেলিয়ান অধিনায়কের জন্য এই বছরটা সোনালী বছর। মাত্র কয়েক মাসের ব্যবধানে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ, অ্যাশেজ ধরে রাখা এবং বিশ্বকাপ শিরোপা জেতা অবিশ্বাস্য। সে তার যোগ্য নেতৃত্বের মাঠে দলকে এসব অর্জন করতে সাহায্য করেছে।

তিনি বলেন, বিশ্বকাপে আমরা যখন প্রথম দুই ম্যাচ হেরে ব্যাকফুটে চলে যায়। তখন কামিন্সকে অনেক সমালোচনার শিকার হতে হয়েছে। যার মাত্রাটা ছিলো অনেক বেশি, যা কখনো কম্য নয়। সব কিছুর একটা সীমাবদ্ধতা থাকা উচিত। কিন্তু সব কিছু সামাল দিয়ে পুরো দলকে উৎসাহিত করাটা অসাধারণ ছিলো। 

শুধু অধিনায়কত্ব নয়, দলের প্রয়োজনে বল হাতে দলকে সাফল্য এনে দিয়েছে। শ্রীলঙ্কা ম্যাচে কুশাল প্যারেরা যখন সাফল্যের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলো তাকে থামিয়ে দেওয়া এবং ফাইনালে বিরাট কোহলিকে আউট করে সকল ভারতীয়দের চুপ করিয়ে দেওয়া। এই মুহূর্ত গুলো কখনো ভুল হবে না। কামিন্সের এই অর্জন গুলোই আমাদরে চ্যাম্পিয়ন হতে সাহায্য করেছে।

তিনি আরো বলেন, আমি, কামিন্স এবং হ্যাজেলউড এক সঙ্গে অনেক দিন ধরেই খেলছি। আমি বা জস যখন বোলিং করতাম তখন সে আমাদের সবসময় পরামর্শ দিতো। আমরা তা বাস্তবায়নের করার চেষ্টা করেছি। সব থেকে বড় কথা ফাইনাল ম্যাচে তার (কামিন্স) কিছু সিদ্ধান্ত ছিলো চমৎকার। আমরা তিনজনই বোলিংয়ে নিজেদের দায়িত্বটা সঠিক ভাবে পালন করার চেষ্টা করেছি। অধিনায়ককে কিভাবে সাহায্য করা যায় এগুলো নিয়ে আলোচনা করেছি। যার ফল আমরা পেয়েছি, বিশ^কাপ নিয়ে দেশের ফিরতে পেরেছি। সম্পাদনা: তারিক আল বান্না

এসআর/এসএ 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়