শিরোনাম
◈ গাজায় যুদ্ধবিরতি হলেও হিজবুল্লাহর বিরুদ্ধে হামলা বন্ধ হবে না:ইসরায়েল ◈ চার মাসের মধ্যেই প্রাথমিকে ১০ হাজার শিক্ষক নিয়োগ ◈ পিলখানা হত্যাকাণ্ডের দিবসটির গুরুত্ব বাড়াতে সরকার কার্যকর উদ্যোগ নেবেন, আশা জি এম কাদেরের ◈ সরকার সংবাদপত্রের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করে না: আইনমন্ত্রী ◈ ফিলিস্তিনের বিপক্ষে অপতথ্য ছড়ানো প্রতিরোধে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতে হবে: তথ্য প্রতিমন্ত্রী ◈ বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির তদন্ত প্রতিবেদন পেছাল ◈ গাজায় যুদ্ধ নয়, গণহত্যা চলছে ইসরায়েল: লুলা দা সিলভা ◈ গ্রামীণ টেলিকমসহ তার প্রতিষ্ঠানগুলোর লভ্যাংশ কাউকে দেয়া যায় না: ড. ইউনূস   ◈ মুখ খুলে মানুষ গণতন্ত্রের কথা বলতে পারছে না: ড. ইউনূস  ◈ স্বাস্থ্যসেবা বিকেন্দ্রীকরণ শুরু হয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত : ৩০ জানুয়ারী, ২০২৩, ০৮:১২ রাত
আপডেট : ৩০ জানুয়ারী, ২০২৩, ০৮:১২ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

সরকার বিরোধী দলের পরিবর্তে অন্যায় অবিচার লইয়া কথা বলা বুদ্ধিজীবী পাখি উপহার দিয়া রাখছে

ব্রাত্য রাইসু

ব্রাত্য রাইসু, ফেসবুক থেকে: অন্যায় অবিচার নিয়া কথা বলার দায় কার, বিরোধী দল না বুদ্ধিজীবীর? অন্যায় অবিচার নিয়া কথা বলার দায় বা কাজ কোনোটাই বুদ্ধিজীবীর না। এই কাজ বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির। এই যে জনসাধারণগুলি বিরোধী দল বিরোধী হইয়া উঠল, এবং বিরোধী দলের দায়িত্ব বা কর্তব্য বুদ্ধিজীবীদের কান্ধে পাচার কইরা দিল এর কারণ কী? আলোচনার স্বার্থে ধরেন দেশে সক্রিয় বিরোধী দল আছে, এবং তারা যেহেতু বিরোধী দল, সুতরাং অন্যায় অবিচার নিয়া কথা বলতেছে খুব! এবং তাদের সঙ্গে গলা মিলাইয়া বুদ্ধিজীবীরাও অন্যায় অবিচার নিয়াই কথা বলতেছে।

কী হইতেছে তাইলে? একটা বেশ কোরাস হইতেছে! এই যদি হয় বুদ্ধিজীবীদের অবস্থা তাইলে বিরোধী দল না বইলা তাদেরকে বুদ্ধিজীবী বলবেন কী সেই বিশেষ কারণে?
যেই কথা বিরোধী দলের রাজনৈতিক কর্মীরা উঠতে বসতে দুইবেলা দরকারে মিছিল কইরা বলতে পারতো তাদের না থাকার বা অল্প থাকার সুযোগে এখন আপনি চান বুদ্ধিজীবীরা সেই দায়িত্ব পালন করুক। আপনার চাহিদার সরল অর্থ: দেশে বিরোধী দল না থাকুক! এবং তা নাইও।

সরকার আপনাদেরকে বিরোধী দলের পরিবর্তে অন্যায় অবিচার লইয়া কথা বলা বুদ্ধিজীবী পাখি উপহার দিয়া রাখছে। তাতে এক ঢিলে দুই কাজ সারতে পারতেছে গভমেন্ট। দেশে যে বিরোধী দল নাই তা আপনারা টেরও পাইতেছেন না বুদ্ধিজীবীদের প্রক্সি বিরোধী দল করার কারণে। আবার বুদ্ধিজীবীদের কাজ যেহেতু বুদ্ধিজীবীরা করতেই পারতেছে না, সুতরাং কীভাবে বিরোধী দল গইড়া উঠবে তারও কোনো আকাক্সক্ষা বা নিশানা তৈরি করতে দিতেছে না সরকার ও সরকারের চতুর পরামর্শকরা। বুদ্ধিজীবীরা জনসাধারণের মতোই সরকারের ঘুঁটি হিসাবে দায় পালন চালাইয়া যাইতেছে।

তাদের পাতে একের পর এক প্রবলেম দিতেছে সরকার, আর তারা সরকাররে একই রকম দোষ দিয়া যাইতেছে। সব প্রবলেমে সমাধান যেহেতু দোষ দেওয়াই তাই এর কার্যকারিতাও আর থাকতেছে না।

এইভাবে সরকারী জনসাধারণ হিসাবে বুদ্ধিজীবীদের হাতে দেশের পৌর দায়িত্ব অর্পণ কইরা আপনারা সরকারের সহযোগী হিসাবে সগৌরবে দেশসেবা কইরা যাইতে পারতেছেন।

খারাপ না। আপনাদের ও আপনাদের বুদ্ধিজীবীদের কাণ্ডজ্ঞান তৈরি হউক, এই দোয়া করি।

বিআর/এসবি২

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়