শিরোনাম
◈ মার্কিন পাইলটের মৃত্যু, ইউনাইটেড হাসপাতালের অবহেলাকে দায়ী করেছেন বোন  ◈ ২ ফেব্রুয়ারি দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রেলের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী  ◈ দৈনিক সমকাল পত্রিকার বিরুদ্ধে প্রেস কাউন্সিলে ঢাকা ওয়াসার মামলা ◈ সরকার ইসলামের বিরুদ্ধে কিছু করেনি, করবেও না: শিক্ষামন্ত্রী ◈ পেশোয়ারের মসজিদে শক্তিশালী বিস্ফোরণে নিহত ২৮, আহত ১৫০ ◈ জমজমের পানি বিক্রি বন্ধের নির্দেশ ভোক্তা অধিদপ্তরের ◈ ডান্ডাবেড়ি পরানো নিয়ে নীতিমালা প্রণয়নে হাইকোর্টের রুল ◈ চৌগাছার সাবেক পুলিশ কর্মকর্তার কারাদণ্ড ◈ অনির্বাচিত লোক দিয়ে কখনো দেশের উন্নতি হয় না:  প্রধানমন্ত্রী   ◈ ১১ উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত : ২৬ নভেম্বর, ২০২২, ০৯:১১ রাত
আপডেট : ২৭ নভেম্বর, ২০২২, ০৪:৩৯ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

ফায়ার সেফটি ছাড়া কোন ভবন অনুমোদন নয়: প্রতিমন্ত্রী

ডা. এনামুর রহমান

মনজুর এ আজিজ : দুর্যোগ ও দান প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান বলেছেন, ফায়ার সেফটি ছাড়া কোন ভবন নির্মাণ করা হলে তা ব্যবহারের অনুমোদন দেওয়া হবে না। এখন থেকে যে ভবনগুলো হবে সেগুলোতে ফায়ার সেফটি না থাকলে সেই ভবন ব্যবহারের অনুমতি দেবে না রাজউক বা সিটি কর্পোরেশন।

শুক্রবার (২৫ নভেম্বর) রাতে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) ইলেকট্রনিক্স সেফটি এন্ড সিকিউরিটি এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ইসাব) আয়োজিত ৮ম আন্তর্জাতিক ফায়ার, সেফটি এন্ড সিকিউরিটি এক্সপো ২০২২ এর সেফটি এক্সিলেন্ট অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে  এসব কথা বলেন তিনি।

দুর্যোগ ও ত্রান প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশের কোম্পানিগুলো ফায়ার সেফটি ও কমপ্লায়েন্স মেনে চলায় বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় এগিয়ে রয়েছে। বিশ্বের ১০ টি গ্রিন কারখানার আটটি এখন বাংলাদেশে অবস্থিত। ফলে বাংলাদেশের পণ্যের চাহিদা বেড়েছে, উৎপাদন বেড়েছে এবং আমরা বেশি রপ্তানি করতে পারছি। 

তিনি বলেন, ফায়ার সেফটি পণ্য বেশিরভাগই দেশের বাইরে থেকে আমদানি করা হচ্ছে। আমরা আমদানি নির্ভর থাকতে চাই না। দেশে একশটি ইকোনমিক জোন হচ্ছে সেখানেই ফায়ার সেফটি পণ্য উৎপাদন করা যেতে পারে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

এনামুর রহমান বলেন, দেশের ৩২টি উপজেলায় নতুন করে ফায়ার সার্ভিসের ডিপো স্থাপন করা হয়েছে এটা দেশের বড় অর্জন। আমাদের সবকিছুতেই অর্জন আছে, এ অর্জন আরো বাড়াতে হবে। বাণিজ্য  ও শিল্পের জন্য এসব যন্ত্রপাতি খুবই প্রয়োজন সরকারের। 

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এফবিসিসিআই’র সহ-সভাপতি মো. আমিন হেলালী জানান, ফায়ার সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি এর প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে এফবিসিসিআই সেফটি কাউন্সিল গঠন করার মাধ্যমে ইনডোর-আউটডোর প্রশিক্ষণ প্রদানের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। ভবিষ্যতে নিজস্ব ডেটা কমপ্লায়েন্স ও ফ্যাক্টরি সম্পর্কে তথ্য উপাত্ত সংগ্রহপূর্বক বাসা-বাড়ি ও ছোট ইন্ডাস্ট্রির জন্য ফায়ার সার্ভিস প্যাকেজ সৃষ্টি করে সকলের নিকট পৌঁছানোর আহ্বান জানান তিনি। এছাড়া ফায়ার সেফটি পণ্যে আমদানি নির্ভরতা থেকে বেরিয়ে এসে বাংলাদেশ ইকোনমিক জোনে আন্তর্জাতিক মানের পণ্য উৎপাদনের বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে ইলেক্ট্রনিক্স সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ইসাব) অগ্নি নিরাপত্তা সঠিকভাবে বজায় রাখার জন্য নয়টি কোম্পানিকে পুরস্কৃত করেছে। এছাড়া চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডু বিএম কনটেইনার ডিপোতে আগুন ও বিস্ফোরণ মোকাবেলায় একক অগ্নিকাণ্ডে নিহত ফায়ার ফাইটারদের পরিবারের সদস্যদের মধ্যে ১৩টি ক্রেস্ট বিতরণ করেছে। অনুষ্ঠানে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মোঃ এনামুর রহমান তাদের মধ্যে ক্রেস্ট তুলে দেন।  

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের পরিচালক (প্রশিক্ষণ, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) লেফটেন্যান্ট কর্নেল রেজাউল করিম, ইএসএসএবি সভাপতি জহির উদ্দিন বাবর, সিনিয়র সহ-সভাপতি নিয়াজ আলী চিশতি, মহাসচিব মাহমুদুর রশীদ, প্রচার সম্পাদক নজরুল, ইসলাম প্রমুখ। সম্পাদনা: খালিদ আহমেদ

এমএএ/এএ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়