শিরোনাম
◈ রাজধানীর বেইলি রোডের আগুন নিয়ন্ত্রণে ◈ বেইলি রোডে আগুন: ১২ জন ঢামেকে চিকিৎসাধীন ◈ রাজধানীর বেইলি রোডে আগুন: আটকাপড়াদের উদ্ধার করছে ফায়ার সার্ভিস ◈ ভারত- বাংলাদেশের সম্পর্কের শেকড় অনেক গভীরে:কোলকাতায় নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী ◈ ১৫৭ বিদেশি বন্দিকে নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠাতে হাইকোর্টের নির্দেশ ◈ শুক্রবার কমছে সয়াবিন তেলের দাম ◈ বঙ্গবন্ধু জাতিসংঘেরও ১৫ বছর আগে শিশু আইন প্রণয়ন করেন: আইনমন্ত্রী  ◈ বিপিএলের ফাইনাল ম্যাচের সময় চূড়ান্ত করলো বিসিবি ◈ সাবেক স্বামীর দেওয়া আগুনে দগ্ধ চিকিৎসক লতা মারা গেছেন ◈ সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে ঔষুধ ও চিকিৎসা সামগ্রী প্রদানের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত : ১১ নভেম্বর, ২০২৩, ০৯:২৬ সকাল
আপডেট : ১১ নভেম্বর, ২০২৩, ০৫:৫৯ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

৪০ দিন জামাতে নামাজ আদায়ে বাইসাইকেল পুরস্কার পেলো শিশুরা

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি: [২] নামাজ বলতে আমরা আল্লাহর উদ্দেশে নিজেদের সমর্পণকে বুঝি। প্রত্যেক মুসলমানের জন্য দিনে ৫ ওয়াক্ত নামাজ পড়া ফরজ বা অবশ্যকর্তব্য। নামাজ এমন এক ইবাদত যা সারা বছর দৈনিক পাঁচবার আদায় করতে হয়। মৃত্যু ছাড়া আর কোনো অবস্থাতেই নামাজ মাফ হয় না। এমনকি মৃত্যুশয্যায় স্বাভাবিক জ্ঞান থাকা অবস্থায় নামাজ থেকে বিরত থাকার কোনো বিধান নেই। তাই শিশু-কিশোরদের নামাজের প্রতি আকৃষ্ট করে মসজিদমুখী করার লক্ষ্যে এ আয়োজিত করা হয়।

[৩] শহরের আদি টাঙ্গাইল এলাকার বায়তুল আমান জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মুফতি মোহাম্মদ ইসমাইল হোসাইনের উদ্যোগে মসজিদের পরিচালনা কমিটি শুক্রবার (১০ নভেম্বর) এ পুরস্কার শিশুদের প্রদান করেন।

[৪] জানা গেছে, কয়েকদিন আগে মসজিদের ইমাম ঘোষণা দিয়েছিলেন ১৫ বছরের কম বয়সের কিশোররা যদি একটানা ৪০ দিন ৫ ওয়াক্ত নামাজ জামাতের সঙ্গে আদায় করে, তাহলে তাদের একটি করে বাইসাইকেল পুরস্কার দেওয়া হবে।

[৬] শিশু-কিশোরদের নামাজের প্রতি আকৃষ্ট করে মসজিদমুখী করার লক্ষ্যে আয়োজিত এমন উদ্যোগ সামাজিত যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছে। আদি টাঙ্গাইল বায়তুল আমান জামে মসজিদের উদ্যোগে এ আয়োজনকে এলাকার সবাই স্বাগত জানিয়েছেন।

[৭] ইমাম সাহেব বলেন, নামাজের প্রতি আগ্রহ এবং নামাজ শুদ্ধ করে শিখতে পারে কিশোররা সেই উদ্দেশ্যেই জামাতের সঙ্গে নামাজ পড়ার ঘোষণা দেওয়া। ঘোষণার পর থেকে প্রায় ৭০ জন কিশোর মসজিদে নিয়মিত পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ জামাতের সঙ্গে আদায় করা শুরু করে। তারা ঠিকমতো নামাজ আদায় করছে কিনা হিসাব রাখার জন্য প্রতি ওয়াক্ত নামাজের পর হাজিরা নেয়া হতো। যদি কেউ কোনো ওয়াক্তে অনুপস্থিত থাকতো তখন তার গণনা বন্ধ করে দেয়া হতো।

[৮] তিনি আরো বলেন, প্রতিযোগিতা চলাকালীন তাদের শুধু নামাজই পড়ানো হয়নি। বরং সঠিকভাবে নামাজ শিক্ষা ও নামাজ সম্পর্কে জরুরি মাসয়ালাও শেখানো হয়, নামাজের প্রতি মানুষকে আহ্বানের পাশাপাশি দ্বীনি ইসলাম সম্পর্কে শিক্ষা দেওয়া হয়েছে। নামাজে অংশ নেয়া কিশোররা জানায়, শুধুমাত্র পুরস্কারের জন্য নয়, বরং মহান আল্লাহকে সন্তষ্ট করতেই নামাজ আদায় করেছে তারা। তবে পুরস্কারের ঘোষণা দেওয়ায় নামাজের প্রতি আগ্রহ আরো বেড়ে যায়।

[৯] শিশু-কিশোরদের মাঝে বাইসাইকেল তুলে দেওয়ার সময় বায়তুল আমান (ছাপড়া মসজিদ) পরিচালনা কমিটির সভাপতি মাওলানা মো. মোসলেম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন, কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ ইছহাক উদ্দিন, কার্যকরী কমিটির সদস্য মুয়াজ্জিন হাফেজ মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন, মাসুম মিয়া, আনিসুর রহমান, খন্দকার আবিদ হোসেন ইমন, আবুল হাসান সাজলী, জাহাঙ্গীর আলম ও মতিউর রহমান উপস্থিত ছিলেন। সম্পাদনা: ইস্রাফিল ফকির

প্রতিনিধি/আইএফ/এইচএ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়