শিরোনাম
◈ ইসরায়েলি হত্যাযজ্ঞে চুপ থেকে বিএনপি-জামায়াত গাজায় গণহত্যার পক্ষে অবস্থান নিয়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ বঙ্গবন্ধু জাতিসংঘেরও ১৫ বছর আগে শিশু আইন প্রণয়ন করেন: আইনমন্ত্রী  ◈ বিপিএলের ফাইনাল ম্যাচের সময় চূড়ান্ত করলো বিসিবি ◈ সাবেক স্বামীর দেওয়া আগুনে দগ্ধ চিকিৎসক লতা মারা গেছেন ◈ সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে ঔষধ-পত্র ও চিকিৎসা সামগ্রী প্রদানের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ◈ বিদ্যুতের দাম বাড়ছে ৮.৫০ শতাংশ, ফেব্রুয়ারিতেই কার্যকর ◈ ২ দিনের রিমান্ড শেষে ভিকারুননিসার শিক্ষক মুরাদ কারাগারে ◈ বর্তমানে মত প্রকাশের স্বাধীনতার ছিটেফোটাও নেই: রিজভী ◈ রমজানে আল-আকসা খোলা রাখতে ইসরায়েলের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের আহ্বান ◈ ৪২৪ কোটি টাকার তেল-ডাল-গম কিনছে সরকার

প্রকাশিত : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ০১:০৪ দুপুর
আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১১:৩৩ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

কেন নওয়াজ শরিফ ইমরানের চেয়ে পিছিয়ে : আল-জাজিরার বিশ্লেষণ

নওয়াজ শরিফ ও ইমরান খান

সাজ্জাদুল ইসলাম : [২] বৃহস্পতিবার পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। গত শুক্রবার রাতে লাহোরে দলের সদর দপ্তরের বারান্দায় এলেন পাকিস্তানের তিনবারের এই প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। তখনও নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা সম্পন্ন হয়নি। নওয়াজ বারান্দায় পা ফেলার সঙ্গে সঙ্গে শুরু হলো আতশবাজি ফোটানোর উৎসব। তাকে স্বাগত জানাতে সেখানে সেদিন সমবেত হয়েছিলেন তার প্রায় দেড় হাজার সমর্থক। 

[৩] নওয়াজ কথা শুরু করেন সাম্প্রতিক সময়ে জনসমাবেশে তার বক্তৃতার পরিচিত ধরণের। শুরুতেই পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) সমর্থকদের উদ্দেশে দলটির সর্বোচ্চ নেতা বলেন, ‘তোমরা কি আমাকে ভালোবাসো?’ তখন সমস্বরে জবাব এল, ‘হ্যা, আমরা আপনাকে ভালোবাসি।’ নওয়াজের প্রতি তার সমর্থকদের এমন অকুণ্ঠ সমর্থনের সঙ্গে ২৪ কোটি মানুষের দেশ পাকিস্তান যে একাত্ম বোধ করে, নির্বাচনের ফলাফলে তার প্রমাণ  তেমন একটা মেলেনি। দেশটির ভোটারদের ভোট দেওয়ার ধরণ নির্বাচনী বিশ্লেষকদেরকেও বিস্মিত করেছে।

[৪] পাকিস্তানের জাতীয় নির্বাচনের এক মাস আগেও বিশেষজ্ঞরা বলছিলেন, নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়েই পিএমএল-এন ক্ষমতায় আসছে। এতে চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হওয়ার সুযোগ পাবেন ৭৪ বছর বয়সী বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ নওয়াজ শরিফ। এর বড় কারণ, একসময় পাকিস্তানে ক্ষমতাধর সেনাবাহিনীর চক্ষুশূলে পরিণত হওয়া নওয়াজ এবারের নির্বাচনে ছিলেন জেনারেলদের ‘আশীর্বাদপুষ্ট’।

[৫] নওয়াজ ও তার দলও জয়ের ব্যাপারে এতটাই আত্মবিশ্বাসী ছিল যে ভোট গ্রহণ শেষ হওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই গত বৃহস্পতিবার রাতে আগে থেকে প্রস্তুত করা ‘বিজয় ভাষণ’ দিয়ে দেন তিনি। এরপর ভোটের ফল আসতে থাকলে ‘পাশার দান’ উল্টে যেতে থাকে। নির্বাচন বিশেষজ্ঞ ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক মাজিদ নিজামি বলছেন, ‘ভোটের ফলাফলে দলগুলোর অবস্থান স্পষ্ট হতে থাকলে তা পিএমএল-এনকে বিস্মিত ও হতভম্ব করে। পিএমএল-এন যে ফল প্রত্যাশা করেছিল, তা পায়নি দলটি।’ নওয়াজের পিএমএল-এনের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত প্রায় অর্ধেক আসনে জয়ী হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা, যারা সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) সমর্থন নিয়ে নির্বাচনে লড়েছেন। জাতীয় পরিষদে ৭৫ আসন পাওয়া পিএমএল-এন পিটিআইয়ের স্বতন্ত্রদের চেয়ে ২০ আসন পিছিয়ে আছে।

[৬] বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সাম্প্রতিক কয়েক মাসে পিটিআইকে ব্যাপক রাজনৈতিক ও আইনি হেনস্তার মুখে পড়তে হয়। দলটির সিনিয়র নেতারা গ্রেপ্তার হন। অনেকে দৃশ্যত দল ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন। এমনকি দলীয় প্রতীক ‘ক্রিকেট ব্যাট’ও ব্যবহার করতে পারেনি পিটিআই। তাই তাদের প্রার্থীরা লড়েছেন স্বতন্ত্র হয়ে। তবে পিটিআই একমাত্র দল নয়, যারা এমন দমন–পীড়নের মুখোমুখি হয়েছে। রাজনৈতিক বিশ্লেষক সালমান গনি বলেন, এই দমনপীড়নের পেছনে সামরিক বাহিনী ও পিএমএল-এন ছিল বলে মনে করেন সাধারণ পাকিস্তানিরা। এই দুই পক্ষই ইমরান খানের জনপ্রিয়তাকে খাটো করে দেখে ভুল করেছিল।

[৭] সালমান গনি বলেন, ‘যখন একজন ব্যক্তি নিপীড়িত হন, তখন তার জনপ্রিয়তা ব্যাপকভাবে বেড়ে যায়। আমরা নওয়াজের ক্ষেত্রেও বিষয়টি দেখেছি। যখন কারও পিঠ দেয়ালে ঠেকে যায়, তখন সে পাল্টা জবাব দিতে মরিয়া চেষ্টা চালায়। পিএমএল-এন তা বুঝতে পারেনি।’ এ বিষয়ে একমত রাজনৈতিক বিশ্লেষক বদর আলমও। তিনি বলেন, ‘এমনকি একবারের জন্যও পিটিআইয়ের ওপর সহিংসতা ও নিপীড়নের নিন্দা করেনি পিএমএল-এন। প্রকৃতপক্ষে পিটিআইকে সম্পূর্ণভাবে বশে আনার ভূমিকা নিয়েছিল তারা। এটি পিএমএল-এনকে নিপীড়কের কাতারে দাঁড় করিয়েছে। এতে তাদের প্রতি জনগণ ক্ষুব্ধ হয়েছিল।’ সম্পাদনা: রাশিদ 

 

এসআই/ এমটি

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়