শিরোনাম
◈ শান্তি-শৃঙ্খলা ফেরাতে আইনশৃঙ্খলা  বাহিনীকে কঠোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ◈ সরকার আলোচনার কোনো পরিস্থিতি রাখেনি, কর্মসূচী অব্যাহত রাখার ঘোষণা: বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন ◈ বিটিভিতে হামলা-আগুন, সম্প্রচার বন্ধ ◈ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ◈ আমরা ধৈর্যের পরীক্ষা দিচ্ছি, এটা দুর্বলতা নয়: ডিবিপ্রধান ◈ নরসিংদীতে গুলিতে নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থীর মৃত্যু, আহত শতাধিক ◈ চট্টগ্রামে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ ২ ◈ নেত্রকোনায় ইউএনও, অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ আহত অর্ধশত, ৭ আন্দোলনকারী গুলিবিদ্ধ ◈ শান্তিপূর্ণ সমাধানের দিকে এগোতে চায় সরকার: তথ্য প্রতিমন্ত্রী ◈ শিক্ষার্থীদের পরিবর্তে বিএনপি-জামাত আগুন-সন্ত্রাস নিয়ে মাঠে নেমেছে: ওবায়দুল কাদের   

প্রকাশিত : ২১ মার্চ, ২০২৩, ১২:৪৬ দুপুর
আপডেট : ২২ মার্চ, ২০২৩, ০১:১৬ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

শ্রীলংকাকে ২৯০ কোটি ডলার ঋণ মঞ্জুর আইএমএফের

শ্রীলংকায় সংকটোত্তরণ ঋণ মঞ্জুর

সাজ্জাদুল ইসলাম: আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) শ্রীলংকার অনুরোধে ২৯০ কোটি ডলারের সংকটোত্তরণ ঋণ মঞ্জুর করেছে। শ্রীলংকার প্রসেডিন্টে রনলি বক্রিমাসিংহে একথা জানান। এতে দেশটির মারাত্মক অর্থনৈতিক সংঘট লাঘব হওয়ার আশা সঞ্চারিত হয়েছে। আলজাজিরা, টিআটি ওয়ার্ল্ড

আইএমএফের নির্বাহী বোর্ড গত সোমবার (২০ মার্চ) নিশ্চিত করে যে, তারা এ ব্যাপারে একটি ঋণ চুক্তি স্বাক্ষর করেছে তারা। এতে এ তহবিল ছাড় করার পথ পরিস্কার হবে এবং দেশটির অর্থনীতিকে চাঙা করার লক্ষ্যে ৪ বছরের কর্মসূচী শুরু হবে। 

তবে আইএমএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভা সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, শ্রীলংকাকে অবশ্যই কর সংস্কার ও গরীব জনগণের বৃহত্তর সামাজিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা অনুসরণ এবং দুর্নীতি দমন করতে হবে। এ দুর্নীতিই বর্তমান সংকটের একটি প্রধান কারণ।

প্রেসিডেন্ট বিক্রমসিংহে এক বিবৃতিতে বলেন, ‘আমাদের প্রতি সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য আমি আইএমএফ ও আমাদের আন্তর্জাতিক শরিকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। দক্ষ আর্থিক ব্যবস্থাপনা ও উচ্চাভিলাষী সংস্কার কর্মসূচীর মাধ্যমে আমরা দীর্ঘ মেয়াদে আমাদের অর্থনীতিকে আবার সঠিক পথে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছি।’ 

২০২২ সালের এপ্রিলে বৈদিশক মুদ্রার মজুদ পড়ে যাওয়ায শ্রীলংকা স্বাধীনতার পরে সবচাইতে মারাত্মক অর্থনৈতিক সংকটে পড়ে। এসময় দেশটি বিদেশীর ঋণ পরিশোধে অসমর্থ হয়। 

ভারত মহাসাগরের দ্বীপ দেশটির জনসংখ্যা ২ কোটি ২০ লাখ। এ সময় অর্থের অভাবে শ্রীলংকা অত্যাবশ্যকীঢ পণ্য আমদানি করতে ব্যর্থ হয়। খাদ্য, জ্বালানী ও ওষুধের তীব্র অভাব দেখা দেয়। ফলে দেশটিতে ব্যাপক বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। ব্যাপক মুদ্রস্ফিতির মুখে প্রেসিডেন্ট গোতাবাইয়া রাজাপাকশে দেশ থেকে পালিয়ে যান। পরে জুলাই মাসে তিনি পদত্যাগ করেন।

তার স্থলে বিক্রমসিংহে প্রেসিডেন্ট হন। আইএমএফের ঋণ পেতে তিনি ব্যয় কমানোর ও কর বাড়ানোর কঠোর পদক্ষেপ নেন।

আইএমএফের কর্মকর্তারা বলেন, গত সেপ্টেম্বরে সংকটোত্তরণ বা বেইলআউট ঋণ অনুমোদন করেন কিন্তু দেশটির সবচ্ইাতে বড় দ্বিপক্ষীয় ঋণদাতা দেশ চীন তার চূড়ান্ত অনুমোদন ঠেকিয়ে দেয়। বেইজিংয়ের সঙ্গে কলম্বোর ঋণ পরিশোধ পুণনির্ধারণে মতৈক্য না পৌঁছানো পর্যন্তু তা স্থগিত থাকে। তবে চলতি বছর চীন শ্রীলংকা ঋণ পরিশোধ দু’বছরের জন্য স্থগিত রাখতে সম্মত হয়। তবে এতে শ্রীলংকার ঋণ অবস্থার স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে আইএমএফের প্রত্যাশা পূরণ হয়নি। 

বৈদেশিক ঋণ শোধে ১০ বছর সময় চায় কলম্বো: 
এদিকে প্রেসিডেন্ট বিক্রমাসিংহে সোমবার বলেন,  শ্রীলঙ্কা তার বকেয়া বিদেশি ঋণ পরিশোধের জন্য ১০ বছর সময় সময় চান। ১৯৪৮ সালে ব্রিটেনের ঔপনিবেশিক শাসন থেকে স্বাধীনতালাভের পর সবচেয়ে ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকটে পড়ে দেশটি গত বছর। 

সোমবার রাজধানী কলম্বোয় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের আয়োজিত এক সভায় বিক্রমাসিংহে বলেন, ‘আমরা চলতি বছর থেকেই বিদেশি ঋণ পরিশোধ করা শুরু করছি। আশা করছি, আগামী ১০ বছরের মধ্যে সম্পূর্ণ ঋণ আমরা পরিশোধ করতে পারব।’

বর্তমানে শ্রীলঙ্কার বকেয়া বিদেশি ঋণের পরিমাণ ৪ হাজার ৬০০ কোটি টাকা।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়