শিরোনাম
◈ দেশের কারাগারে আটক ৩৬৩ জন বিদেশি নাগরিক, ভারতীয় ২১২ ◈ দেশের যেসব অঞ্চলে ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ের আশঙ্কা ◈  সরকার থেকে বরাদ্দ করলে সংসদ সদস্যদের গাড়ি আমদানির প্রয়োজন নেই: সংসদে আলোচনা ◈ ঈদে যানজট এড়াতে ডিএমপির ২২ নির্দেশনা ◈ নেপিয়ার ঘাস খেয়ে মারা গেলো খামারের ২৬ গরু ◈ এমপি আনার হত্যা তদন্তে কোনো চাপ নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ তারেক রহমানসহ পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে: সংসদে প্রধানমন্ত্রী ◈ সাধারণ নাগরিকের মতো করেই ড. ইউনূসের বিচার হচ্ছে: আইনমন্ত্রী ◈ ড. ইউনূসের কথা অসত্য, জনগণের জন্য অপমানজনক: আইনমন্ত্রী ◈ সরকারের ব্যাংকঋণে বেসরকারিখাতে বিনিয়োগ ব্যাহত হবে: সিপিডি

প্রকাশিত : ০১ এপ্রিল, ২০২৪, ০৮:৫০ রাত
আপডেট : ০২ এপ্রিল, ২০২৪, ০২:১১ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

আকাশচুম্বি দাম দিয়ে পোশাক কিনছেন গুলশান-বনানীর ক্রেতারা

শিমুল চৌধুরী ধ্রুব: [২] আর কয়েকদিন পরই উদযাপিত হবে মুসলমানদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল-ফিতর। ৯২ ভাগ মুসলমানের দেশে ঈদকে কেন্দ্র করে রাজধানীর মার্কেটগুলো ক্রেতা-বিক্রেতার পদচারণায় মুখর হয়ে উঠেছে। সোমবার সরেজমিনে রাজধানীর অভিজাত পাড়া হিসেবেখ্যাত গুলশান ও বনানী ঘুরে দেখা গেছে এমন চিত্র। উৎসবের আমেজে এসব এলাকাতেও মধ্যরাত পর্যন্ত চলছে কেনাকাটা। 

[৩] বিভিন্ন বিপনি বিতান ঘুরে দেখা গেছে, ঈদকে সামনে রেখে বিদেশি পোশাকের কালেকশনই বেশি। আবার গরমের কথা মাথায় রেখে ওঠানো হয়েছে সুতি কাপড়ও। মেয়েদের পোশাকের ক্ষেত্রে ক্রেতা চাহিদার শীর্ষে রয়েছে ভারতীয় শারারা, গারারা অথবা পাকিস্তানি ওয়ান পিস। মানভেদে একেকটি ড্রেস বিক্রি হচ্ছে ৫০ হাজার থেকে দেড় লাখ টাকায়ও। 

[৪] গুলশানের একটি বিপনি বিতান ‘ভাসাবি ফ্যাশন’। সেখানে দেখা গেছে নতুন পোশাকের বাহারি আয়োজন। তারা ঈদের বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে রেখেছে এক্সক্লুসিভ পোশাকের সমাহার এবং ব্রাইডাল কালেকশন। তাদেও সবই বিদেশি ব্র্যান্ডের পণ্য। পুরো আউটলেট জুড়ে থাইল্যান্ড, দুবাই, ইউরোপ ও আমেরিকার বিভিন্ন ব্র্যান্ডের সব ধরনের শার্ট, প্যান্ট, টি-শার্ট, পাঞ্জাবি, শেরোয়ানি, পাগড়ি, নাগড়া, শাড়িসহ নানান পোশাক। এছাড়া কলকাতা, মুম্বাই, বেনারস থেকে আমদানি করা বিভিন্ন ডিজাইনের শাড়ি, থ্রি-পিস ও লেহেঙ্গাও রয়েছে। তবে ভাসাবির সব পণ্যেও দামই আকাশছোয়া। জানা গেছে, এই আউটলেটে সর্বনিম্ন মূল্যের পোশাকের দামও পাঁচ হাজারের ওপরে।

[৫] দোকানটির এবারের বিশেষ কালেকশনের মধ্যে রাখা হয়েছে একটি পাঞ্জাবি। ভারতীয় ডিজাইানার মনোজ আগারওয়ালের ডিজাইন করা শেরোয়ানি স্টাইলের এই পাঞ্জাবির দাম ১ লাখ ৮৯ হাজার টাকা। প্রতিষ্ঠানটির সেকশন ইনচার্জ ফরিদ আহমেদ আমাদের নতুন সময়কে বলেন, ঈদের বেশ আগেই আমরা বোম্বে গিয়ে শাড়ি, পাঞ্জাবি, ড্রেসসহ সব ধরনের পোশাকের ডিজাইন পছন্দ করে অর্ডার দিয়ে আসি। পরে সেখান থেকে পুরো রেডিওয়্যার তারা পাঠায়। তিনি বলেন, অনেকেই ঈদে আনকমন ডিজাইনের কিছু পড়ব; ঈদের কেনাকাটা করতে তারা এখানে আসেন। বিত্তবানরাই এখানে আসেন; যারা ভাসাবি থেকে কেনেন তারা মাইন্ড সেট করেই আসেন এখান থেকেই পোশাক কিনবেন।’

[৬] গুলশান ২ নম্বরে গোলচত্বর এলাকায় পিংক সিটি শপিং কমপ্লেক্স ঘুরে দেখা গেছে, অনেক বেশি ভীর না থাকলেও ক্রেতাদের সমাগম রয়েছে আশানুরূপ। শাড়ি, পার্টি ড্রেসের দোকানগুলো প্রায় ভর্তি। তবে থ্রি-পিসের দোকানগুলোতে ক্রেতার সংখ্যা খুবই কম। এখানের দোকানিরা বলছেন, এখনো আশানুরুপ বেচাকেনা হয়নি। অন্যান্যবার এর থেকে অনেক বেশি ভিড় থাকে। এর কারণ হিসেবে ড্রেস ইন ঢাকা নামের দোকানের স্বত্বাধিকারী গিয়াস উদ্দিন বলেছেন, ‘মার্কেটটিতে জামা-কাপড়সহ সব ধরনের পণ্যের দাম অনেক বেশি। যা সাধারণ ক্রেতাদের নাগালের বাইরে। এছাড়া বিত্তবানদের অনেকে আগেভাগেই কেনাকাটা করে রাখেন। অনেকে আবার চাঁদ রাতে কেনাকাটা করতে পছন্দ করেন।’

[৭] এদিকে গুলশানের আলোকি কনভেনশন সেন্টারে শুরু হয়েছে ‘দ্য চাঁদ বাজার’ নামের ঈদের কেনা-বেচার মেলা। যা দুপুর ২টা থেকে ভোররাত ৪টা পর্যন্ত চলবে। এখানে একইসঙ্গে রয়েছে স্বনামধন্য সব ব্র্যান্ড থেকে শুরু করে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারাও। একই ছাদের নিচে পাওয়া যাচ্ছে গরজিয়াস সব ঈদের জামাকাপড়ের পাশাপাশি ক্যাজুয়াল ক্লথিং, জুতা, গয়না অ্যাক্সেসরিজ ছাড়াও লাইফস্টাইলের সব ক্যাটাগরি। এছাড়া ফ্যামিলি/ফ্রেন্ডস নিয়ে ইফতার আর সেহরি অ্যাডভেঞ্চার এক জায়গায় সেরে নেওয়া যাবে বিশাল এলাকাজুড়ে গড়া এই ফুড জোন ‘ফুড পার্কে’। দুই দিন ব্যাপ্তির এই মেলাতেও রয়েছে ব্যপক ভিড়। 

[৮] মেলায় ঈদের কেনাকাটা করতে এসেছিলেন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ফিরোজ খান। তিনি বললেন, পরিবার নিয়ে মেলায় এসেছি। অনেক ঘুওে মা, শাশুড়ি ও স্ত্রীর জন্য তিনটি শাড়ি কিনেছি। সঠিক দামে পছন্দের শাড়ি পেয়ে ভালো লাগছে। মার্কেটগুলোতে পোশাকের দাম প্রচুর। সম্পাদনা: সমর চক্রবর্তী

এসবি২

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়