শিরোনাম

প্রকাশিত : ২২ জানুয়ারী, ২০২২, ১১:০৮ দুপুর
আপডেট : ২২ জানুয়ারী, ২০২২, ১২:০৬ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

[১] শেরপুরে আধিপত্য নিয়ে সংঘর্ষের সংবাদ সংগ্রহ কালে সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসী হামলা

তপু সরকার: [২] শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলায় বিএডিসি ক্ষুদ্র সেচ প্রকল্পের দুটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের কাজের ভাগবাটোয়ারা নিয়ে দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এসয় সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে নালিতাবাড়ী উপজেলার প্রেসক্লাবের সভাপতি, সিনিয়র সাংবাদিক দৈনিক ইত্তেফাকের প্রতিনিধি সামেদুল ইসলাম তালুকদারের উপর হামলা চালিয়ে তার সাথে থাকা মোবাইল ও টাকা ছিনতাই এবং মারধর করা হয়েছে দুর্বৃত্তরা।

[৩] শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে কেন্দুয়াপাড়া আইলাখালীর পারে খাল খনন নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষের সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে তিনি এ হামলার শিকার হন বলে জানা যায়।

[৪] জানাগেছে, নালিতাবাড়ী শহরের বেপারীপাড়া মহল্লা থেকে কেন্দুয়াপাড়া হয়ে পুরনো আইলাখালী খাল সংস্কারের উদ্যোগ নেয় বিএডিসি। এ জন্য বিএডিসি ক্ষুদ্র সেচ প্রকল্পের আওতায় ঢাকাস্থ ফার্মগেট এলাকার মেসার্স পিয়াঙ্কা এন্টারপ্রাইজকে ২ হাজার মিটার ১৯ লাখ ৫৮ হাজার ৯৪০ টাকায় এবং শেরেবাংলা নগরস্থ মেসার্স মোহাম্মদ বিল্ডার্সকে ১ হাজার ৮’শ মিটার প্রায় ১৯ লাখ টাকায় ঠিকাদার হিসেবে নিযুক্ত করে।

[৫] সম্প্রতি তারা খাল সংস্কার করতে এসে মেয়র সমর্থিতদের বাঁধার সম্মুখিন হলে স্থানীয়ভাবে হাফিজুর রহমান খোকন, তাইবুর রহমান রুবেল ও মোহাম্মদ আলীকে প্রতিনিধি নিযুক্ত করে কাজের দায়িত্ব দেন।

[৬] এদিকে বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) রাতে নালিতাবাড়ী পৌর মেয়র আবু বক্কর সিদ্দিক তার লোকজন নিয়ে ওই খাল খননের উদ্যোগ নেন এবং স্কেভেটর লাগিয়ে দেন। বিষয়টি খাল খননের দায়িত্বে থাকা প্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্টরা জানার পর শুক্রবার নিজেরা স্কেভেটর নিয়ে খালের পারে যান।

[৭] এসময় নালিতাবাড়ী মেয়র সমর্থিত প্রায় দুই শতাধিক সশস্ত্র নেতাকর্মী ও ক্যাডার খাল খননে বৈধ পক্ষের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে হামলার চেষ্টা করে। অপরদিকে ঠিকাদারের নিযুক্ত প্রতিনিধিরাও মারমুখী অবস্থান নেয়। এসময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ খবর পেয়ে নালিতাবাড়ী প্রেসক্লাবের সভাপতি সামেদুল ইসলাম তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম মনির এবং স্বাধীন বাংলা নিউজ এর শাহাদত তালুকদারসহ একাধিক গণমাধ্যমকর্মী ঘটনাস্থলে যান। যাওয়া মাত্রই মেয়র সমর্থিত ক্যাডাররা সামেদুল ইসলাম তালুকদারের উপর হামলা করে মারধর শুরু করে এবং সাথে থাকা স্মার্ট ফোন ও টাকা ছিনিয়ে নেয়। পরে পুলিশ ও উপস্থিত অন্যদের সহায়তায় তিনি উদ্ধার হন।

[৮] এসময় খালের অপর প্রান্তে থাকা সাংবাদিক মনির ও শাহাদত তালুকদারকে লক্ষ্য করেও সশস্ত্র ক্যাডাররা হুমকী ছুঁড়তে থাকে। পরে তারা পুলিশের সহায়তায় ঘটনাস্থল থেকে বেরিয়ে আসেন। এ ঘটনায় সর্বমহলে নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় ওঠেছে।

[৯] নিন্দা প্রস্তাব এনেছে শেরপুর প্রেসক্লাব। শনিবার সভা আহ্বান করেছে নালিতাবাড়ীতে কর্মরত সাংবাদিকরা।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়