শিরোনাম
◈ গরিবের জন্য ইনসুলিন নিশ্চিত করতে সম্মিলিত প্রচেষ্টার ওপর গুরুত্বারোপ প্রধানমন্ত্রীর ◈ বিএনপি কিছু রাজনীতি শিখেছে আমাদের সাথে যৌথ আন্দোলন করে: প্রধানমন্ত্রী ◈ ব্যারিস্টার খোকনসহ ৩৪ জনের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা ◈ করোনার সময় ছাত্রলীগ নিঃস্বার্থভাবে কাজ করেছে : জয় ◈ আমাদের শক্তি জনগণ, পেটুয়া বাহিনী লাগে না: প্রধানমন্ত্রী ◈ কাল থেকে সারাদেশে সতর্ক পাহাড়ায় থাকবে আওয়ামী লীগ: কাদের ◈ ছাত্রলীগের সম্মেলন উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ◈ নারায়ণগঞ্জে জাপানিজ অর্থনৈতিক অঞ্চল উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ◈ গাইবান্ধা-৫ আসনের উপ-নির্বাচনে ভোট গ্রহণ ৪ জানুয়ারি ◈ দুর্নীতি মামলায় হাজি সেলিমকে জামিন দিয়েছেন আপিল বিভাগ

প্রকাশিত : ০২ ডিসেম্বর, ২০২১, ০২:৩৭ রাত
আপডেট : ০২ ডিসেম্বর, ২০২১, ০২:৩৮ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

রাত পোহালেই পরীক্ষা, প্রবেশপত্রের দাবিতে শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

নিউজ ডেস্ক: রংপুর সাহেবগঞ্জ টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিএম কলেজের শতাধিক শিক্ষার্থী এইচএসসি-সমমানের পরীক্ষার প্রবেশপত্র পায়নি। আর এ ঘটনায় সড়কে বিক্ষোভে নামে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) রাতে প্রবেশপত্রের দাবিতে সাহেবগঞ্জ-হারাগাছ সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে তারা। এদিকে এ ঘটনায় ওই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অধ্যক্ষসহ অন্যান্যরা গা ঢাকা দিয়েছেন। অধ্যক্ষসহ সংশ্লিষ্টদের খুঁজছে পুলিশ।

শিক্ষার্থীরা জানায়, সাহেবগঞ্জ বিএম কলেজের ২০২০-২১ শিক্ষা বর্ষের শিক্ষার্থীদের ২ ডিসেম্বর থেকে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু। প্রতিষ্ঠানের দেড় শতাধিক শিক্ষার্থী প্রত্যেকে তিন হাজার একশ টাকা করে পরীক্ষার যাবতীয় ফি জমা দেন। কলেজের অধ্যক্ষ আইনুল হক বেশ কয়েকদিন ধরে পরীক্ষার প্রবেশপত্র প্রদানের কথা বলে আসছিলেন। বুধবার দিনভর তাদের কলেজে বসিয়ে রাখেন তিনি। পরে সন্ধ্যা ৭ টার দিকে তিনি শিক্ষার্থীদের জানান, কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে তাদের কারোরই প্রবেশপত্র আসেনি। বোর্ডে কিছু সমস্যা হয়েছে সে কারণে তাদের বৃহস্পতিবার থেকে পরীক্ষা দেয়া সম্ভব হচ্ছে না।

এ ঘটনায় শিক্ষার্থীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। অবস্থা বেগতিক দেখে অধ্যক্ষ পালিয়ে যান। ঘটনার প্রতিবাদে এবং তাদের পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দানের দাবিতে শিক্ষার্থীরা কলেজের সামনে হরাগাছ সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করে। এক পর্যায়ে অভিভাবকরাও তাদের সাথে যোগ দেয়। শিক্ষার্থীরা অধ্যক্ষের বাসা ঘেরাও করে রাখে।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, অধ্যক্ষ প্রতারণা করে তাদের রেজিস্ট্রেশন আদৌ করিয়েছেন কিনা তাদের সন্দেহ হচ্ছে। সে কারণে প্রতারক অধ্যক্ষকে গ্রেফতার ও তাদের পরীক্ষা দেবার সুযোগ দেবার দাবি জানান।

হারাগাছ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শওকত হোসেন বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ রয়েছে। শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের শান্ত রাখার চেষ্টা করছি। ওই কলেজের অধ্যক্ষসহ কাউকে পাওয়া যাচ্ছে না। পুলিশ তাদের খুঁজছে। অধ্যক্ষকে পাওয়া গেলে বিস্তারিত জানা যাবে। - যমুনা নিউজ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়