প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] দাদন ব্যবসায়ীর কবল থেকে রক্ষা পেতে ভুক্তভোগী পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

রতন কুমার: [২] নীলফামারীর ডোমারে দাদন ব্যবসায়ী বাপ্পি রায়ের বিভিন্ন প্রতারনার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলণ করেছে ভুক্তভোগী চারটি পরিবার। বাপ্পি উপজেলার হরিণচড়া ইউনিয়নের হংসরাজ গ্রামের হিরাম্ভ রায়ের ছেলে।

[৩] রোববার(২১ নভেম্বর) দুপুরে তৈলক্ষ রায়ের নিজ বাড়ীতে সংবাদ সম্মেলণের আয়োজন করেন,উপজেলার শালমারা হাড়িপাড়া গ্রামের মনমোহন রায়ের ছেলে মনোরঞ্জন রায়, হংসরাজ গ্রামের নরেন রায়ের ছেলে জয়ন্ত রায় ও পাশ^বর্তী তরনীবাড়ী সিমান্তপাড়া গ্রামের মৃত মহেশ ঋষির ছেলে তপন ঋষি ও একই গ্রামের রমেশ চন্দ্রের ছেলে তৈলক্ষ রায়।

[৪] সংবাদ সম্মলণে যৌথ লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তৈলক্ষ রায়। বক্তব্যে তারা জানান, বাপ্পি দাদন ব্যবসায়ী হওয়ার সুবাদে কয়েক বছর পূর্বে মনোরঞ্জন রায় ১০হাজার, জয়ন্ত রায় ৫ হাজার, তপন ঋষি ৭ হাজার টাকা, তৈলক্ষ রায় ১০ হাজার দৈনিক হাজারে ২০টাকা হিসেবে সুদের টাকা গ্রহন করি এবং ৬ মাসের মধ্যে সুদ আসলসহ পরিশোধ করে দেই। টাকা পরিশোধ করার পরেও সুকৌশলে বাপ্পি প্রতিজনের কাছে ৩শত টাকার নন জুডিশিয়াল ফাঁকা ষ্টাম্পে সাক্ষর নেওয়া কাগজপত্র ফেরত দিতে তালবাহানা করেন। ষ্টাম্প ফেরত না দেওয়া নিয়ে বাপ্পির সাথে কথা কাটাকাটি হলে গত এক সপ্তাহ আগে মনোরঞ্জন রায় ১লক্ষ টাকা, জয়ন্ত রায়কে ১লক্ষ ৫০ হাজার, তপন ঋষিকে ১লক্ষ ৫০ হাজার ও তৈলক্ষ রায়কে ৩ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা পরিশোধের জন্য উকিল নোটিশ পাঠিয়ে দেয়।

[৫] আমরা উল্লেখিত ৪ জন ব্যক্তি কেউ দিন মজুর, কেউ ঢুলি ও কেউ ট্রাক শ্রমিক। আমরা গরীব অসহায় হওয়ার সুবাদে প্রভাবশালী দাদন ব্যবসায়ী বাপ্পি আমাদেরকে ভিটেমাটি ছাড়ার ষড়যন্ত্র করছে। আমরা উভয়েই এর তীব্র প্রতিবাদ ও আমার ফাঁকা ষ্টাম্পে স্বাক্ষর করা কাগজপত্র ফেরত পেতে প্রশাসনসহ এলাকার সুধীজনের সহযোগীতা কামনা করছি।

 

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত