প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] এসএসসির দ্বিতীয় দিনে অনুপস্থিতি বাড়ল ২০ হাজার

খালিদ আহমেদ: [২] এসএসসি পরীক্ষার দ্বিতীয় দিন সোমবার ২৩ হাজার ৫৫৩ জন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল। এ ছাড়া অসদুপায় অবলম্বন করায় এদিন তিন পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

[৩] নির্ধারিত সময়ের সাড়ে আট মাস পর রোববার শুরু হয়েছে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। ৯টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের অধীন দ্বিতীয় দিন অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা এবং হিসাববিজ্ঞান বিষয়ের পরীক্ষা।

[৪] এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিন পদার্থবিজ্ঞানের (তত্ত্বীয়) পরীক্ষায় অনুপস্থিত ছিল ৩ হাজার ৫৪৮ জন পরীক্ষার্থী।

[৫] শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের নিয়ন্ত্রণকক্ষের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ৯টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের অধীন বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা বিষয়ে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৮ লাখ ৩ হাজার ৪৭৯ জন। এর মধ্যে পরীক্ষায় অংশ নেয় ৭ লাখ ৮৫ হাজার ৭৪৬ জন। অর্থাৎ অনুপস্থিত ছিল ১৭ হাজার ৭৩৩ জন। পরীক্ষায় বরিশাল ও কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে একজন করে পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

[৬] অন্যদিকে হিসাববিজ্ঞান বিষয়ে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৩ লাখ ২৯ হাজার ৮৭০ জন। তাদের মধ্যে পরীক্ষায় অংশ নেয় ৩ লাখ ২৪ হাজার ৫০ জন। বাকি ৫ হাজার ৮২০ পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল। এই বিষয়ে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের একজনকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

[৭] করোনার সংক্রমণ সহনীয় মাত্রায় পৌঁছানোয় পুনর্বিন্যাস করা সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে এসএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে গ্রুপভিত্তিক তিনটি বিষয়ের ওপর, সময়ও কমিয়ে দেড় ঘণ্টা করা হয়েছে।

[৮] অবশ্য পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে উল্লেখ থাকা সময় নিয়ে কোনো কোনো অভিভাবকের মনে প্রশ্ন উঠেছে। কারণ, পরীক্ষা হচ্ছে দেড় ঘণ্টায়, কিন্তু প্রশ্নপত্রে সময় লেখা থাকছে বেশি। আজ অনুষ্ঠিত হিসাববিজ্ঞানের (সৃজনশীল) প্রশ্নপত্রে সময় লেখা ছিল ২ ঘণ্টা ৩০ মিনিট। একইভাবে আগের দিন পদার্থবিজ্ঞানের (সৃজনশীল) প্রশ্নপত্রে সময় লেখা ছিল ২ ঘণ্টা ৩৫ মিনিট।

[৯] এ বিষয়ে শিক্ষা বোর্ডের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এসব প্রশ্নপত্র ছাপা হয় আগেই। কিন্তু করোনার সংক্রমণ বিবেচনায় পরে দেড় ঘণ্টা পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। তাই পরীক্ষার বেশ আগেই সংশ্লিষ্ট সবাইকে পরিবর্তিত সময় ও প্রশ্নের নম্বর বণ্টনের বিষয়টি জানানো হয়েছে। পরীক্ষার সূচিতেও দেড় ঘণ্টায় পরীক্ষা নেওয়ার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। এ নিয়ে বিভ্রান্তির কিছু নেই।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত