প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মাংস কম দেওয়া নিয়ে বিয়েবাড়িতে সংঘর্ষ

সাদেক আলী: চুয়াডাঙ্গার পর এবার চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় একটি বিয়েতে আসা বরযাত্রীদের মাংস কম দেওয়ায় বর ও কনেপক্ষের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এতে বরসহ উভয় পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। আরটিভি

গতকাল শনিবার (৩০ অক্টোবর ) দুপুরে উপজেলার কালিয়াইশ ইউনিয়নের মৌলভীর দোকানস্থ নিরিবিলি নামে একটি কমিউনিটি সেন্টারে এই ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে সাতকানিয়া থানা পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

আহতদের মধ্যে কনের বাবা জসিম উদ্দিন ফারুক (৪৮), কনের মা রাশেদা বেগম (৩৫), মামা মো. বাবুল (৩০), বর মোহাম্মদ শাহজাহান (২৮), তার আত্মীয় মো. মানিক (২৯), মো. রফিক (৩০) ও স্থানীয় হুমায়ুনের (২০) নাম পাওয়া গেছে। আহতরা স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে বলে জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দুপুরে উপজেলার ছদাহা পূর্ব কাজীর পাড়া (খামারপাড়া) কালা মিয়ার ছেলে মোহাম্মদ শাহজাহানের সঙ্গে নোয়াখালীর সুবর্ণচর চরওয়াবদা ৪নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা (বর্তমানে চট্টগ্রামের চন্দনাইশের হাছনদণ্ডীতে বাস করে) জসিম উদ্দিন ফারুকের কন্যা মুক্তা বেগমের বিয়ে পরবর্তী অনুষ্ঠান চলছিল। এই উপলক্ষে অতিথিদের জন্য প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে খাবারের সময় বরপক্ষের এক ব্যক্তিকে তৃতীয়বার অতিরিক্ত গরুর মাংস এনে না দেওয়ায় কনেপক্ষের লোকজনের সঙ্গে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। একপর্যায়ে তা হাতাহাতি ও মারামারিতে রূপ নেয়। মারামারি চলাকালে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে তাদেরকেও মারধর করা হয়। এতে স্থানীয়সহ উভয়পক্ষের অনেকেই আহত হন। আহতরা স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে বলে জানা গেছে।

এই ব্যাপারে কনের চাচা মো. আলাউদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, বিয়েতে বরপক্ষের ৩০০ লোকের প্রীতিভোজের আয়োজন ছিল। কিন্তু দুপুর দেড়টার মধ্যেই বরপক্ষের ৪০০ জনেরও বেশি লোককে খাওয়ানো হয়। এর মধ্যে খাবার টেবিলে বরপক্ষের এক ব্যক্তিকে তৃতীয়বার অতিরিক্ত গরুর মাংস এনে না দেওয়ায় কথা কাটাকাটি হয় এবং একপর্যায়ে তা মারামারিতে রূপ নেয়। ঘটনা থামাতে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে তাদেরকেও মারধর করা হয়। পরে বর নিজেও মারামারিতে জড়িয়ে পড়েন বলে জানান তিনি।

সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ার হোসেন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, বিয়েতে মাংস কম দেওয়ার ব্যাপারে মারামারির ঘটনা ঘটে। এতে বরসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। এ বিষয়ে উভয়পক্ষের বৈঠকের পর বিষয়টি মীমাংসা হয়।

উল্লেখ্য, ২৪ অক্টোবর চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বদরগঞ্জ দশমিপাড়ায় বিয়েবাড়িতে ভাত কম খেয়ে মাংস বেশি খাওয়ার অভিযোগে বরপক্ষের তিনজনকে পিটিয়ে আহত করে কনেপক্ষের লোকজন।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত