প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বৈদ্যুতিক গাড়ি তৈরিতে ১১.৪ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করছে ফোর্ড

রাশিদ রিয়াজ : ভারত থেকে ২ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের পর কারখানা সরিয়ে নিয়ে গেলেও মার্কিন গাড়ি তৈরি কোম্পাানি ফোর্ড দক্ষিণ কোরিয়ার জালানি কোম্পানি এসকে ইনোভেটিভের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে দুটি বড় ধরনের গাড়ি তৈরি ক্যাম্পাস সম্প্রসারণে এ বিনিয়োগ করবে। এতে ১০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হবে। ১১৮ বছরের ইতিহাসে এটাই হবে ফোর্ডের সবচেয়ে বড় আকারের একক বিনিয়োগ। ফোর্ডের নির্বাহী বলেন, দক্ষিণ কোরিয়ায় কোম্পানির সঙ্গে বিনিয়োগের ৭ বিলিয়ন ডলার অংশীদারিত্ব থাকবে তাদের। ২০২৫ সালের মধ্যে বৈদ্যুতিক গাড়ি তৈরিতে ফোর্ডের বিনিয়োগ বাড়বে ৩০ বিলিয়ন ডলার। এতে ৪০ শতাংশ গাড়ি বিক্রি বাড়বে। ২০৩০ সাল নাগাদ সারাবিশে^ বৈদ্যুতিক গাড়ি চলতে শুরু করবে বলে ফোর্ড আশা করছে। সিএনএন

যুক্তরাষ্ট্রের কেনটাকি ও টেনেসিতে এদুটি গাড়ি তৈরি ক্যাম্পাস স্থাপনের পর ১১ হাজার মানুষ কাজ শুরু করবে। এ ক্যাম্পাসে থাকবে তিনটি বৈদ্যুতিক ব্যাটারি উৎপাদন প্লান্ট এবং এসব ক্যাম্পাস থেকে বৈদ্যুতিক পিকআপ ট্রাক তৈরি হবে। টেনেসিতে ব্লু ওভাল সিটি হিসেব পরিচিত ফোর্ডের কারখানাটি ৩৬শ একর জমিতে। ডার্বনে ফোর্ডের রিভার রাফ কমপ্লেক্সের চেয়ে টেনেসিতে এ কারখানাটি ৩ গুণ বড়। ব্যাটারি তৈরি হবে যে কারখানায় সেখানে কাজ করবে ৫ হাজার ৮শ মানুষ। থাকবে ব্যাটারির উপাদান রিসাইক্লিং সুবিধা। এরপর বিভিন্ন যন্ত্রাংশ উৎপাদনের পর বৈদ্যুতিক ট্রাক তৈরি করবে ফোর্ড। ফোর্ডের প্রথম বিনিয়োগে উৎপাদিত বৈদ্যুতিক গাড়ি ইতিমধ্যে বিক্রি শুরু হয়ে গেছে। এবছরের শেষ নাগাদ ফোর্ডের বৈদ্যুতিক বাণিজ্যিক ভ্যান বিক্রি শুরু হবে। আগামী বছর বিক্রি শুরু হবে উৎপাদিত বৈদ্যুতিক ট্রাক।

ফোর্ডের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা লিসা ড্রেক বলেন ফোর্ডের বৈদ্যুতিক ট্রাকগুলোকে কোম্পানির আগামী ভবিষ্যত বলেই মনে করা হচ্ছে। ড্রেক বলেন টেনেসিসের কারখানাটি ভবিষ্যতে আরো সম্প্রসারণ করা হবে। কারণ বৈদ্যুতিক গাড়িই আগামী দিনে অটোমোবাইল বাজারের ভবিষ্যত বলে বাজারে গাড়ি যোগানের সক্ষমতা বৃদ্ধি করা হচ্ছে। তিনি বলেন কম্পিউটার চিপস ও অন্যান্য নাজুক যন্ত্রাংশের সরবরাহে জটিলতা সৃষ্টি হওয়ায় গাড়ি উৎপাদন বিঘ্নিত হচ্ছে। দক্ষিণ কোরিয়ার এসকে ইনোভেশন ফোর্ডের সঙ্গে মূলত বৈদ্যুতিক ব্যাটারি উৎপাদনে প্রধান ভূমিকা পালন করবে। কেনটাকি প্লান্টে ৫ হাজার মানুষ কাজ করার সুযোগ পাবে। কেনটাকিতে তৈরি হবে লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি। ফোর্ডের এসব নতুন গাড়ি তৈরি কারখানা থাকবে সম্পূর্ণ কার্বন দূষণ মুক্ত। কোনো বর্জ্য মাটিতে গিয়ে পড়বে না। ফোর্ড সম্প্রতি রেডউডের সঙ্গে আরো ৫০ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের ঘোষণা দিয়েছে। এ বিনিয়োগ খরচ হবে ব্যাটারি রিসাইক্লিং স্টার্টঅ্যাপে। রেডউড বলছে ব্যাটারি থেকে কোবাল্ড, লিথিয়াম, কপার ও নিকেলের ৯৫ শতাংশই পুনরায় কাজে লাগানো যাবে। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন স্থানে আগামী ৫ বছরে বৈদ্যুতিক গাড়ি মেরামতের জন্যে টেকনিশিয়ানদের প্রশিক্ষণের জন্রে ৫২৫ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের ঘোষণা দিয়েছে ফোর্ড।

সর্বাধিক পঠিত