প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘গ্রীণকার্ড’ ছবির মাধ্যমে পরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করছেন কাজী মারুফ

ইমরুল শাহেদ: মার্কিন প্রবাসী নায়ক কাজী মারুফ আগামী মাসে ঢাকা আসবেন বলে জানিয়েছেন তার পিতা চলচ্চিত্রকার কাজী হায়াৎ। এক সাক্ষাৎকারে তিনি এই রিপোর্টারকে বলেন, কাজী মারুফ ইতোমধ্যে ‘গ্রীণকার্ড’ নামে একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন। তবে এখনো তিন দিনের শুটিং বাকি আছে বলে তিনি জানান। এই তিন দিনের কাজ শেষ করে তিনি ছবিটির ভিডিও ফুটেজ দেশে নিয়ে আসবেন এবং এখানেই অবশিষ্ট কাজ শেষ করেছেন। ছবিটির অভিনয়ে কারা অংশগ্রহণ করেছেন, সেটা বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি। তবে কাজী মারুফ নিজে অভিনয় করেছেন এবং প্রবাসীদের অনেকেই তাতে রয়েছেন বলে অনুমান করা যায়। কাজী হায়াতের ইঙ্গিতটাও অনেকটা তাই।

এদেশের চলচ্চিত্রে কাজী মারুফ গড়ে উঠেছেন পর্দার একজন প্রতিবাদী যুবক হিসেবে। কিন্তু তার অভিনয় প্রধান ছবিও আছে, যা নির্মাণ করেছেন কাজী হায়াৎ নিজেই। কাজী মারুফের পর্দা আবির্ভাবের আগে কাজী হায়াতের ছবিগুলোতে অভিনয় করতেন নায়ক মান্না। কাজী মারুফ ২০০২ সালে ‘ইতিহাস’ ছবি দিয়ে চলচ্চিত্র ক্যারিয়ার শুরু করেন। ২০১৯ সালে মুক্তি পাওয়া ‘গার্মেন্টস শ্রমিক জিন্দাবাদ’ পর্যন্ত তিনি ৪১টি ছবিতে অভিনয় করেছেন।

অভিনয়ের জন্য তিনি প্রথম ছবিতেই জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও পান। কাজী মারুফ সর্বাধিক ছবিতে অভিনয় করেছেন নায়িকা পূর্ণিমা ও সাহারার সঙ্গে। গ্রীণকার্ড নির্মাণ করেছেন আত্মতাগিদ থেকে। এমন তথ্যই জানিয়েছেন কাজী হায়াৎ। ‘গ্রণকার্ড’ ছবিটি কাজী মারুফ নিজেই পরিচালনা করেছেন। গত বছরই গণমাধ্যমকে তিনি এ বিষয়টি জানান দিয়েছিলেন। গ্রীণকার্ড ছবিতে প্রবাসে অবস্থানকারীদের গ্রীণকার্ড পাওয়া নিয়ে যেসব সমস্যা থাকে সেটাই গল্প বলার মধ্য দিয়ে তুলে ধরা হয়েছে বলে জানা গেছে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত