প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] এখনি নির্বাচন কমিশন নিয়ে ভাবছি না: মির্জা ফখরুল

শিমুল মাহমুদ: [২] দলের তৃতীয় দিনের ধারাবাহিক বৈঠকে শেষে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের এই কথা বলেন।

[৩] বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মরদেহ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যের বিষয় সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, ‘বলুক, বলার সময় বলবো’। এর আগে দলের কর্মকৌশল ঠিক করতে মাঠ পর্যায়ের নেতাদেরও মতামত নেবেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

[৪] তিনি বলেন, ‘আমাদের তিনটি সভা হলো-এটা আজকে শেষ। আগামী শনিবারে আমাদের স্থায়ী কমিটির মিটিং আছে। এই মিটিংয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নেবো যে, আরো কয়েকটি সভা করবো কিনা। কারণ আমাদের এখনো কিছু কার্য নির্বাহী সদস্যদের সঙ্গে মত বিনিময় বাকি রয়েছে তাদের নিয়ে এবং জেলা পর্যায়ের প্রেসিডেন্ট-সেক্রেটারিদের নিয়ে মিটিং করার কথা আছে। ‘আমরা হয়তো সেই বিষয়গুলো সিদ্ধান্ত নেবো। পরে আমরা পেশা জীবীদের সঙ্গে আলোচনা করার কথা রয়েছে। আমরা দেখি যে, স্থায়ী কমিটির বৈঠকে যদি সিদ্ধান্ত হয় পরবর্তিতে এসব মিটিংগুলো আমরা করবো।

[৫] মির্জা ফখরুল বলেন, আমাদের এসব ধারাবাহিক বৈঠকে দেশের সামগ্রিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি, কী করণীয় এবং আমাদের সাংগঠনিক অবস্থা নিয়ে আমরা কথা বলেছি। আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান সাহেব এসব বৈঠকে সভাপতিত্ব করেছেন এবং নেতাদের মতামত শুনেছেন।

[৬] তিনটি মিটিংয়ে কি কি পরামর্শ এসেছে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, এটা সময়মত জানতে পারবেন। আমরাই আমাদের প্রয়োজনেই তখন আপনাদেরকে জানাবো।

[৭] গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বিকাল ৪টা থেকে রাত ৮টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত সাড়ে ৪ ঘন্টা এই বৈঠক হয়। গত রোববার এই বৈঠক শুরু হয়েছিলো যা বৃহস্পতিবার শেষ হলো। এই তিন দিনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিল, যুগ্ম মহাসচিব, সাংগঠনিক সম্পাদক, সম্পাদক মন্ডলী এবং শেষ দিন দলের অঙ্গসংগঠনের সাথে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

[৮] দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজনৈতিক কর্মকৌশল ঠিক করার লক্ষ্যে নেতাদের মতামত জানতে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এই বৈঠক ডেকেছেন। তারেক রহমানের সভাপতিত্বে বৃহস্পতিবারের বৈঠকে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু উপস্থিত ছিলেন। সম্পাদনা: মিনহাজুল আবেদীন।