প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] আজ রাতে মাঠে নামবে রিয়াল মাদ্রিদ ও ইন্টার মিলান

স্পোর্টস ডেস্ক: [২] ইন্টার মিলানের ঘরের মাঠ সান সিরোতে এর আগে কখনোই রিয়াল মাদ্রিদ জিততে পায়নি। তবে গেলবার ইতিহাস নতুন করে লিখেছিলো জিনেদিন জিদানের রিয়াল মাদ্রিদ। সান সিরোতেই ইন্টার মিলানকে ২-০ গোলের ব্যবধানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডের পথে এক ধাপ এগিয়ে যায় লস ব্ল্যাঙ্কোসরা। সেবার জিদানের দলের জয়ে একটি করে গোল করেন ইডেন হ্যাজার্ড এবং রদ্রিগো।

[৩] এক বছর পর আবারও দুদল মাঠে নামছে। এবারও গ্রুপপর্বের ম্যাচে মহারণ হবে ইউরোপের অন্যতম সেরা দু দলের। গেল মৌসুমে ঘরের মাঠে হারের প্রতিশোধ নেওয়ার সুযোগ এসেছে নেরাজ্জুরিদের। রাতেই সান সিরোতে ‘ডি’ গ্রুপের ম্যাচে একে অপরের মুখোমুখি হয়ে চলতি আসরে ইউরোপ শ্রেষ্ঠত্বের অভিযান শুরু করবে দুদল। চলতি মৌসুমে স্প্যানিশ লা লিগায় উড়ন্ত ফর্মে আছে রিয়াল মাদ্রিদ। নতুন মৌসুমে শিরোপা পুনরুদ্ধারের অভিযানে ৪ ম্যাচের তিন জয়ে ১০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে কার্লো আনসেলত্তির দল। সবশেষ ম্যাচে দুই বছর পর বার্না ব্যুতে ফিরে করিম বেনজেমার হ্যাট্রিকে সেল্টা ভিগোকে উড়িয়ে দিয়েছে। মহাদেশীয় লড়াইয়ে মাঠে নামার আগে যা বাড়তি অনুপ্রেরণা যোগাবে ইউরোপের সফলতম দলটিকে।

[৪] খুব পিছিয়ে নেই ইন্টার মিলানও। গেলবার ইতালিয়ান সিরি’আ তে জুভেন্টাসের রাজত্বে হানা দিয়ে স্কুডেট্টো জয় করে নেরাজ্জুরিরা। এবার লিগ শিরোপা ধরে রাখার অভিযানে এখনও হারেনি ইনজাগির শীষ্যরা। যদিও সবশেষ ম্যাচে সাম্পদোরিয়ার কাছে শুরুতে এগিয়ে গিয়েও হোচট খাওয়া কিছুটা চিন্তায় ফেলবে স্বাগতিকদের।ইউরোপ সেরারমঞ্চে ইতালিয়ান যেকোনো জায়ান্টদের বিপক্ষে অপ্রতিরোধ্য রিয়াল মাদ্রিদ। নিজেদের শেষ ১৩ টি ম্যাচের ১২ টিতেই জয় লস ব্লাঙ্কোসদের। হেরেছিল কেবল একটিতে ২০১৮ সালে জুভেন্টাসের বিপক্ষে। মহাদেশীয় লড়াইয়ে ইন্টার মিলান বিপক্ষে সবশেষ ৫ ম্যাচের ৪টিই জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে লস ব্লাংকোসরা।

[৫] উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগে ইন্টার মিলান স্প্যানিশ ক্লাবগুলোর বিপক্ষে শেষবার জিতেছিল ২০১০ সালে বার্সেলোনার বিপক্ষে। সেবার, জোসে মরিনহোর অধীনে কাতালানদের ৩-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিলো নেরাজ্জুরিরা। স্প্যানিশ ক্লাবগুলোর বিপক্ষে শেষ সাত ম্যাচের ছয়টিতেই জয়হীন ইন্টার মিলান। ড্র কেবল একটিতে। গোল ডট কম

সর্বাধিক পঠিত