প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] আফগানিস্তানের মানবিক বিপর্যয় চরমে, বিদেশি শক্তি চলে যাওয়ায় ব্যাপক ঝুঁকির মুখে স্বাস্থ্য খাত

সাকিবুল আলম: [২] সোমবার (৩০ আগস্ট) প্রকাশিত বিবৃতিতে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাই কমিশনার ফিলিপ্পো গ্র্যান্ডি বলেন, কাবুল পতনের পর থেকে চলমান উদ্বাসন প্রক্রিয়া প্রশংসনীয় হলেও বেশিরভাগ আফগান নাগরিককে দেশের ভেতরেই অবস্থান করতে হবে। সিএনএন

[৩] ক্ষমতার পট পরিবর্তনে দেশটিতে ব্যাপক খাদ্য ঘাটতি হয়েছে। গৃহহীন মানুষের সংখ্যা বেড়েছে আশঙ্কাজনকভাবে। দেশটিতে জরুরি চিকিৎসা সামগ্রীর অভাবে স্বাস্থ্যখাতে ধ্বস নেমেছে। ইউনিসেফের তথ্যমতে তালিবানের ক্ষমতা দখলের পর দেশটিতে ভ্যাকসিনেশনের হার হ্রাস পেয়েছে ৮০ শতাংশ। দ্য গার্ডিয়ান

[৪] প্রশিক্ষিত স্বাস্থ্যকর্মীরা দেশ ছেড়ে চলে যাওয়ায় ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছে দেশটির স্বাস্থ্য খাত। বিদেশি শক্তিরা দেশত্যাগের কারণে যে শূন্যস্থানের সৃষ্টি হয়েছে, এতে শিক্ষা, অর্থনীতির পাশাপশি ভেঙে গেছে দেশটির স্বাস্থ্য ব্যবস্থাও। অবস্থা বেগতিক দেখে গত ২৮ আগস্ট নারী স্বাস্থ্যকর্মীদের কাজে ফেরার আহ্বান জানিয়েছিলো তালিবান ও আফগান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

[৫] আফগানিস্তানের সাধারণ নাগরিকদের উদ্বাসন প্রসঙ্গে জাতিসংঘের হাই কমিশনার গ্র্যান্ডি বলেন, ৩১ আগস্ট উদ্ধার অভিযান শেষ হওয়ার পরও প্রায় ৩ কোটি ৯০ লাখ আফগানকে দেশেই থাকতে হবে। তিনি আরও বলেন, চলমান সহিংসতায় সারাদেশ জুড়ে প্রায় ৩৫ লাখ আফগান বাস্তুচ্যুত হয়েছে।

[৬] তিনি জানান, প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান ও ইরান ২০ লাখেরও বেশি আফগান শরণার্থীকে আশ্রয় দিয়েছে, যা মোট শরণার্থীর ৯০ শতাংশ। মানবিক বিপর্যয়ের সম্মুখীন আরো অসংখ্য আফগান নাগরিকদের সহায়তার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে আহ্বান জানান তিনি।

সর্বাধিক পঠিত