প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] এইচকেজি স্টিল মিলের ধূয়ায় হুমকির মুখে সোনারগাঁয়ের পরিবেশ, স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে ৭ গ্রামের ২০ হাজার মানুষ

মোঃ শাহজালাল মিয়া: [২] নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের পিরোজপুর ইউনিয়নে এইচ কে জি স্টিল মিলের বিষাক্ত কালো ধোঁয়ায় মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়েছে ওই এলাকার ৭ গ্রামের ২০ হাজার মানুষ।

[৩] পরিবেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ বায়ু দূষণে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে জনসমাজ, গাছ-গাছালী ও ফলমূল। মারাত্মকভাবে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে আছে শিশু ও বৃদ্ধরা।একইসঙ্গে করোনা ভাইরাস ও শ্বাসকষ্ট জনিত বিভিন্ন রোগ বাড়ছে ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন ঐ এলাকার মানুষের মধ্যে। গত এক বছরে এ এলাকায় ৩১ বছরের ইকবালসহ ৩ জনের করোনা ভাইরাস ও শ্বাসকষ্ট জনিত রোগে মৃত্যু হয়েছে।

[৪] বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য মতে, সারা বিশ্বে বছরে শুধুমাত্র বায়ু দূষণে আনুমানিক ৭০ লাখ মানুষ মারা যায়। তবে এ ভয়াবহতা থেকে জনসমাজকে রক্ষায় বাংলাদেশ সরকারের চিন্তাও কম নয়। পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণে সরকার সবসময় সজাগ দৃষ্টি রাখছে, নিচ্ছে নানা পদক্ষেপও। জরিমানাও আদায় হচ্ছে মোটা অঙ্কের। কিন্তু সরকারের সেই সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সোনারগাঁ উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের জনগোষ্ঠী।

[৫] উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের পিরোজপুর, নয়াগাঁও, মনাইকান্দি, জৈনপুর, চেঙ্গাকান্দি, নাগেরগাঁও ও মৃধাকান্দি গ্রামের ভুক্তভোগীদের কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানাযায়, বায়ু দূষণ বন্ধের দাবিতে বহুবার মানববন্ধন ও সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করে প্রতিকার চাইলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি। রহস্যময় কারণে স্থানীয় প্রভাবশালী ও প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের নিরব ভূমিকায় হতাশা প্রকাশ করেন তারা। ফলে স্থানীয়রা ক্ষোভে উত্তাল। যে কোন মুহুর্তে এইচ কে জি স্টিল মিল ঘেরাওসহ ভাংচুর করতে পারে বলে জানান এলাকাবাসী।

[৬] এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোঃ আতিকুল ইসলাম বলেন, এইচ কে জি স্টিল কাউকে তোয়াক্কা করছেনা। এলাকাবাসী আমাকেসহ ডিসি বরাবর লিখিত অভিযোগ দিলে কোম্পানিটির বিরুদ্ধে ২ দিনের মধ্যে ব্যবস্থা নেবো।

সর্বাধিক পঠিত