প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] চট্টগ্রাম বন্দরে ছয়টি জাপানি গাড়িসহ বিভিন্ন পণ্যভর্তি পুনরায়৭৮ লট পণ্য নিলামে

রিয়াজুর রহমান: [২] বন্দরের ইয়ার্ডগুলোতে নতুন করে পণ্য রাখার সুযোগ তৈরি করতে এবং কনটেইনার জট এড়াতে দ্রুত ইয়ার্ড খালি করার জন্য এসব উদ্যোগ নিয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। ফলে, বন্দরের যাবতীয় কার্যক্রম পরিচালনায় গতিও আসবে বলে জানিয়েছে বন্দর। তাই এবার ছয়টি জাপানি গাড়িসহ বিভিন্ন পণ্যভর্তি ৭৮ লট পণ্য উঠছে নিলামে।

[৩] চট্টগ্রাম বন্দর সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রাম বন্দরে ৪০ হাজার টিইইউএস কনটেইনার রাখার ধারণ ক্ষমতা রয়েছে। বন্দরে কনটেইনার হ্যান্ডলিং ও পণ্য ডেলিভারির কাজ গতিশীল থাকায় বর্তমানে বন্দরের বিভিন্ন ইয়ার্ডে ৩৬ থেকে ৩৭ হাজার টিইইউএস কনটেইনার রয়েছে চট্টগ্রাম বন্দরে। তবুও বন্দরের চলমান কার্যক্রমকে আরও গতিশীল করতে বন্দরে পড়ে থাকা আমদানিকৃত পণ্যগুলো নিলামে তোলা হচ্ছে।

[৪] এছাড়া চট্টগ্রাম কাস্টমসের নিলাম শাখা থেকে জানা গেছে, এবারের নিলামে পাঁচটি জাপানি টয়োটা গাড়ি, একটি আ্যাম্বুলেন্সসহ ৮৫৫ কনটেইনার প্লাস্টিক হ্যাঙ্গার, ৫৩ কার্টন আইসক্রিম কাপ, ৪৭৮ রোল ফেব্রিক্স পণ্য, ৭২ প্লেট রাবার প্রোটেক্টর, ৩৩ কনটেইনার ক্যাবল, ১৭ কনটেইনার রেইনকোর্ট, ২ হাজার ৯৭০ পিস সোয়েটার, ৪৪ হাজার ৬শ’ পিস প্লাস্টিক পণ্য, দেড় কোটি টাকা মূল্য মানের প্লাস্টিকের দরজা-জানালা, ৬ ড্রাম ওষুধের কাঁচামাল, ৫৬ রোল আয়রন শীট, ১৪৭ কনটেইনার লাইট, ১২ কনটেইনার ক্যালেন্ডার ও ডায়েরি, ৩২০ ড্রাম মদ, ৪ কনটেইনার মেটাল বাটন, ২৭০ কেজি হাউড্রোলিক এসিড, ১ কনটেইনার ব্যাটারি, ৭ কেস ওয়াশিং ক্যামিকেল, ৪০ ড্রাম রাসায়নিক পদার্থ, ৪০২ কনটেইনার ভুট্টা রয়েছে।

[৫] চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সচিব মোহাম্মদ ওমর ফারুক বলেন, বারবার নোটিশ পাঠানোর পরও যেসব আমদানিকারকরা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পণ্য খালাসের উদ্যোগ নেয় না ওই সব পণ্যই মূলত নিলামে তুলতে কাস্টমস কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেয়া হয়।

[৬] তিনি বলেন, পণ্য ভর্তি কনটেইনার দ্রুত ছাড় করা হলে যেমন নতুন পণ্য রাখার সুযোগ তৈরি হয় তেমনি নিলামযোগ্য কনটেইনার নিয়ম অনুযায়ী নিলামে তুললে বন্দর পরিচালনা কার্যক্রমেও গতি আসে।

[৭] সরকারি নিলাম পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স কে এম করপোরেশন এ নিলাম পরিচালনা করছে। প্রতিষ্ঠানটির নিলাম শাখার কর্মকর্তা মোহাম্মদ মোরশেদ বলেন, ‌‘গত বৃহস্পতিবার (৩ জুন) নিলামের জন্য দরপত্র আহ্বান করা হয়। নিলামে অংশ নিতে হলে আগামী ৯ জুন দুপুর ২টার মধ্যে ব্যক্তির ক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয়পত্র ও হালনাগাদ টিন সার্টিফিকেটের কপি জমা দিতে হবে। তাছাড়া প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে হালনাগাদ করা ট্রেড লাইসেন্স, ভ্যাট রেজিস্ট্রেশন সনদ ও টিন সার্টিফিকেটের কফি জমা দিতে হবে। কাস্টম হাউসের নিলাম শাখা থেকেও নিলামের দরপত্র ও ক্যাটালগ সংগ্রহ করা যাবে। ওইদিন (৯ জুন) দুপুর আড়াইটায় এই নিলাম কার্যক্রম শুরু হবে। সম্পাদনা: হ্যাপি

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত