প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আশরাফুল আলম খোকন: কলকাতার ভাইরালে আমরা কোন ফাঁদে পা দিচ্ছি নাতো ?

আশরাফুল আলম খোকন: দামে কম-মানে ভালো কাকলি ফার্নিচার অনেক বেশি ব্যবসা করুক আমি তাই চাই। দর্শক চাইলে হিরো আলম দেশের এক নাম্বার নায়ক হোক এতে আমার কোনো আপত্তি নেই। আরমান আলিফের অপরাধী গান সবচেয়ে বেশি হিট হোক তাতেও আমি খুশি। আমি চিন্তিত অন্য জায়গায়। বিশ্ব দরবারে আমাদের সংস্কৃতির মান নিয়ে।

এখন ভার্চুয়াল মিডিয়ার যুগ। মনে করেন, সংস্কৃতি নিয়ে চর্চা করেন বিদেশি এমন বিশেষ কেউ আমাদের দেশের চলমান সংস্কৃতি নিয়ে কাজ করতে চাইলো যার কিনা বাংলাদেশ সম্পর্কে তেমন কোনো ধারণা নাই। গুগুল, ইউটিউবে কিংবা ফেসবুকে সার্চ দিলেন। আমি নিশ্চিত এই তিনটি সেক্টরে এই তিনজনই আসবেন। বিদেশিরাও আমাদের চলমান সংস্কৃতির মান সম্পর্কে কিঞ্চিৎ ধারণা পেয়ে যাবেন। সেরা নায়ক হিরো আলম, সেরা গান মাইয়া তুই অপরাধী আর বিজ্ঞাপন কাকলি ফার্নিচার।

কারণ তাদের ভিউ বেশি ? তাদের নিয়ে মাতামাতি বেশি।

আমার প্রশ্ন অন্য জায়গায়। হিরো আলমকে নিয়ে সবচেয়ে বেশি মাতামাতি হয়েছে কোন জায়গায়। উত্তর হলো কলকাতা প্রথমে, এরপর সারা ভারতে, এরপরে বাংলাদেশে।

অপরাধী গান সবচেয়ে বেশি কভার কিংবা প্যারোডি হয়েছে কোথায় ? উত্তর ওই একই।

কাকলি ফার্নিচার সবচেয়ে বেশি ভাইরাল ও প্যারোডি হয়েছে কোথায় ? উত্তর প্রথমটাই। কলকাতা -সারা ভারত -এরপর বাংলাদেশে।

আমাদের শাকিব খান, জয়া আহ্সানরা খোদ কলকাতাতেই অনেক ভালো কাজ করেন কিন্তু ভাইরাল হোন না। জেমস এর গান বোম্বে সুপারহিট হবার পর সেখান থেকে অঘোষিতভাবে নিষিদ্ধ হোন।

‘মজা করে হোক কিংবা উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে হোক কলকাতা কিন্তু ধীরে ধীরে আমাদের সংস্কৃতির একটা মান দাঁড় করিয়ে দিচ্ছে। অথচ কলকাতা এক সময় আমাদের দেশের নাটক ও সিনেমার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করতো। এখন পুরো বিশ্বের বিশাল একটা জায়গা ভারত দখল করে নিয়েছে তাদের সিনেমা ও গান দিয়ে।

সুতরাং যারা এই গড্ডালিকা প্রবাহে গা ভাসিয়ে দিয়ে আরো ভাইরাল করেন, ফিচার লিখেন, নিউজ করেন তাদের আরো ভাবা উচিত। কোন ফাঁদে পা দিচ্ছেন নাতো ?

নোট: আমাকে কেউ ভারত বিরোধী ভাববেন না। সংস্কৃতির প্রতিযোগিতায় তারা আগানোর চেষ্টা করবে এটাই স্বাভাবিক, তা যেকোন প্রক্রিয়া করেই হোক। সেই সতর্ক করাই এই লেখার মূল উদ্দেশ্য।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত