প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রবিউল আলম: একজন শেখ হাসিনা:বিধাতার ইচ্ছায় মানবিকতা, সম্পর্ক উন্নয়ন, দায়িত্ব পালন ও লক্ষ্য অর্জনে পরিপূর্ণ

রবিউল আলম: এক জীবনে পরিপূর্ণতা আসে না, মাত্র ৫৫ বছরের জীবনে একটি জাতির মুক্তি, জীবন ধারণের দিকনির্দেশক করেছিলেন বিধাতা- জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানকে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দিয়ে একি করাচ্ছেন? করোনা ও মৌলবাদীদের জন্য দায়িত্ব পালনে কতোটা কঠোর রূপ ধারণ করেছেন। মানুষের জীবন ধারনের জন্য নিরবে বিজ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে ঘরে ঘরে নগদ সহায়তা পৌঁছিয়ে দিচ্ছেন। ভিন্ন মতের রিজভী, ফকরুল, কবি সাহিত্যিক, শিল্পী সাংবাদিকদের, এমনকি বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসার খোঁজ-খবর রাখছেন।

অসভ্যতার ও ধ্বংসের জন্য অধর্মীয়দের শাস্তির আওতায় এনেছেন। বহিঃবিশ্বের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নে এক নতুন ইতিহাস সৃষ্টিকারী বলতে পারেন। বঙ্গবন্ধু সমাজতন্ত্র ও গণতন্ত্রকে মিশ্রণ ঘটাতে চেয়েছিলেন বাকশালের মাধ্যমে, শেখ হাসিনা রাশিয়া-আমেরিকা, চীন-ভারতকে সমান তালেই, তাল মিলিয়ে চলছেন। রোহিঙ্গা পুনর্বাসন থেকে মমতার নির্বাচন, অমিত শাহের অসম্মান জনক আচরণ- কিছুই শেখ হাসিনার দৃষ্টি এরাতে পারে না। নিজস্ব অর্থায়নে একটি পদ্মাসেতু- বাঙালির ইতিহাস বিশ্বে কতোটা মর্যাদার আসনে জাতিকে প্রতিষ্ঠা করেছে? কাগজ আর কলমে লেখা সম্ভব নয়। মানুষ টাকা দিয়ে সব কিনতে পারেন না, কতোটা বিচক্ষণ হলে ভারতের টিকা কতো আগেই কেনা হয়েছিলো, পরিপূর্ণ না হলেও শুরুটার জন্য কী শেখ হাসিনার কিছুই পাওনা ছিলো না ?  কুইকরেন্টাল বিদ্যুৎ নিয়ে সমালোচনা কিন্তু শেখ হাসিনাকে থামাতে পারেনি।

জাতি আজ বিদ্যুতের সুফল ভোগ করছে। ভারত সাময়িক সমস্যা কাটিয়ে ওঠবে করোনা থেকে, শেখ হাসিনা করোনার টিকার বাজার বানিয়ে দিবেন বাংলাদেশকে। ফার্মাসিটিক্যালে বাংলাদেশ এখন একেবারে ফেলনা নয়, ঔষধ থেকে জাহাজ, মহাকাশ, সাগরের তলদেশেও শেখ হাসিনার দৃষ্টি এড়াতে পারেনি। সব গুণ অর্জন করা যায় না, শেখ হাসিনাও অর্জন করেছেন বলে আমি বিশ্বাস করি না। আমার সৃষ্টিকর্তা শেখ হাসিনাকে পছন্দ করেছেন বলেই তার হাতে বাংলাদেশকে সাজিয়ে দিচ্ছেন, আমি মনে করি।

মিরসরাইয়ের অর্থনৈতিক অঞ্চল, ভাসান চরে মিঠা পানির সন্ধান, পদ্মাসেতুর বাস্তবায়ন অলৌকিক বলতে পারেন। সুবর্ণ চর, বরিশালে, পার্বত্য চট্টগ্রাম সহ সেনাবাহিনীর বিচরণ বিচক্ষণতারই বহিঃপ্রকাশ বলতে পারেন। অনেকটা ধৈর্য্যরে পরিচয় দিতে হয়েছে, স্বার্থের জন্যে টুপি পরে মোদিকে পায় হাত দিয়ে সালাম করতে পারে মোল্লারা, বাংলার মাটি অপবিত্রও হতে পারে স্বার্থহানীর জন্যে, দৃশ্য ধারণ করতে হয়েছে শেখ হাসিনাকে। গরিবের মানবিক সহায়তা এখন ঘরে বসেই পাওয়া যায়, চেয়ারম্যান মেম্বার, কাউন্সিলরদের পুকুর চুরি বন্ধ, গরু বেইচা নির্বাচন, প্লেন কিনা উড়বা?  শেখ হাসিনা থাকতে বোধহয় আর হবে না।  লেখক : মহাসচিব বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত