প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মিরাজুল ইসলাম: লকডাউনের ফাঁদে

মিরাজুল ইসলাম: গত একবছর দেশের লকডাউন পরিস্থিতি বিবেচনা করলে একটি বিষয় স্পষ্ট। লকডাউনে সকল সরকারি প্রতিষ্ঠানের ব্যক্তিবর্গ দেশের সার্বিক অর্থনৈতিক বিবেচনায় স্বস্তিতে ছিলেন। সেই সাথে অধিকাংশ কর্পোরেট সংস্থা এবং প্রতিষ্ঠানসমূহ ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ প্রটোকলের আওতায় নিরাপদ ছাদের নীচে বহাল তবিয়তে কাজ করে গেছেন। সেই প্রক্ষিতে দেশের সাধারণ জনগণ সে যে পেশারই হোক না কেন, করোনাকালীন পরিস্থিতিতে তাকে জীবন সংগ্রাম ঠিকই যেকোনো মূল্যে চালিয়ে যেতে হয়েছে। দুটি উদহারণ দিই।

বিদ্যুৎ বিল বা প্রি পেইড মিটারে সমস্যা দেখা দিলে সংশ্লিষ্ট সরকারি অফিসে লকডাউনকালে সশরীরে উপস্থিত হওয়ার উপায় নেই। অনলাইনে সমস্যা সমাধানে বাঁধা বা বিলম্বিত হওয়ার বাস্তবসম্মত কারণগুলো ভুক্তভোগী মাত্র জানেন। আবার, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কিংবা অস্ট্রেলিয়ায় পোস্ট গ্র্যাজুয়েশন সমমানের উচ্চ শিক্ষার ভিসা সংগ্রহের ক্ষেত্রে নানাবিধ জটিলতার সম্মুখীন হচ্ছেন শিক্ষার্থীরা। করোনাকালীন লকডাউনে উচ্চ শিক্ষালাভের সুযোগ পাওয়া একজন শিক্ষার্থীর মানসিক যন্ত্রণা ও আর্থিক ক্ষতি যেকোনো মূল্যে গভীর, তা সরকারী আমলাগণ অনুধাবন করেন না। করলেও সমাধানে উদ্যোগী নন।

বাংলাদেশের আপামর জনসাধারণ কিন্তু  লকডাউনে গৃহবন্দী থাকেনি। কেবল গণপরিবহন চলাচলে আইন প্রণয়ণ কঠোরতা ছাড়া পুরো লকডাউনে ‘দেখে না দেখার ভান’ প্রমাণ করে আপাত বিধি-নিষেধের পুরো ফায়দা উপভোগ করছেন মূলত সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ। মাসের শেষে সরকারি বেতন যখন নিশ্চিত, তখন আরও কিছুদিন নিয়মবিহীন অস্বাস্থ্যকর লকডাউনের ছুটি ভোগ করতে ক্ষতি কি?

গত একবছরের অভিজ্ঞতায় সবাই অনুধাবন করতে সক্ষম হয়েছেন, যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করে ও স্বাস্থ্যখাতকে পুনরুদ্ধার এই মুহূর্তে সকল সমাধানের উৎস। কিন্তু তাকে পাশ কাটিয়ে কেবল লকডাউন শব্দটি ক্রমে হয়ে উঠছে ‘শুভঙ্করের ফাঁকি’। এই বাস্তবতা থেকে সাধারণ জনগণের মুক্তি প্রয়োজন। সংক্রমণ ঠেকাতে লকডাউন কার্যকর ব্যবস্থা হলেও বাস্তবতা হলো তা পুরোপুরি কার্যকর প্রমাণিত হয়নি। লকডাউন হয়েছে কাগুজে আস্ফালন। মাঝামাঝি কোনো ব্যবস্থা সফলতা নয়।

মাস্কের যথাযথ ব্যবহার ও সোশ্যাল ডিসটেন্সিং আমরা এখনো নিশ্চিত করতে পারেনি। লাগাতার লকডাউন একধরনের কুহেলিকা হয়ে বেসরকারি খাতকে আরো ভঙ্গুর হতে বাধ্য করেছে। সেই সাথে বিবেচ্য হওয়া প্রয়োজন তথাকথিত লকডাউনে কার লাভ কার ক্ষতি! কেবল সরকারি ব্যবস্থাপনার সুবিধা বিবেচনা করে সিংহভাগ জনগনের জীবনযাত্রার অবস্থান যাচাই বাছাইয়ের পর উচিত পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া। লেখক ও চিকিৎসক

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত