প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চট্টগ্রাম পাহাড়তলীতে ভাইয়ের হাতে ভাই হত্যাকান্ডের ঘটনায় মূলহোতাসহ ৬ জন গ্রেপ্তার

রিয়াজুর রহমান রিয়াজ : নগরীর পাহাড়তলীর সাগরিকা রোডে মো. কায়সার আহম্মেদ (৪৭) নামে এক ব্যক্তিকে খুনের ঘটনায় জড়িত ৩ সৎ ভাইসহ ৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তার কৃতরা হলেন, মোঃ সাজ্জাদ হোসেন (৪২), মোঃ শওকত আলী (৪৫), হাজী মোঃ আফসার উদ্দিন (৪৭), মোঃ রকিবুল আলম (২৬) ও মোঃ সাগর (২০), মোঃ জুবাইর (২০)।

এদের মধ্যে সাজ্জাদ হোসেন, শওকত আলী ও আফসার উদ্দিন নিহতের সৎ ভাই।

পুলিশ সুএে জানা যায়, ভিকটিম মোঃ কায়সার আহাম্মেদ ও তার সৎভাইদের মধ্যে থাকা দীর্ঘদিনের জায়গা জমি সংক্রান্ত বিষয় সম্পর্কিত বিরোধ কে কেন্দ্র করে আক্রোশবশত পূর্ব পরিকল্পিতভাবে ভিকটিমের সৎভাইদের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ নির্দেশনায় সঙ্গীয় ও অপরাপর ব্যক্তিদের সহযোগিতায় ভিকটিম মোঃ কায়সার আহাম্মেদ (৪৫)কে গত ২৯ এপ্রিল রাত অনুমান ১১:১০ টায় প্রকাশ্যে পাহাড়তলী থানাধীন সিডিএ মার্কেট কাজী মসজিদের পিছনে তাহের সওদাগরের চা পাতার গোডাউনের সামনে পাকা রাস্তার উপর ছুরিকাঘাত করে। তাৎক্ষণিক ভাবে ভিকটিমকে চমেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

শনিবার (১ মে) পাহাড়তলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান ইমাম জানান, কায়সারের সঙ্গে সৎ ভাইদের দীর্ঘদিন যাবত জায়গা-সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ ছিল। সৎ ভাই সাজ্জাদ ও খালতো ভাই মো. রাকিব কায়সারের পরিবারের ক্ষতি করতে সব সময় পরামর্শ করতো। জায়গা-সম্পত্তি বিরোধের কারণে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে কায়সারকে সৎভাইদের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ নির্দেশনায় অন্যান্য আসামীরা হামলা চালিয়ে ছুরিকাঘাতে হত্যা করে।

উক্ত ঘটনার প্রেক্ষিতে পাহাড়তলী থানা পুলিশের একটি চৌকশ দল অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের তৎপর হয়ে থানা এলাকার বিভিন্ন জায়গায় অভিযান পরিচালনা করে ও তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে হত্যাকান্ডের সাথে জরিত আসামীদেরকে গ্রেপ্তার করেন।

গ্রেপ্তারকৃতদের ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তিরা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) রাত পৌনে ১১ টার দিকে নগরের পাহাড়তলী থানার সাগরিকা রোডে কাজী মসজিদের পেছনে আবদুল মোনাফের বাড়িতে জায়গা-সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের জেরে খুন হন মো. কায়সার।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত