প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কেউ কথা শুনেনি, ৭ দিনের লকডাউন যথেষ্ট নয়: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

শিমুল মাহমুদ: [২] লকডাউন কখনো কোনো দেশের জন্য মঙ্গল বয়ে আনে না। সকলের জন্য ক্ষতিকর। পৃথিবীতে কোনো দেশওই লকডাউন ছাড়া করোনা সংক্রমণ কমিয়ে আনতে পারছে না। সম্প্রতি বেসরকারি টেলিভিশনে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এ কথা বলেন।

[৩] মন্ত্রী বলেন, দেশে সংক্রমণের হার আগে যা ছিলো বর্তমানে তার দশগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে রোগীও দশ গুণ বৃদ্ধি বেড়েছে। মৃত্যু একশ অতিক্রম করেছে। এখনো যদি আমরা স্বাস্থ্যবিধি না মানি সে ভুলের মাসুল দিতে হবে। যেটা আমরা এখনো দিচ্ছি।

[৪] তিনি বলেন, আমি মনে করি না ৭ দিনের লকডাউন যথেষ্ট। এ বিষয়টি আমরা সরকার প্রধানকে জানিয়েছি। আমাদের পক্ষ যতোটুকু সম্ভব হয়েছে তা আমরা করছি। এখন মানুষের নিজেদেরও সচেতন হতে হবে।

[৫] স্বাস্থ্য মন্ত্রী বলেন, সব দিক সরকারকে দেখতে হয়। একদিকে করোনা নিয়ন্ত্রন করা আবার জীবিকাও দেখতে হয়। পাশাপাশি আমাদের অর্থনীতিও গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু জীবন ছাড়া তো অর্থনীতি থাকবে না।

[৬] দেশে প্রথম যখন করোনা ভাইরাস সংক্রমিত হয় তখন আমাদের তেমন কোনো প্রস্তুতি ছিলো না। এটা শুধু আমাদের নয়; পৃথিবীর কারো ছিলো না। কারণ এই ভাইরাস একবারে নতুন এর প্রতিকার কারো জানা ছিলো না।

[৭] গত এক বছরের প্রস্ততি জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে ২০০ টির অধিক ল্যাবে ৩৫ হাজারের মতো নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। যেখানে প্রথমে ল্যাব ছিলো শুধু একটি।
বর্তমানে ১০০ টি হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সংযোগ রয়েছে। আরো ৩০ টি হাসপাতালে ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এর মাধ্যমে ১২ হাজার শয্যার অক্সিজেন সুবিধা পাবে। একই সঙ্গে হাইফ্লো নেজাল ক্যানুলা ও ভেন্টিলেটর গুলো চালানো যাবে।

[৮] মন্ত্রী বলেন, প্রথমে আমাদের বেড ছিলো আড়াই হাজার এখন ৫ হাজার বেড হয়েছে। আরো এক হাজার বেড তৈরি হচ্ছে। প্রাইভেট সেক্টরেও এক হাজার বেড ছিলো এটা দুই হাজার করছে। আমাদের হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা ছিলো না, পৃথিবীর কোথাও ছিলো না। এখন প্রায় এক হাজার হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা কাজ করছে। আমরা প্রায় ২০ হাজার লোক নিযোগ দিয়েছি। পাশাপাশি আমাদের ভ্যাকসিনেশন কার্যক্রম শুরু করেছি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত