প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] গুয়ানতানামো বে কারাগার বন্ধ করতে চায় বাইডেন প্রশাসন

রাশিদুল ইসলাম : [২] হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি শুক্রবার জানান, গুয়ানতানামো বে কারাগার বন্ধের বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিল খতিয়ে দেখছে এবং আমাদের লক্ষ্য ওটি বন্ধ করা। এই কারাগার নিয়ে বিশে^ সমালোচনা চলে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে এই কারাগারে জঙ্গি সন্দেহে মানুষকে বন্দী করে অকথ্য নির্যাতন চলে। স্পুটনিক/আরটি/সিএনএন

[৩] ২০১৬ সালের নির্বাচনী প্রচারে সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নির্বাহী আদেশ দিয়ে গুয়ানতানামো কারাগার চালু রাখেন। জর্জ বুশের সময় থেকে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মার্কিন গোয়েন্দারা জঙ্গি সন্দেহে লোকজনকে আটক করে করে এই কারাগারে রেখেছেন। এখনো সেখানে ৪০ জন বন্দী রয়েছে যাদের মধ্যে ২৬ জনকে ভয়ংকর জঙ্গি, দাবি মার্কিন প্রশাসনের। তাদের মধ্যে নাইন/ইলেভেনের মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে সন্দেহভাজন খালিদ শেখ মোহাম্মদ, ওসামা বিন লাদেনের দেহরক্ষী মোহাথ হামজা আহমেদ আল আলাভি অন্যতম।

[৪] ৯/১১-এর পর ‘জঙ্গিদের’ আটক রাখতে ২০০২ সালের জানুয়ারিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ দক্ষিণ কিউবায় মার্কিন সেনাঘাঁটিতে কারাগারটি চালু করেন। ১৯০৩ সালের হাভানা চুক্তির আওতায় কিউবা থেকে ইজারা নিয়ে মার্কিন ঘাঁটিটি স্থাপন করা হয়। কারাগারটিতে খাঁচার ভেতর বেড়ি ও হাতকড়া পরা কয়েদিদের ছবি দেখে তা সারাবিশে^ ঘৃণার প্রতীক হিসেবে পরিচিতি পায়।

[৫] সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা কারাগারটি বন্ধ করার কথা বললেও কংগ্রেস এতে বাধ সাধে। বর্তমান মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন কারাগারটি বন্ধের পক্ষাপাতি এবং দৃঢ় সমর্থন দিচ্ছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত