প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সাঈদ খোকনের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার করে নেওয়ার আহ্বান তাপসের

সুজিৎ নন্দী ও মহসীন কবির: [৩] সাঈদ খোকনের বিরুদ্ধে মানহানির মামলার আবেদন অতি উৎসাহী কিছু ব্যক্তি করেছেন বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস। মামলার আবেদন প্রত্যাহার করতে আবেদনকারীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুরে নগরভবনে সাকরাইন (ঘুড়ি উৎসব) নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

[৪] মেয়র মোহাম্মদ হানিফ মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মেয়র তাপস বলেন, গতকাল যে দুটি মামলার আবেদন হয়েছে, তার সঙ্গে তিনি কোনোভাবেই সম্পৃক্ত নন। সেগুলো অতি উৎসাহী কিছু ব্যক্তি তার অনুমতি ছাড়াই করেছেন। তিনি আশা করেন, তারা এই মামলাগুলো প্রত্যাহার করবেন।

[৫] মেয়র তাপস বলেছেন, অনেকে অনেক রকম মন্তব্য করতে পারেন। দায়িত্বশীল পদে যিনি থাকেন, তাকে নিয়ে নানা মন্তব্য আসতে পারে। সব মন্তব্য তো আর গুরুত্ব বহন করে না। সেটার পরিপ্রেক্ষিতে মন্তব্য করাও সমীচীন না।

[৬] সাঈদ খোকনের সঙ্গে পাল্টাপাল্টি বক্তব্য প্রসঙ্গে মেয়র তাপস বলেন, এটা আসলে হাস্যকর হয়ে গেছে। এ বিষয়ে কথা বলা সমীচীন নয়। কারণ, আমি একটি দায়িত্বশীল পদে রয়েছি।

[৭] ঢাকা দক্ষিণ সিটির মেয়র বলেন, সাবেক মেয়র আমাকে ব্যক্তিগতভাবে আক্রোশের বশবর্তী হয়ে যে আক্রমণাত্মক বক্তব্য দিয়েছেন, সেটা মানহানিকর হয়েছে বলে প্রতীয়মান হয়। এটা আমি গতকাল উল্লেখ করেছি। সেই পরিপ্রেক্ষিতে আমরা পর্যালোচনা করছি। ভবিষ্যতে প্রয়োজনবোধ করলে মামলা হতে পারে। সেটাই আমি গতদিনও বলেছি।

[৮] মধুমতি ব্যাংকে সিটি করপোরেশনের টাকা হস্তান্তর প্রসঙ্গে মেয়র তাপস বলেন, মধুমতি ব্যাংকে টাকা হস্তান্তর নিয়ে যে তথ্য দেওয়া হয়েছে, তা বিভ্রান্তিকর। মধুমতি ব্যাংক সাত বছর ধরে অত্যন্ত সুনামের সঙ্গে পরিচালিত হচ্ছে। তিনি দায়িত্বভার গ্রহণের আগেও মধুমতি ব্যাংকের সঙ্গে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ব্যবসায়িক বা সেবামূলক লেনদেন ছিল। আমানত হিসেবে দক্ষিণ সিটির অর্থ মধুমতি ব্যাংকে ছিল, এখনো আছে।

[৯] ঢাকা দক্ষিণ সিটির মেয়র বলেন, গত ছয় মাসে যে বাজেট দিয়েছিলাম, আমরা রেকর্ড পরিমাণ রাজস্ব আহরণ করতে পেরেছি। এই করোনা মহামারির মধ্যে ৩৪৪ কোটি টাকা রাজস্ব আদায় করেছে সিটি করপোরেশন। আমরা যে লক্ষ্য নির্ধারণ করেছি, সেই লক্ষ্য পূরণে আমরা ব্যস্ত রয়েছি। আমাদের অনেক কাজ রয়েছে। আমাদের আরও কাজ করার সুযোগ দেবেন। ভুল হলে সেগুলো আমাদের দেখিয়ে দেবেন। কিন্তু এ রকম অনভিপ্রেত বিষয় নিয়ে সময়ক্ষেপণ করার সময় নেই।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত