প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

উদিসা ইসলাম: ফিরে দেখা, ২৭ ডিসেম্বর ২০২০ বঙ্গবন্ধুর ওপর বিশ্বাস হারায়নি নিগৃহীত মানুষেরা

উদিসা ইসলাম: বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে ১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন, আজ পড়ুন ‘আমাদের নতুন সময়’ ওই বছরের ২৭ ডিসেম্বরের ঘটনা। ফরিদপুর জেলা সফরকালে কমপক্ষে ১০ লাখ লোকের সঙ্গে প্রত্যক্ষ সংযোগ স্থাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বঙ্গবন্ধুর সফরসঙ্গী এনার বিশেষ প্রতিনিধি এক প্রতিবেদনে এ কথা উল্লেখ করেন। তিনি লিখেছেন, বঙ্গবন্ধু যেখানে গেছেন সেখানে জিন্দাবাদ স্লোগানে চারপাশ মুখরিত হয়ে উঠেছে। এতে বলা হয়, মানুষের অকৃত্রিম ভালবাসা আর স্বার্থহীন আবেগ দেখে অভিভূত বঙ্গবন্ধুর চোখের কোনে অশ্রু টলমল দেখা গেছে ।

তিনি দেখলেন, যেসব অবহেলিত-নিগৃহীত মানুষের জন্য তিনি সংগ্রাম করেছেন, দুঃখ-কষ্ট ভোগ করেছেন, যৌবনের অমূল্য দিনগুলো ত্যাগ করেছেন তারা কখনও তার ওপর বিশ্বাস হারায়নি। জনসভার যাত্রাপথে সবখানে শুধু মানুষ আর মানুষ। বার্ধক্যের ভারে নুয়ে পড়া, ছিন্নবস্ত্র পরিহিত যুবক, অশ্রুসজল বিধবা সবাই তাকে দেখতে এসেছে। তারা বলতে এসেছে তাদের দুঃখের কথা, জানাতে এসেছে ইয়াহিয়ার পশু সেনাদের নির্যাতনের কথা। বঙ্গবন্ধু ব্যক্তিগতভাবে তাদের কাহিনী শুনেছেন, সমস্যার সমাধানের পথ বলেছেন। সার্কিট হাউজগুলোতে গভীর রাত পর্যন্ত জনতা পরিবৃত হয়ে থেকেছে। শ্রান্ত-ক্লান্ত কাউকে তিনি হতাশ করেননি। বঙ্গবন্ধু থাকা পর্যন্ত এসব সার্কিট হাউসে জননিরাপত্তার বাধ্যবাধকতা বলতে কিছু ছিল না, এগুলো তখন গণভবনে পরিণত হয়েছিল। বরিশালে যাবেন ২ জানুয়ারি : ফরিদপুরের পর বরিশাল সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বীরোচিত সংবর্ধনা জ্ঞাপনের বরিশালে ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে সেখানে। তিনি ২ জানুয়ারি সেখানে যাবেন বলে এক সভায় ভূমি সংস্কার ও ভূমি প্রশাসনমন্ত্রী আব্দুর রব সেরনিয়াবাতকে চেয়ারম্যান করে একটি কমিটিও গঠন করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর বাণী : প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঢাকা পোস্ট গ্রাজুয়েট মেডিসিন ইনস্টিটিউটের দুই সপ্তাহবাপী পল্লী স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা প্রশিক্ষণ সেমিনার উপলক্ষে এক বাণীতে, গ্রামের জনসাধারণের চিকিৎসা ব্যবস্থার সামগ্রিক উন্নতি বিধানে কার্যকরী পন্থা নির্ধারণের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। প্রধানমন্ত্রী সেমিনারের সাফল্য কামনা করে বাণীতে বলেন, এই প্রশিক্ষণের ফলে গণমুখী চিকিৎসার সরকারি নীতি বাস্তবায়নের পথে অনেক অগ্রসর হবে বলে আমার বিশ্বাস। তিনি আরও বলেন, আমি আশা করি, এই প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাপকেরা বাংলাদেশের প্রত্যেক গ্রামে গ্রামে জনসাধারণের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার সামগ্রিক উন্নতি বিধানে কার্যকরী পন্থা নির্ধারণ করবেন। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন কারা পাবে? জনগণের আশা-আকাক্সক্ষা তুলে ধরতে সক্ষম লোকদেরই আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনয়ন দেবে বলে জানান ত্রাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রী জনাব এ এইচ এম কামরুজ্জামান।

তিনি বলেন, সাধারণ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সব নিঃস্বার্থ, যোগ্য ও দেশপ্রেমিক কর্মী মনোনয়ন দেবে। যারা প্রথম জাতীয় আইনসভায় জনগণের আশা-আকাক্সক্ষা সত্যিকারভাবে তুলে ধরতে পারবে। নির্বাচনের ৭০ দিন আগে রাজশাহীতে এক জনসভায় তিনি বলেন, তার সরকার কিংবা তার দল কোনোদিন দুর্নীতি বা দুর্নীতিপরায়ণ ব্যক্তিকে প্রশ্রয় দান করেনি, করবেও না। তিনি জনগণকে স্মরণ করিয়ে দেন, তার দল জনগণের স্বার্থরক্ষার জন্য ইতোমধ্যে দুর্নীতির অভিযোগে ৫০ জনের বেশি নেতাকে বহিষ্কার করেছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত