প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গোয়াল‌ন্দের শীতকালীন সব‌জি চাষ করে ভাগ্য বদলের স্বপ্ন দেখছেন কৃষকরা

মো. ইউসুফ মিয়া : আকাশে সাদা- কালো মেঘের ভেলা। প্রকৃতি জানান দিচ্ছে পৌষের উপস্থিতি। কিন্তুু দেরি সইছে না চাষিদের। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত চাষিরা লোকসান পুষিয়ে নিতে আগাম টমেটো সহ অন্যন্যা সবজি চাষে ঝুকছেন। ভালো বাজারদর পেতে শীতকালীন সবজি বাজারে তুলতে এখনই মরিয়া হয়ে উঠেছেন গোয়ালন্দ উপজেলা কৃষিজী‌দের এক মাত্র সম্ভল হ‌লো জমিচাষ ক‌রে জীব‌নের আলো ফু‌টি‌য়ে তোলার জ‌ন্যে।

জেলার গোয়াল‌ন্দে উপ‌জেলার কৃ‌ষিজিবী‌দের স‌ঙ্গে স‌রেজমী‌নে গিয়ে দেখা গেছে, বিগত বছ‌রে বন্যায় সবজিক্ষেত নষ্ট হয়ে গেছে। বর্ষাকালীন সবজি লাউ, কুমরা, করলা, শশা চাষ করে লোকসান গুণতে হয়েছে তাদের। এ বছর বন্যায় তাদের সর্বশান্ত করে রেখে গেছে। নতুন করে ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য আগাম টমেটো,পেয়াজ,করলা,কফি,কাঁচা মরিচ, বেগুন, রসুন চাষ করে ভাগ্য বদলের স্বপ্ন দেখছেন এসব কৃষকেরা। ওই সব এলাকার শত শত হেক্টর জমিতে এ সমস্ত সবজি চাষে ব্যাস্ত সময় পার করছেন তারা। রাত-দিন সমান তালে ক্ষেতের পরিচর্যায় সময় পার করছেন। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে আগাম সবজি চাষের মাধ্যমে বন্যার ক্ষতি কাটিয়ে ওঠার আশাবাদ ব্যক্ত করেন তারা।

উপজেলা দৌলতদিয়া ইউনিয়নের ছুরাপ মন্ডলের গ্রামের টমেটো সহ বিভিন্ন সবজি চাষি কৃষক করিম ব্যাপারী বলেন, তিনি ১২ বিঘা জমিতে টমেটো,বেগুন ২ বিঘা,পাতা কফি ২ বিঘা, কাঁচা মরিচ ১ বিঘা, পেয়াজ ৫ বিঘা, ভুট্টা ৪ বিঘা, গম ১ বিঘা,রসুন ২ বিঘা ও করলা আড়াই বিঘা চাষ করেছেন। এছাড়াও উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের কয়েক হাজার কৃষক এ বছর ব্যাপক ভাবে জমিতে আগাম উচ্চফলনশীল জাতের টমেটো সহ বিভিন্ন ধরনের সবজি আবাদ করেছেন। কিন্তুু ফলন ভালো হলেও পেয়াজ ও টমেটোর দাম টা একটু বেশী পেলেও অন্যন্যা সবজির দামে কৃষকেরা হতাশ হয়ে পড়েছেন। মূলত কৃষি কাজে নির্ভরশীল এই এলাকার মানুষ। এই এলাকায় চাষিদের আবাদকৃত সবজি ঢাকা সহ আশপাশের শহরে চাহিদা মেটাতে পাঠানো হয়ে থাকে।

উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ রকিবুল ইসলাম জানান, এ বছরে গোয়ালন্দ উপজেলায় প্রায় ১০৫০ হেক্টর সবজি আবাদ করেছে কৃষকেরা। তাছাড়া শীত কালীন সবজি প্রায় ১৫৩০ লক্ষ্য মাত্রায় রয়েছে। কৃষিকাজে এখানকার চাষিরা বেশ তৎপর। বিশেষ করে সবজি চাষে চাষিরা বেশ সাফল্য এনেছেন। আগাম টমেটো সহ নানান প্রকারের সবজি চাষের দিনদিন চাষিরা বেশী ঝুঁকছেন। স্থানীয় কৃষি অফিস থেকে চাষিদের মাঝে বিনা মূল্যে বীজ, সার, কীটনাশকসহ নানা কৃষি উপকরণ দেওয়া হয়। পাশাপাশি জন্য সবধরণের সবজি চাষের জন্য পরামর্শ ও সহায়তা দেওয়া হয়ে থাকে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত