প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ”জয় বাংলা’ শ্লোগান আর ধর্মনিরপেক্ষতা নিয়ে যেভাবে বিভক্তি

হ্যাপি আক্তার: [২] ‘জয় বাংলা’ মুক্তিযুদ্ধের শ্লোগান। এই শ্লোগান কীভাবে দেশে হয়েছিলো এ নিয়ে রয়েছে নানান আলোচনা। বিশ্লেষকরা মনে করেন, বাঙালি জাতীয়তাবাদ এবং ধর্মনিরপেক্ষতার নীতি যখন বদলে গেছে, তখন দেশ একেবারে উল্টোপথে হেটেছে। তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, বিভক্তির রাজনীতি থেকে মুক্তিযুদ্ধের শ্লোগানকে দলীয় শ্লোগান হিসাবে দেখিয়ে বিতর্কিত করা হয়েছে। বিসিসি বাংলা

[৩]  স্বাধীন বাংলাদেশে অল্প সময়ের মধ্যেই ঐক্যে ভাঙন ধরে। রাজনৈতিক বিভক্তির বড় উদাহরণ হয়ে দাঁড়ায় দু’টি শ্লোগান ‘জয় বাংলা’ এবং ‘বাংলাদেশ জিন্দাবাদ।’

[৪]  ৬৯-এর গণঅভ্যূত্থান এবং এখন আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতা তোফায়েল আহমেদ বলেন, “স্বাধীনতার পরও আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে জয়বাংলা শ্লোগান দিতাম। কিন্তু পরে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল হওয়ার পর সেই শ্লোগান দেয়া বন্ধ করে। এরপরে বিভিন্ন দল এটাকে দলীয় শ্লোগান হিসাবে চিহ্নিত করে। এটা দুর্ভাগ্যজনক।”

[৫] মুক্তিযুদ্ধের মূল ভিত্তির কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের মূল ভিত্তিগুলো নিয়ে বিভক্তির রাজনীতির কারণে উগ্র শক্তিগুলো এখন মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে এর ভিত্তি করে দেয়া হয়েছিলো সংশোধনীর মাধ্যমে। যদিও শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ ২০০৯ সালে দ্বিতীয় দফায় সরকারে এসে ৭২ এর সংবিধানের অনেক বিষয় ফেরত এনেছে। কিন্তু বিসমিল্লাহ এবং রাষ্ট্র ধর্ম ইসলাম – এই দু’টি বিষয়ে তারা হাত দিতে পারেনি।

[৬]  জাসদের একাংশের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আকতার বলেন, সদ্য স্বাধীন দেশে মতাদর্শের পার্থক্য নিয়ে ছিলো তাদের রাজনীতি। মুক্তিযুদ্ধের ভিত্তি নিয়ে তারা কখনও কোনো প্রশ্ন তোলেননি বলে দাবি করেন তিনি।

[৭]  সমাজতন্ত্রের আন্দোলন এগিয়ে নিতে বাঙালি জাতীয়তাবাদ ও ধর্মনিরপেক্ষতার লড়াইকে ঐক্যবদ্ধভাবে চালিয়ে যেতে হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

[৮] রাজনৈতিক বিশ্লেষক অধ্যাপক রওনক জাহান বলেন, ১৯৭০ এর নির্বাচন এবং পরে মুক্তিযুদ্ধেও জনগোষ্ঠীর একটা অংশ বিরোধিতা করেছিল। ৭৫ এর পট পরিবর্তনের পর রাষ্ট্রের সেই শক্তিকে সাথে নিয়ে তখন সামরিক শাসকরা বিভক্তির রাজনীতির বিস্তার ঘটিয়েছেন বলে তিনি উল্লেখ করেন তিনি।

[৯] বিএনপি নেতা  মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, স্বাধীনতার পর প্রত্যাশা এবং প্রাপ্তির মধ্যে অনেক ফারাক ছিলো এবং সে কারণেই হতাশা থেকে পরিস্থিতি ভিন্ন দিকে যেতে শুরু করে। তাদের (আ.লীগ) যে ঐ একক চিন্তাভাবনা ছিলো যে মুক্তিযুদ্ধের একক কৃতিত্বই আমাদের। এই ধারনার সৃষ্টির কারণেই বিভক্তি প্রসারিত হয়েছে।

[১০] আওয়ামী লীগ ও বিএনপি দুই দলের নেতারাই স্বীকার করেন, বিভক্তির রাজনীতির সুযোগে ধর্মভিত্তিক রাজনীতি এবং উগ্রতার বিস্তার ঘটছে। কিন্তু দেশের এখনকার বাস্তবতায় বাঙালি জাতীয়তাবাদ এবং ধর্মনিরপেক্ষতার নীতিতে আবারও ঐকমত্য হওয়া সম্ভব নয় বলে মনে করেন তারা।

 

 

 

 

 

 

 

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত