প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ফায়ার সার্ভিসের অর্গানোগ্রাম ঢেলে সাজানোর বিষয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত

সুজন কৈরী : [২] জনবল ও সাজ-সরঞ্জাম কাঠামো যুগোপযোগী করার লক্ষ্যে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের অর্গানোগ্রাম ঢেলে সাজানোর প্রস্তুতির অংশ হিসেবে ঢাকাস্থ ইন্টার কনটিনেন্টাল হোটেলে মঙ্গলবার একটি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী যুগের চাহিদার আলোকে সংস্থার ‘ভেলিডেশন ওয়ার্কশপ অন ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স রিফর্ম ইনিশিয়েটিভ’ শিরোনামের কর্মশালাটি অনুষ্ঠিত হয়।

[৩] ফায়ার সার্ভিসের মিডিয়া সেলের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শাহজাহান শিকদার স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব মো. শহিদুজ্জামান এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন ইউএনডিপি বাংলাদেশের ডেপুটি রেসিডেন্ট রিপ্রেজেনটেটিভ মিজ নায়েন থি ভান। সভাপতিত্ব করেন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সাজ্জাদ হোসাইন।

[৪] ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ট্রেনিং কমপ্লেক্সের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ বাবুল চক্রবর্তীর সঞ্চালনায় কর্মশালায় সূচনা বক্তব্য দেন অধিদপ্তরের পরিচালক (প্রশিক্ষণ, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) লে. কর্নেল এস এম জুলফিকার রহমান। কর্মশালায় স্বরাষ্ট্র, জনপ্রশাসন, অর্থ, আইন ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, রাজউক, সিটি করপোরেশনসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয় এবং প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন।

[৫] অধিদপ্তরের জনবল ও সাজ-সরঞ্জামের সাংগঠনিক কাঠামো ঢেলে সাজানোর সম্ভাব্যতা ও প্রয়োজনীয়তা ও প্রস্তুতির বিষয়ে ধারণা সৃষ্টির উদ্দেশ্যে কর্মশালায় দুটি কি-নোট পেপার প্রেজেন্ট করা হয়। ‘ফায়ার রিস্ক অ্যাসেসমেন্ট’ বিষয়ে কি-নোট প্রেজেন্ট করেন বুয়েটের প্রফেসর ড. মো. মাকসুদ হেলালী এবং ‘অর্গানোগ্রাম অ্যান্ড ইকুইপমেন্ট’ বিষয়ে কি-নোট উপস্থাপন করেন ফায়ার সার্ভিসের সাবেক মহাপরিচালক এবং ইউএনডিপির কনসালটেন্ট ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আবু নাঈম মো. শাহিদউল্লাহ।

[৬] উপস্থাপিত কি-নোট ও কর্মশালার বিষয়বস্তু সম্পর্কে উন্মুক্ত আলোচনায় অংশ নিয়ে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিরা তাদের মতামত ও পরামর্শ তুলে ধরেন। কর্মশালার সভাপতি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাজ্জাদ হোসাইন মতামতের জন্য সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং তা অর্গানোগ্রাম রিফর্ম করার প্রস্তাবে সন্নিবেশ করার বিষয়ে উদ্যোগ গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেন।

[৭] উল্লেখ্য, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরে বর্তমানে ১৩ হাজার জনবল রয়েছে। এটিকে ২৫ হাজারে উন্নীত করতে এই প্রস্তাবে প্রয়োজনীয় সংখ্যক গাড়ি-পাম্প এবং সাজ-সরঞ্জাম বৃদ্ধির প্রস্তাবও অন্তর্ভুক্ত থাকবে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত