প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে প্রতিবন্ধীদের মেধা কাজে লাগাতে হবে, বাণীতে রাষ্ট্রপতি

অনলাইন ডেস্ক : রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, উপযুক্ত সেবা, চিকিৎসা, শিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও সহায়ক উপকরণ পেলে প্রতিবন্ধীরাও সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখতে সক্ষম।

২৯তম আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস ও ২২তম জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস উপলক্ষে বুধবার দেওয়া এক বাণীতে তিনি এ কথা বলেন। আজ ৩ ডিসেম্বর, আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস ও ২২তম জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস। এবারের আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবসের প্রতিপাদ্য ‘কোভিড-১৯ প্রেক্ষাপটে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে সম্পৃক্ত করি, নতুনভাবে টেকসই বিশ্ব গড়ি’।

রাষ্ট্রপতি বলেন, প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠীর বিশেষ চাহিদা পূরণে ও তাদের অধিকার রক্ষায় সমাজের সকল শ্রেণির মানুষকে আন্তরিক হতে হবে। মনে রাখতে হবে, প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠী আমাদের সমাজেরই অংশ। উপযুক্ত সেবা, চিকিৎসা, শিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও সহায়ক উপকরণ পেলে তারাও সামাজের বিভিন্নক্ষেত্রে অবদান রাখতে সক্ষম। দেশের উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মেধা ও সৃজনশীলতাকে যথাযথভাবে কাজে লাগাতে হবে।
আবদুল হামিদ বলেন, সরকার ইতোমধ্যে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সুরক্ষা নিশ্চিতকরণে প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষা আইন, ২০১৩; নিউরো ডেভেলপমেন্টাল প্রতিবন্ধী সুরক্ষা ট্রাস্ট আইন, ২০১৩; বাংলাদেশ রিহ্যাবিলিটেশন কাউন্সিল আইন, ২০১৮ এবং প্রতিবন্ধিতা সম্পর্কিত সমন্বিত বিশেষ শিক্ষা নীতিমালা, ২০১৯ প্রণয়ন করেছে। এ সকল আইন ও বিধিবিধানের আলোকে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মৌলিক চাহিদাপূরণ, ক্ষমতায়ন এবং দেশের অন্যান্য জনগণের ন্যায় সমঅধিকার নিশ্চিতকরণে সরকার বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করছে। ফলে এদেশের প্রতিবন্ধী জনগণ উপযুক্ত শিক্ষা এবং প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষতা উন্নয়ন ও কর্মসংস্থান/স্বনির্ভরতা অর্জনের মাধ্যমে দেশের উন্নয়নের মূল স্রোতধারায় নিজেদের সম্পৃক্ত করতে পারবেন বলে আমার বিশ্বাস।

রাষ্ট্রপতি বলেন, কোভিড-১৯ মহামারি প্রতিরোধে সরকারের সময়োপযোগী পদক্ষেপ গ্রহণের ফলে আমাদের দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্তের হার তুলনামূলকভাবে কম। সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে মাস্ক পরিধান, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য তিনি সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত