প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কাশ্মীর নিয়ে সরব হচ্ছে ওআইসি, ক্ষুদ্ধ ভারত

ডেস্ক রিপোর্ট : পশ্চিম আফ্রিকার দেশ নাইজারে ৫৭টি মুসলিম দেশের জোট ওআইসির পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের দুদিনের এক বৈঠকে শনিবার সর্বসম্মতভাবে একটি প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে যাতে ভারতের সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলকে বেশ শক্ত ভাষায় নিন্দা করা হয়েছে। খবর বিবিসি বাংলার।

এমনকি গত বছর ৫ আগস্টের ওই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের জন্যও ভারতকে আহ্বান জানানো হয়েছে। একই সঙ্গে ভারতশাসিত কাশ্মীরে মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে ওআইসির প্রস্তাবে।

কাশ্মীরে ‘ভুয়া এনকাউন্টার’ করে বিচারবহির্ভূত হত্যা, ‘তল্লাশি ও ঘেরাও’ অভিযান এবং শাস্তির কৌশল হিসেবে কাশ্মীরিদের ঘরবাড়ি এবং ব্যক্তিগত সম্পত্তি গুঁড়িয়ে দেয়া, সাধারণ মানুষের ওপর ‘পেলেট’ বুলেট ছোঁড়া এবং ‘ভারতীয় সৈন্যদের হাতে কাশ্মীরী নারীদের হেনস্থার’ নিন্দা করা হয়েছে।

ভারত যেভাবে কাশ্মীরে ‘আন্তর্জাতিক এবং আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন লঙ্ঘন করছে, আন্তর্জাতিক প্রস্তাব অগ্রাহ্য করছে’ তার বিবেচনায় ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক ‘পুনর্বিবেচনা’ করতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে ওআইসির প্রস্তাবে।

ওআইসি আবারও বলেছে, কাশ্মীর একটি অমীমাংসিত ইস্যু এবং ‘নিজেদের ভাগ্য নির্ধারণে কাশ্মীরীদের অধিকারের বিষয়টি জাতিসংঘের এজেন্ডাতে থাকলেও গত ৭০ বছর ধরে অমীমাংসিত রয়ে গেছে।’ পাকিস্তান গত দেড় বছর ধরে ওআইসিকে কাশ্মীর নিয়ে একটি বিবৃতি দেওয়ার জন্য চাপাচাপি করছিল, ফলে শনিবারের এই প্রস্তাবে তার খুশি।

কিন্তু ভারত সরকার তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। ওআইসির প্রস্তাব নিয়ে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে যে বিবৃতি জারি করা হয়েছে তার ভাষা খুবই কড়া। ভারতের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কেন্দ্রশাসিত জম্মু ও কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ এবং আমরা সব সময় বলেছি ভারতের যেকোনো অভ্যন্তরীণ ইস্যু নিয়ে কথা বলার কোনও এখতিয়ার ওআইসির নেই।
বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ওআইসির প্রস্তাবে ভারতকে নিয়ে যেসব কথা বলা হয়েছে তা ‘তথ্যগতভাবে ভুল এবং অনভিপ্রেত’ ফলে ওইসব বক্তব্য ভারত ‘পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করছে।’

দিল্লিতে বিবিসির বাংলার শুভজ্যোতি ঘোষ বলছেন, ভারত সরকার ক্ষুব্ধ, কিন্তু সেইসাথে ওআইসির এই বিবৃতিতে কিছুটা বিস্মিত এবং বিব্রত। তিনি বলেন, ভারত আশা করেছিল কাশ্মীর নিয়ে ওআইসির বৈঠকে কোনও বিবৃতি আসবে না কারণ এটি বৈঠকের এজেন্ডাতেই ছিল না।

সে কারণে এই বিবৃতি ভারতের পররাষ্ট্র দপ্তরের কাছে কিছুটা অপ্রত্যাশিত ছিল। কর্মকর্তারা কিছুটা বিব্রতও বটে কারণ তারা মনে করেন ওআইসি জোট কী বললো না বললো তার কিছুটা প্রতীকী গুরুত্ব তো রয়েছেই।

তবে শুভজ্যোতি ঘোষ বলছেন, ভারতের কূটনীতিকরা মনে করেন সৌদি আরব বা ইউএই’র সঙ্গে তাদের এখন যে সম্পর্ক তাতে মুসলিম এবং আরব বিশ্ব থেকে কাশ্মীর নিয়ে তেমন কোনো চাপ আসবে বলে তারা মনে করেন না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত