প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আহসান হাবিব: ভোকাল কর্ডের বদলে যাওয়া

আহসান হাবিব: সংগীত পরিবেশনের সময় আপনি যতো উপরের দিকে স্বর বা নোট লাগাবেন অর্থাৎ পিচ যতো বাড়তে থাকবে, আপনার ভোকাল কর্ড ততো চিকন হয়ে আসবে। তার ভর কমে আসবে, ফলে তাকে স্পন্দিত করতে প্রয়োজন হবে কম বাতাস। এটা ঘটবে আপনি যদি উপরের পিচে স্বাভাবিক কথা বলার ভঙ্গি বজায় রাখতে পারেন। কী ঘটে তখন? পিচ বাড়তে বাড়তে এক সময় দেখা যাবে ভোকাল কর্ড আর প্রসারিত হচ্ছে না। তখন বেশ কিছু চমকপ্রদ ঘটনা ঘটে। ভোকাল কর্ড কিছু মাংসপেশি, লিগামেন্ট এবং মিউকাস মেমব্রেনের গুচ্ছ, এটা যুক্ত থাকে অস্থির সঙ্গে এবং স্বরনালির ভেতর ঝুলে থাকে। নীরব অবস্থায় বাতাস এর ভেতর দিয়ে বাতাস চলাচল করে। কথা বলার ইচ্ছা হলেই দুদিক থেকে তারা মুখোমুখি চলে আসে এবং বাতাস আটকে ফেলে। গান গাওয়ার সময় পিচ বাড়তে থাকলে ভোকাল কর্ডের প্রসারণ একসময় থেমে যায়, তখন দেখা যা এর প্রান্তের অর্থাৎ স্বরনালীর ভেতরের দিকে ঝুলে থাকা এক তৃতীয়াংশ কেবল স্পন্দিত হতে থাকে এবং অস্থির সঙ্গে লেগে থাকা দুই তৃতীয়াংশ স্থির হয়ে পড়ে। বিষয়টি বুঝার জন্য একটা উদাহরণ দিই- প্রচণ্ড ঝড়ে শাখায় লেগে থাকা একটি পাতার দিকে খেয়াল করুণ, দেখবেন এইসময় পাতাটির শুধু প্রান্তের দিক নড়ছে, শাখায় লেগে থাকা অংশ স্থির হয়ে গেছে।

ঠিক তেমনি এই সময় ভোকাল কর্ড তার স্পন্দিত হওয়ার দৈর্ঘ্য কমিয়ে ফেলে। তাই আপনি যদি এই সময় উপরের নোট লাগানো অব্যাহত রাখেন, বাতাসের প্রয়োজন হবে খুব অল্প, কেননা তখন অল্প বাতাসেই দৈর্ঘ্য কমে যাওয়া ভোকাল কর্ড স্পন্দিত হতে থাকবে। এই পরিবর্তন ঘটে আপনা আপনি। তখন বুক, গলা এবং মাথা থেকে উৎপন্ন ধ্বনি একই রেখায় চলে আসবে। মনে রাখবেন, শুধু বুক ও গলার পরিধি থেকে উৎপন্ন ধ্বনি দিয়ে গান গাইলে সে গান শ্রুতিমধুর হয় না। যদি না মাথা থেকে উৎপন্ন ধ্বনি এদের সঙ্গে যুক্ত হয়। কণ্ঠের মাধুর্য এখানেই নিহিত। পিচ উপরে উঠার সময় ভোকাল কর্ডের এই বদলে যাওয়া বৈশিষ্ট্যের কথা মাথায় রাখুন। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত