প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মারা যাওয়া সদস্যদের পরিবারের পাশে সবসময় থাকবে জাতীয় প্রেস ক্লাব

সমীরণ রায় : [২] জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলম বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে প্রেস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আনন্দ করার চেয়ে হারানো সদস্যদের স্মরণ করা জরুরি। কারণ ক্লাবের সদস্য মৃত্যুবরণ করলে ক্লাব চত্বর থেকে তাদের বিদায় জানানো হয়। কিন্তু এবার করোনার কারণে তা সম্ভব হয়নি। তাই এ বছর হারানো সদস্যদের স্মরণ করা প্রেস ক্লাবেরপ্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর একটা অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে। শুধু তাদের স্মরণ করেই দায়িত্ব শেষ করতে চাই না। তাদের পরিবারের পাশে থাকতে চাই।

[৩] রোববার জাতীয় প্রেস ক্লাবে ৬৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এ বছর প্রয়াত ১৮ সদস্যদের স্মরণসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

[৪] সিনিয়র সাংবাদিক ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, জাতীয় প্রেসক্লাবকে সেকেন্ড হোম মনে করি। যারা আমাদের মধ্যে নেই তাদের পরিবারের সঙ্গে সৌহার্দ্য থাকবে, তারা আসবেন ক্লাবে। মিলেমিশে সুখ-দুঃখ ভাগাভাগি করে নিতে চাই।

[৫] জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, ৬৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে প্রয়াত সদস্যদের স্মরণে স্মরণ সভার আয়োজন এতোটা কষ্টের- বেদনার জানা ছিল না। তবে যারা ছেড়ে চলে গেছেন, তাদের দেখানো পথ, শেখানো সাংবাদিকতা চলার পাথেয় হয়ে থাকবে।

[৬] প্রেস ক্লাবের কোষাধ্যক্ষ শ্যামল দত্তের সঞ্চালনায় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. ওমর ফারুক, সহ-সভাপতি আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া, সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, যুগ্ম-সম্পাদক মাঈনুল ইসলাম প্রমুখ।

[৭] ২০২০ সালে প্রেস ক্লাব হারিয়েছে যাদের-বাসসের সাবেক প্রধান সম্পাদক ডিপি বড়ুয়া, সাংবাদিক রাহাত খান, নুরুদ্দিন ভূঁইয়া, দেশবাংলার সম্পাদক ফেরদৌস আহমেদ কোরেশী, নিউজ টুডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু জাফর পান্না, বাসসের ফজলুন নাজিমা খানম, কবি মুশাররাফ করিম, কাজী মো. শামসুল হুদা, আমার দিনের সম্পাদক রাশীদ উন নবী, মাশুক চৌধুরী, আবদুল্লাহ এম হাসান, রওশন উজ জামান, ফারুক কাজী, আহসান হামিদ, খোন্দকার মোজাম্মেল হক, খোন্দকার মুহিতুল ইসলাম, আবদুস শহিদ ও আসলাম রহমান।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত