প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] দলবদ্ধ ধর্ষণ মামলার এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৭

রাজু চৌধুরী : [২] চট্টগ্রাম জেলার পটিয়া থানাধীন কোলাগাঁও বড়ুয়াপাড়া এলাকার চাঞ্চল্যকর দলবদ্ধধর্ষণ মামলার অন্যতম মূলহোতা ধর্ষক মন্টু’কে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৭।

[৩] বৃহস্পতিবার র‌্যাব এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার, সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মোঃ মাহ্মুদুল হাসান মামুন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ০৯ সেপ্টেম্বর বুধবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম মহানগরীর ইপিজেড থানাধীন সল্টগোলা এলাকায় অভিযান চালিয়ে পটিয়া থানাধীন কোলাগাঁও এলাকার চাঞ্চল্যকর নববধূ গণধর্ষন মামলার আসামি ঘটনার অন্যতম মূলহোতা ধর্ষক মোঃ আবু তাহের প্রকাশ মন্টু (৩০)’কে গ্রেফতার করেছে।

[৪] তিনি জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে অন্য সহযোগীদের নিয়ে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। উল্লেখ্য যে, এই ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত অন্য ০২ (দুই) ধর্ষক জুয়েল (২৮) এবং মিন্টু (৩৩)’কে গত ১৮ জুন ২০২০ খ্রিঃ তারিখে গ্রেপ্তার করে পটিয়া থানায় হস্তান্তর করেছিল র‌্যাব-৭। গত ০৭ জুন ২০২০ খ্রিঃ তারিখ সন্ধ্যার পরে চট্টগ্রাম জেলায় পটিয়া থানাধীন কোলাগাঁও বড়ুয়া পাড়ায় হান্নান, মন্টু, জুয়েল এবং মিন্টু নামে ০৪ (চার) জন বখাটে যুবক ০৩ (তিন) দিন আগেই বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হওয়া এক নবদম্পতি স্ত্রীর বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়িতে যাওয়ার পথে তাদেরকে পথরোধ করে জোরপূর্বক টেনেহিঁচড়ে আধা কিলোমিটার দূরে একটি পুকুর পাড়ে নিয়ে স্বামীকে গাছের সঙ্গে বেঁধে স্ত্রীকে পালাক্রমে প্রত্যেকে একাধিকবার ধর্ষণ করেছিল। এই ঘটনা এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছিল।

[৫] পরবর্তীতে ১৫ জুন ২০২০ খ্রিঃ পটিয়া থানায় এই ঘটনায় মামলা দায়ের হয়। এই নিয়ে ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত ০৩ (তিন) জন ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৭। পলাতক আসামী হান্নান (৩২)’কে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে র‌্যাব-৭। আরো উল্লেখ্য যে, গ্রেফতারকৃত আসামী মোঃ আবু তাহের মন্টু (৩০) একটি হত্যামামলারও আসামি।

[৬] এই গণধর্ষণের নেপথ্যে আরো কেউ জড়িত আছে কিনা তা জানার জন্য নিয়মিত তদন্তের পাশাপাশি র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম ছায়া তদন্ত অব্যাহত রেখেছে বলেও জানান এই র‌্যাব কর্মকর্তা। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

সর্বাধিক পঠিত