প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কোভিড থেকে বাঁচতে ইরানে তাঁবু স্কুল!

ডেস্ক রিপোর্ট : কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘জুতা আবিষ্কার’ কবিতার কথা মনে আছে নিশ্চয়ই। কীভাবে গোটা সাম্রাজ্যের ধুলো ঢাকার বদলে রাজাকে নিজের পা ঢাকার পরামর্শ দিয়েছিলেন বৃদ্ধ। তাতে আবার মন্ত্রী মশাই বলে উঠেছিলেন, “আমারো ছিল মনে, কেমনে বেটা পেরেছে সেটা জানতে”। ইরানের স্কুল কর্তৃপক্ষ বিশ্বকবির এ কবিতা কতটা জানে তা জানা নেই। তবে করোনা সঙ্কটের আবহে প্রায় এমনই এক পদক্ষেপ নিয়েছে ওই দেশের প্রশাসন।

কী করা হয়েছে? করোনা পরিস্থিতির জেরে প্রায় সাত মাস বন্ধ রাখা হয়েছিল ইরানের স্কুলগুলো। নিউ নর্মালে তা খোলা হয়েছে সম্প্রতি। আর অভিনব পন্থায় শিশুদের ক্লাস করানো হচ্ছে। ক্লাসরুমে প্রত্যেক শিশুকে আলাদা তাবু দেয়া হয়েছে। ক্লাসরুমের মেঝেতেই তা পাতা হয়েছে। তাঁবুর চারদিক স্বচ্ছ প্লাস্টিক দিয়ে ঘেরা। যার মধ্যে মাস্ক ছাড়া বসে রয়েছে ছোট্ট ছাত্ররা। এই অবস্থাতেই তাদের পড়াচ্ছেন শিক্ষকরা। টুইটারে ছবিটি শেয়ার করেছেন ফারনাজ ফসিলি নামের এক সাংবাদিক। মুহূর্তের মধ্যে তা ভাইরাল হয়ে যায়।

করোনা সঙ্কটের আবহে এখানেও বহু দিন ধরে স্কুল-কলেজ-বিশ্ব বিদ্যালয়ের ক্লাস বন্ধ। ভার্চুয়াল ক্লাসের ভরসায় মাসের পর মাস কাটিয়ে দিয়েছেন ছাত্ররা। নতুন প্রজন্মের অনেকে অভ্যস্ত হয়ে গিয়েছে এই নিউ নর্মালে। তবে আমাদের মতো জনবহুল দেশে ভারচুয়াল ক্লাসেরও অনেক সমস্যা দেখা যাচ্ছে। অনেক জায়গায় ভার্চুয়াল ক্লাসের পরিকাঠামো এখনো নেই।

ইরানের এই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। একাংশ অভিনব পন্থার প্রশংসা করেছেন, আরেকাংশ আমার শিশুদের মুখে মাস্ক না থাকায় তাদের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত