প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] পুলিশের উপস্থিতিতে মুদী দোকানীকে বিলের পানিতে চুবিয়ে হত্যার ঘটনায় কালুখালী থানায় ২টি মামলা

রাজবাড়ী প্রতিনিধি : [২]  রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার মাজবাড়ী ইউনিয়নের বেতবাড়ীয়া গ্রামের মুদী দোকানী রবিউল বিশ্বাস (৩২)কে হত্যার ঘটনায় থানায় ২টি মামলা দায়ের হয়েছে।

[৩] গত শনিবার রাতে নিহত রবিউলের স্ত্রী শাবানা বেগম বাদী হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় একই এলাকার রফিক (৩৮), ইলিয়াস (৩৪), রাকিব (২২), ইসলাম (৪৮) ও মোসলেম (৩০)কে এজাহারনামীয় আসামী করা হয়েছে। পুলিশ এ হত্যা মামলায় এহাজারনামীয় আসামী রাকিবসহ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত সন্দেহে মাজবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইউসুফ হোসেন মোল্লার দুই ছেলে রাসেল মোল্লা (৩২) ও সোহেল মোল্লা (৩২)কে গ্রেফতার করেছে।

[৪] অপরদিকে, পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় কালুখালী থানার এসআই সোহাগ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ২ শতাধিক আসামী করে থানায় আরেকটি মামলা দায়ের করেছেন। এর পাশাপাশি হত্যাকান্ডের সাথে পুলিশের সম্পৃক্ততার অভিযোগ ও পুলিশের উপর হামলার ঘটনা তদন্তে রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) মোঃ সালাহউদ্দিনকে প্রধান করে ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া রবিবার দুপুরে পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি জিহাদুল কবির ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

[৫] নিহতের স্ত্রীর দায়েরকৃত হত্যা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মনোয়ার হোসেন বলেন, নিহত রবিউলের লাশের সুরতহাল রিপোর্ট প্রস্তুতের সময় তার দুই চোয়ালে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

[৬] ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে অতিরিক্ত ডিআইজি জিহাদুল কবির উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, পুলিশ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে যত দ্রুত সম্ভব জড়িতদের গ্রেফতার ও আদালতে চার্জশীট দাখিল করবে। এই ঘটনায় পুলিশের কোন ‘ফাউল প্লে’ আছে কিনা সেটার জন্য রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ সালাহউদ্দিন প্রধান করে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা তিন দিনের মধ্যে পুলিশের ভূমিকা কী ছিল সেটি নিয়ে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করবেন। এছাড়া পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় যাদের নামে মামলা হয়েছে তারাও আইনের আওতায় আসবে। কোন ব্যক্তি যেন অযথা হয়রানীর শিকার না হয় সেদিকে পুলিশ খেয়াল রাখবে।

[৭] উল্লেখ্য, গত শুক্রবার দিবাগত রাত ২টার দিকে কালুখালী উপজেলার বেতবাড়ীয়া গ্রামের নিজ বাড়ী থেকে মুদী দোকানী রবিউল বিশ্বাসকে তুলে নিয়ে পার্শ্ববর্তী মোনাই’র বিলের পানিতে চুবিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠে। হত্যাকান্ডের সময় কালুখালী থানা পুলিশের কয়েখজন সদস্য উপস্থিত ছিল বলে অভিযোগ করে নিহতের পরিবার। পরে সকালে (শনিবার) লাশ উদ্ধার করতে গিয়ে কালুখালী থানা পুলিশের বেশ কয়েকজন সদস্য উত্তেজিত এলাকাবাসীর হামলার শিকার হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত