প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] প্রাণে বাঁচতে পালিয়ে বেড়াচ্ছে বৃদ্ধ সোরহাব

সোহেল হোসাইন : [২] কৃষি কাজ করে পরিবার পরিজন নিয়ে বেশ ভালোই যাচ্ছিল কৃষক সোরহাব হোসেনের (৬৭) দিনকাল। পারিবারিক চাহিদা মেটাতে একমাত্র ছেলে মোস্তফা হোসেন কুয়েত প্রবাসি। পরিবারের অন্য সদস্যদের নিয়ে মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার হাটিপাড়া এলাকার বনপারিল এলাকার নিজ বাড়িতে বসবাস করেন সোরহাব হোসেন।

[৩] বাড়ির পাশেই কৃষি জমির পাশাপাশি ছোট বড় তিনটি পুকুর রয়েছে তার। তিন বছরের চুক্তিতে ৫০ হাজার টাকায় পার্শবর্তী শিকারীপাড়া এলাকার সংকর মাঝির নিকট পুকুরগুলো লীজ দিয়েছেন তিনি। সম্প্রতি বন্যার পানিতে ডুবে যায় সেই পুকুরগুলো। সেখানে বেশাল দিয়ে মাছ শিকার করেন সংকর মাঝি ও তার লোকজন।

[৪] এই পুকুরে মাছ ধরা নিয়ে সোরহাবের নিকট সাথে বাক-বিতন্ডা হয় এলাকার বখাটে যুবকদের। সোরহাবের নিকট চাঁদা হিসেবে দাবি করা হয় ২ লাখ টাকা। এই টাকা না দেওয়ায় ২ আগষ্ট দুপুরে সোরহাবকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে বাড়ির পাশের দুলাল মোল্লার ভিটায় নিয়ে মারধর করে ওই বখাটেরা।

[৫] পরে গুরুতর আহতবস্থায় মৃত ভেবে তাকে ফেলে রেখে গেলে স্থানীয়রা সোরহাবকে উদ্ধার করে মানিকগঞ্জ জেলা হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে তিনদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর কিছুটা সুস্থ হয়ে মঙ্গলবার রাতে (৪ আগষ্ট) মানিকগঞ্জ সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। এরপর থেকে আত্মীয় বাড়িতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন সোরহাব।

[৬] এ বিষয়ে আলাপ হলে সোরহাব হোসেন বলেন, চাঁদা না দেওয়াকে কেন্দ্র করে নৌকা দিয়ে বাড়ি থেকে তাকে তুলে নিয়ে যান একই এলাকার ওহাব আলীর ছেলে মিঠুন (২৪) এবং হৃদয় (২২), পান্নু বেপারীর ছেলে মিরাজ (২১), কিয়ামুদ্দিনের ছেলে বাবু (৪২), একু ইসলামের ছেলে আওয়াল (২১), ইউনুছ খানের ছেলে মিজানুর রহমান (২০) এবং আরেক ছেলে শাহীন (২২)।

[৭] দুলাল মোল্লার ভিটায় নিয়ে তাকে বেধড়ক মারধোর করেন। এর এক পর্যায়ে মিঠুন তার হাতে থাকা ছ্যান দিয়ে কুপ দিয়ে তার হাতে রক্তাক্ত জখম করলে মাটিতে লুটিয়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন তিনি। এই ঘটনার জের ধরে তাকে আবারো মারধরের হুমকি দিয়ে যাচ্ছে ওই বখাটেরা। এবার পেলে তাকে জানে মেরে ফেলবে বলে প্রাণ বাঁচাতে তিনি তার আত্মীয়ের বাড়িতে রয়েছেন বলে জানান তিনি।

[৮] এসব বিষয়ে জানতে চাইলে সোরহাব হোসেনের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম বলেন, নিজের চোঁখের সামনে থেকে স্বামীকে নৌকায় করে উঠিয়ে নিয়ে মারধর করেন এলাকার ওই যুবকেরা। রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথেও বাঁধা দেন তারা। পরে এলাকার লোকজনের সহায়তায় তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। এই ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত সাপেক্ষে ন্যায় বিচার দাবি করেন তিনি।

[৯] সোরহাবের ছেলের বউ আকলিমা আক্তার বলেন, চাঁদার টাকা না পেয়ে তার শশুড়কে মারধোর করে এলাকার বখাটেরা। এই ঘটনা নিয়ে থানা পুলিশ করা হলে বাড়িঘর আগুনে পুড়িয়ে শেষ করে দেওয়ার হুমকিও দিচ্ছে তারা। এছাড়া আমার শশুড় (সোরহাব) কে পেলে এবার জানে মেরে মাটিতে পুতে রাখবে বলেও হুমকি দিয়ে যাচ্ছে বলে জানান তিনি।

[১০] এসব বিষয়ে জানতে চাইলে মানিকগঞ্জ সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ফরহাদ হোসেন বলেন, ব্যস্ততার কারণে সোরহাব হোসেনের অভিযোগের বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করার সুযোগ হয়নি। তবে খুব দ্রুতই বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত