প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] অবৈধ ক্যাবলের পাশাপাশি স্থাপনা উচ্ছেদ: রোববার থেকে মেডিকেল, বঙ্গবাজার ও আনন্দ বাজারে অভিযান

সুজিৎ নন্দী : [২] ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে করপোরেশনের আওতাধীন এলাকায় অবৈধ ক্যাবল সংযোগ উচ্ছেদ কার্যক্রমের দ্বিতীয় দিনে বৃহস্পতিবার গুলিস্তানে উদয়ন মার্কেটের আশপাশ এবং গোলাপ শাহ মাজার হতে গুলিস্তান আন্ডারপাস পর্যন্ত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে।

[৩] সকাল থেকেই ফুলবাড়িয়া মার্কেটের সামনে অবৈধ ক্যাবল সংযোগ উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা করেন করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইরফান উদ্দিন আহমদের নেতৃত্বাধীন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

[৪] ভ্রাম্যমাণ আদালত গুলিস্থানের উদয়ন মার্কেটে ঢোকার মুখে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা একটি রাজনৈতিক দলের স্থানীয় কার্যালয়, মার্কেটের সামনে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা খাবার হোটেল, কাপড়ের দোকান এবং রাস্তার পাশের কনফেকশনারী উচ্ছেদ করে। তারপর গোলাপ শাহ মাজার হতে গুলিস্তান আন্ডারপাস পর্যন্ত রাস্তার দু’পাশের অবৈধ স্থাপনা, ফুটপাতের হকার ও টং দোকান উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা করে।

[৫] করপোরেশন সূত্র জানায়, ফুলবাড়িয়া মার্কেটের সামনে অবৈধ ক্যাবল সংযোগ উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনার পর প্রায় ৩০টি বিভিন্ন ধরনের অবৈধ দোকান ও কার্যালয় গুড়িয়ে দিয়েছে। গোলাপ শাহ মাজার হতে গুলিস্তান আন্ডারপাস পর্যন্ত প্রায় ২০টি অবৈধ টং দোকান ও স্থাপনা উচ্ছেদ করেছি, উচ্ছেদ করেছি ফুটপাতের হকার। মেয়রের বিশেষ নির্দেশনায় এই উচ্ছেদ কার্যক্রম চলমান থাকবে।

[৬] আগামী রোববার ঢাকা মেডিকেল কলেজ সংলগ্ন অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ কার্যক্রমের পাশাপাশি বঙ্গ বাজার, আনন্দ বাজার এলাকায় অবৈধ সংযোগ উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে।

[৭] এদিকে করপোরেশনের সম্পত্তি কর্মকর্তা নেতৃত্বাধীন আদালত ধানমন্ডির রবীন্দ্র সরোবরের সম্মুখ অংশসহ ধানমন্ডি ৭ নং রোডে উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা করেন। কর্পোরেশনের সম্পত্তি কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান বলেন, আগামী রোববার ধানমন্ডির অন্যান্য এলাকা ও হাজারীবাগ এলাকায় অবৈধ ক্যাবল সংযোগ উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে।

[৮] ডিএসসিসির মেয়র তাপস গত ৩১ জুলাই করপোরেশনের বাজেট ঘোষণা অনুষ্ঠানে এক সপ্তাহের মধ্যে অবৈধ ক্যাবলের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনার করার পরিকল্পনা জানান। এই অবৈধ উচ্ছেদ কার্যক্রম চলমান থাকবে। সম্পাদনা : খালিদ আহমেদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত