প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] গোপালগঞ্জ বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা, আত্মহত্যা কোন সমাধান নয় বললেন শিক্ষক সমাজ।

আসাদুজ্জামান বাবুল : [২] গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী সাদিয়া কুতুব গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। সাদিয়া কুতুবের বাড়ি গোপালগঞ্জ জেলা শহরের পৌরসভার চাঁদমারি রোডে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী সাদিয়া কুতুবের গলায়ফাঁস লাগিয়ে আত্মহুতি দেয়ার সু-নিদৃষ্ট কারন জানাতে পারেননি পুলিশ।

[৩] গোপালগঞ্জের সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো,মনিরুল ইসলাম শনিবার মধ্যে রাতে সাংবাদিকদের বলেছেন, গোপালগঞ্জ জেলা শহরের পৌরসভার চাঁদমারি রোডের বাসিন্দা সাদিয়া কুতুব নামের এক মেয়ে আত্মহত্যা করেছে শুক্রবার আনুমানিক বেলা ১১-১২ টার মধ্যে। আর পুলিশ তার মরদেহ বুঝে পেয়েছে আড়াইটার দিকে। এই ২ থেকে আড়াই ঘন্টা তারা কেন বিষয়টি পুলিশকে জানাননি তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

পরিবার ও প্রতিবেশীদের মাধ্যমে আত্মহত্যার কারণ প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, পড়াশুনা ও সাংসারিক বিভিন্ন বিষয়ে বাবার উপর অভিমান করে গলায় ফাঁস লাগিয়ে সাদিয়া কুতুব আত্মহত্যা করেছে।বিষয়টি এমন হয়ে থাকলে বলবো এটি একটি মস্ত বড় ভূল সিদ্ধান্ত।

[৪] এদিকে, সাদিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়সহ গোটা জেলার শিক্ষক সমাজ বলেছেন, আত্মহত্যা কোন সমাধান নয়।আবেগী ছেলে মেয়েরাই কেবলমাত্র এ ধরনের ভুল সিদ্ধান্তেরমত কাজ করে থাকে।

শুক্রবার আনুমানিক ১১/১২টায় ঘটনার সাদিয়া কুতুবকে গোপালগঞ্জ আড়াইশ বেড হাসপাতালে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। সাদিয়া কুতুব নামের ওই শিক্ষার্থীর আইডি- 18SOC21, সে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ২০১৮-২০১৯ সেশনের শিক্ষার্থী। অত্যন্ত গোপনীয়তার কারনে সাদিয়ার আত্মহত্যার সংবাদটি পেতে দেরী হয়েছে বলে মনে করেন গোপালগঞ্জের সাংবাদিক সমাজ।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত